কমবে ফ্রিজের দাম

  যুগান্তর রিপোর্ট ০৭ জুন ২০১৮, ২০:১৪ | অনলাইন সংস্করণ

বাজেট
ফাইল ছবি

দেশীয় রেফ্রিজারেটর এবং কম্প্রেসার শিল্প প্রতিরক্ষণের লক্ষ্যে রেফ্রিজারেন্ট, কপার টিউবসহ ইলেকট্রিক এপারেটাসে আমদানি শুল্ক ৫ শতাংশ এবং ওয়েল্ডিং ওয়্যারের আমদানি শুল্ক ১৫ শতাংশ হ্রাসের প্রস্তাব করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

বিভিন্ন ধরনের ইলেকট্রিক্যাল পণ্যের জন্য মোবাইল ব্যাটারি চার্জার, ইউপিএস/আইপিএস ও ভোল্টেজ স্ট্যাবিলাইজারের শুল্ক ১৫ শতাংশ; অটোমেটিক সার্কিট ব্রেকারের শুল্ক ১০ শতাংশ বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরের বাজেট বক্তৃতায় অর্থমন্ত্রী এই প্রস্তাব করেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, দেশে বর্তমানে উন্নতমানের রেফ্রিজারেটর ও এয়ার কন্ডিশনার তৈরি হচ্ছে, যা দেশের চাহিদা মেটাতে সক্ষম। সম্প্রতি দেশে আধুনিক মানের কম্প্রেসার প্রস্তুতকারী কারখানা চালু হয়েছে।

তিনি বলেন, স্থানীয় এসব শিল্পকে প্রতিরক্ষণের লক্ষ্যে এ খাতে ব্যবহৃত কতিপয় উপকরণ যেমন-রেফ্রিজারেন্ট, প্রিন্টেড স্টিল শিট (০.৩ এমএম পুরুত্ব), কপার টিউব, ক্যাপাসিটর, কানেক্টর, টার্মিনাল ও ইলেকট্রিক এপারেটাসে আমদানি শুল্ক ৫ শতাংশ এবং ওয়েল্ডিং ওয়্যার, স্প্রিং ও গ্যাসকেটে আমদানি শুল্ক ১৫ শতাংশ হ্রাসের প্রস্তাব করছি।

দেশীয় ইলেকট্রিক শিল্পে উৎপাদিত পণ্যের প্রতিরক্ষণের সুবিধার্থে মোবাইল ব্যাটারি চার্জার, ইউপিএস/আইপিএস ও ভোল্টেজ স্ট্যাবিলাইজারের শুল্ক ১৫ শতাংশ; অটোমেটিক সার্কিট ব্রেকারের শুল্ক ১০ শতাংশ বাড়ানো হয়েছে; ল্যাম্প হোল্ডারের ক্ষেত্রে সম্পূরক শুল্ক ২০ শতাংশ আরোপ করার প্রস্তাব করেছেন অর্থমন্ত্রী।

একই সঙ্গে এসব শিল্পের কতিপয় কাঁচামাল যেমন-কার্বন রড, ফর্মড কোর আমদানিতে শুল্ক বিভিন্ন হারে হ্রাসের প্রস্তাব করেন অর্থমন্ত্রী।

ঘটনাপ্রবাহ : বাজেট ২০১৮

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter