ভাষাসৈনিক সাংবাদিক মিজানুরের মৃত্যুবার্ষিকী পালিত 
jugantor
ভাষাসৈনিক সাংবাদিক মিজানুরের মৃত্যুবার্ষিকী পালিত 

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১৯ জুলাই ২০২২, ১৩:৩০:৫৫  |  অনলাইন সংস্করণ

ভাষা সৈনিক সাংবাদিক মিজানুরের ১৯তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

ভাষাসৈনিক ও সাংবাদিক মিজানুর রহমানের ১৯তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে জাতীয় প্রেসক্লাবের মসজিদে মঙ্গলবার বাদ আসর এক মিলাদ ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে।

সাংবাদিক মিজানুর রহমান স্মৃতি পরিষদ এই মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করে। দোয়া ও মিলাদ মাহফিলে সাংবাদিক নেতা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, শওকত মাহমুদ, এম. আবদুল্লাহ, আশরাফ আলী, মোহাম্মদ আল মামুনসহ জাতীয় প্রেসক্লাবের জ্যেষ্ঠ সদস্যরা এবং যুগান্তরের সিনিয়র সহ-সম্পাদক আতাউর রহমান, বিশিষ্ট সমাজসেবক মো. মহসীন, জাতীয় গণতান্ত্রিক লীগের সভাপতি আবদুল জলিলসহ বিপুল সংখ্যক গুণগ্রাহী উপস্থিত ছিলেন।

দোয়া মাহফিলে মিজানুর রহমানের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে সবার কাছে দোয়া চান স্মৃতি পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান।

প্রসঙ্গত, ২০০৩ সালের ১৯ জুলাই মিজানুর রহমান বার্ধক্যজনিত কারণে ইন্তেকাল করেন।

মৃত্যুর আগে তিনি বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার (বাসস) বাণিজ্যিক সম্পাদকের পদ থেকে অবসর গ্রহণ করেন। এর আগে তিনি দৈনিক ইত্তেফাকের চিফ রিপোর্টার ও বাংলাদেশ প্রেস ইন্টারন্যাশনালের (বিপিআই) প্রধান সম্পাদকসহ গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেছেন।

মিজানুর রহমানের জন্ম গাজীপুরে। তিনি ছিলেন গাজীপুর প্রেসক্লাবের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা ও আহ্বায়ক। তিনি সপ্তাহিক ভাওয়াল ও বঙ্গতাজ পত্রিকা প্রকাশনা ও সম্পাদনাসহ বিভিন্ন ক্রীড়া ও সামাজিক সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত থেকে বিভিন্ন পদে দায়িত্ব পালন করে বিশেষ অবদান রেখে গেছেন।

পেশাগত জীবনে মিজানুর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর শেখ মুজিবুর রহমান, হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী, মাওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানী এবং শেরে বাংলা একে ফজলুল হকের সান্নিধ্যে থেকে দেশসেবায় কল্যাণমূলক কাজ করে গেছেন।

তিনি ঢাকা কলেজে ছাত্র থাকাকালীন ঢাকা জেলা ছাত্রলীগের বিভিন্ন পদে দায়িত্ব পালন করেন।

ভাষাসৈনিক সাংবাদিক মিজানুরের মৃত্যুবার্ষিকী পালিত 

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১৯ জুলাই ২০২২, ০১:৩০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ভাষা সৈনিক সাংবাদিক মিজানুরের ১৯তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ
সাংবাদিক মিজানুর রহমান। ফাইল ছবি

ভাষাসৈনিক ও সাংবাদিক মিজানুর রহমানের ১৯তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে জাতীয় প্রেসক্লাবের মসজিদে মঙ্গলবার বাদ আসর এক মিলাদ ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে। 

সাংবাদিক মিজানুর রহমান স্মৃতি পরিষদ এই মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করে।  দোয়া ও মিলাদ মাহফিলে সাংবাদিক নেতা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, শওকত মাহমুদ, এম. আবদুল্লাহ, আশরাফ আলী, মোহাম্মদ আল মামুনসহ জাতীয় প্রেসক্লাবের জ্যেষ্ঠ সদস্যরা এবং যুগান্তরের সিনিয়র সহ-সম্পাদক আতাউর রহমান, বিশিষ্ট সমাজসেবক মো. মহসীন,  জাতীয় গণতান্ত্রিক লীগের সভাপতি আবদুল জলিলসহ বিপুল সংখ্যক গুণগ্রাহী উপস্থিত ছিলেন।
 
দোয়া মাহফিলে মিজানুর রহমানের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে সবার কাছে দোয়া চান স্মৃতি পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান।

প্রসঙ্গত, ২০০৩ সালের ১৯ জুলাই মিজানুর রহমান বার্ধক্যজনিত কারণে ইন্তেকাল করেন। 

মৃত্যুর আগে তিনি বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার (বাসস) বাণিজ্যিক সম্পাদকের পদ থেকে অবসর গ্রহণ করেন। এর আগে তিনি দৈনিক ইত্তেফাকের চিফ রিপোর্টার ও বাংলাদেশ প্রেস ইন্টারন্যাশনালের (বিপিআই) প্রধান সম্পাদকসহ গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেছেন।

মিজানুর রহমানের জন্ম গাজীপুরে। তিনি ছিলেন গাজীপুর প্রেসক্লাবের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা ও আহ্বায়ক।  তিনি সপ্তাহিক ভাওয়াল ও বঙ্গতাজ পত্রিকা প্রকাশনা ও সম্পাদনাসহ বিভিন্ন ক্রীড়া ও সামাজিক সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত থেকে বিভিন্ন পদে দায়িত্ব পালন করে বিশেষ অবদান রেখে গেছেন।

পেশাগত জীবনে মিজানুর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর শেখ মুজিবুর রহমান, হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী, মাওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানী এবং শেরে বাংলা একে ফজলুল হকের সান্নিধ্যে থেকে দেশসেবায় কল্যাণমূলক কাজ করে গেছেন। 

তিনি ঢাকা কলেজে ছাত্র থাকাকালীন ঢাকা জেলা ছাত্রলীগের বিভিন্ন পদে দায়িত্ব পালন করেন।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন