ঝড়ের কবলে পড়ে ভারতীয় জলসীমায়, ট্রলারসহ ১১ জেলে আটক  
jugantor
ঝড়ের কবলে পড়ে ভারতীয় জলসীমায়, ট্রলারসহ ১১ জেলে আটক  

  পাথরঘাটা (বরগুনা) প্রতিনিধি   

১৬ আগস্ট ২০২২, ২১:৫৯:০৫  |  অনলাইন সংস্করণ

ফাইল ছবি

গভীর সমুদ্রে ঝড়ের কবলে পড়ে ইঞ্জিন বিকল হয়ে ভারতীয় জলসীমায় চলে যাওয়ায় ট্রলারসহ ১১ জেলেকে আটক করেছে সে দেশের কোস্টাল স্টেশনের পুলিশ।

বরগুনা জেলা মৎস্যজীবী ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা চৌধুরী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এফবি ফাতেমা নামে ওই ট্রলারের মালিক ও জেলেদের বাড়ি বরগুনার পাথরঘাটায়।

গোলাম মোস্তফা বলেন, ট্রলারের মালিক সামছুল হক ভারত থেকে মোবাইল ফোনে জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার মাছ ধরার জন্য চরদুয়ানী ইউনিয়নের সামছুল হকের নেতৃত্বে ১১ জেলে সাগরে যান। দুদিন পর সমুদ্রে ঝড় শুরু হলে ট্রলারের ইঞ্জিনে পানি ঢুকে বিকল হয়ে যায়। পরে তারা ভাসতে ভাসতে ভারতের ২৪ পরগনার ছোটমোল্লাখালি পৌঁছায়। সেখানকার লোকজন ট্রলারের মালামাল নিয়ে যায় এবং ট্রলারসহ ১১ জেলেকে কোস্টাল স্টেশনের পুলিশের কাছে সোমবার হস্তান্তর করেন।

আইনি প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে মঙ্গলবার আদালতে পাঠানো হবে বলে ভারতীয় জেলে জয়ন্ত জানিয়েছেন। আটক জেলেরা হলেন- মো. আলী হোসেন, মো. সামছুল হক, আ. জলিল মিয়া, মো. নবী হোসেন, মো. খলিল মীর, ফারুক মীর, মো. মুছা, মো. রুবেল, মো. রুন্তম, মো. হারুন ও হাফিজুর রহমান। এদিকে আটকের খবর পেয়ে জেলেদের বাড়িতে স্বজনদের আহাজারি চলছে।

বরগুনা জেলা ফিশিং ট্রলার শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আ. মন্নান মিয়া বলেন, আমাদের জেলেরা ভুলে সীমানা অতিক্রম করলে অথবা দুর্যোগের সময় ভারতীয় জলসীমায় প্রবেশ করলেই জেলহাজতে পাঠানো হয়। আর ভারতের জেলেরা আমাদের জলসীমায় অনুপ্রবেশ করলে জামাই আদরে তাদের দেশে পাঠিয়ে দেই।

ঝড়ের কবলে পড়ে ভারতীয় জলসীমায়, ট্রলারসহ ১১ জেলে আটক  

 পাথরঘাটা (বরগুনা) প্রতিনিধি  
১৬ আগস্ট ২০২২, ০৯:৫৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ফাইল ছবি
ফাইল ছবি

গভীর সমুদ্রে ঝড়ের কবলে পড়ে ইঞ্জিন বিকল হয়ে ভারতীয় জলসীমায় চলে যাওয়ায় ট্রলারসহ ১১ জেলেকে আটক করেছে সে দেশের কোস্টাল স্টেশনের পুলিশ। 

বরগুনা জেলা মৎস্যজীবী ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা চৌধুরী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এফবি ফাতেমা নামে ওই ট্রলারের মালিক ও জেলেদের বাড়ি বরগুনার পাথরঘাটায়। 

গোলাম মোস্তফা বলেন, ট্রলারের মালিক সামছুল হক ভারত থেকে মোবাইল ফোনে জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার মাছ ধরার জন্য চরদুয়ানী ইউনিয়নের সামছুল হকের নেতৃত্বে ১১ জেলে সাগরে যান। দুদিন পর সমুদ্রে ঝড় শুরু হলে ট্রলারের ইঞ্জিনে পানি ঢুকে বিকল হয়ে যায়। পরে তারা ভাসতে ভাসতে ভারতের ২৪ পরগনার ছোটমোল্লাখালি পৌঁছায়। সেখানকার লোকজন ট্রলারের মালামাল নিয়ে যায় এবং ট্রলারসহ ১১ জেলেকে কোস্টাল স্টেশনের পুলিশের কাছে সোমবার হস্তান্তর করেন। 
 
আইনি প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে মঙ্গলবার আদালতে পাঠানো হবে বলে ভারতীয় জেলে জয়ন্ত জানিয়েছেন। আটক জেলেরা হলেন- মো. আলী হোসেন, মো. সামছুল হক, আ. জলিল মিয়া,  মো. নবী হোসেন, মো. খলিল মীর, ফারুক মীর, মো. মুছা, মো. রুবেল, মো. রুন্তম, মো. হারুন ও হাফিজুর রহমান। এদিকে আটকের খবর পেয়ে জেলেদের বাড়িতে স্বজনদের আহাজারি চলছে। 

বরগুনা জেলা ফিশিং ট্রলার শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আ. মন্নান মিয়া বলেন, আমাদের জেলেরা ভুলে সীমানা অতিক্রম করলে অথবা দুর্যোগের সময় ভারতীয় জলসীমায় প্রবেশ করলেই জেলহাজতে পাঠানো হয়। আর ভারতের জেলেরা আমাদের জলসীমায় অনুপ্রবেশ করলে জামাই আদরে তাদের দেশে পাঠিয়ে দেই।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন