তিন জেলায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ৩

  যুগান্তর ডেস্ক ২৮ জুলাই ২০১৮, ১১:৩৭ | অনলাইন সংস্করণ

তিন জেলায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ৩
প্রতীকী ছবি- যুগান্তর

কুমিল্লা, সাতক্ষীরা ও বরগুনায় র‌্যাব, পুলিশ ও বিজিবির সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ তিনজন নিহত হয়েছেন।

শুক্রবার দিবাগত রাত ও শনিবার ভোর পর্যন্ত এ ‘বন্দুকযুদ্ধের’ ঘটনাগুলো ঘটে।

আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর:

সাতক্ষীরা: সাতক্ষীরার শ্যামনগরে গ্রেফতারের পর পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ রেজাউল ইসলাম নামের এক যুবক নিহত হয়েছেন।

পুলিশের দাবি, রেজাউল মোটরসাইকেল চোর চক্রের হোতা। তার বিরুদ্ধে মোটরসাইকেল চুরির ১২টি মামলা রয়েছে। রেজাউল (৪২) শ্যামনগরের বাদোঘাটা গ্রামের আবদুল মাজেদ দফাদারের ছেলে।

শুক্রবার মধ্যরাতে শ্যামনগরের খানপুর বাজারের নিকটে একটি ইটভাটার কাছে কালভার্টের ওপর এ ‘বন্দুকযুদ্ধের’ ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে একটি ওয়ান শুটারগান ও কিছু গুলি উদ্ধার করা হয়েছে।

জেলা পুলিশের তথ্য কর্মকর্তা বিশেষ শাখার পরিদর্শক আজম খান জানান, মোটরসাইকেল চোর চক্রের হোতা রেজাউল ইসলামকে ঢাকার পল্লবী থানা পুলিশ বৃহস্পতিবার একটি গোপন আস্তানা থেকে গ্রেফতার করে। শ্যামনগর থানা পুলিশ তাকে শুক্রবার সকালে সাতক্ষীরায় নিয়ে আসে। রেজাউলের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী চোরচক্রের আরও তিন সদস্য শামীম, শাহজাহান ও সাহিদুলকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় একটি চোরাই মোটরসাইকেলও জব্দ করা হয়।

তিনি বলেন, রাতে রেজাউলকে নিয়ে খানপুর এলাকায় তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী আরও মোটরসাইকেল উদ্ধার করতে গেলে সেখানে আগে থেকে ওঁৎ পেতে থাকা সন্ত্রাসীরা তাকে ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে। এসময় পুলিশকে লক্ষ্য করে তারা গুলি ছুড়লে পুলিশও পাল্টা গুলি ছোড়ে। এতে গুলিবিদ্ধ হন রেজাউল। তাকে দ্রুত শ্যামনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

নিহত রেজাউলের বিরুদ্ধে ১২টিরও বেশি মোটরসাইকেল চুরির মামলা রয়েছে। ময়না তদন্তের জন্য তার লাশ সাতক্ষীরা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

বন্দুকযুদ্ধের সময় পুলিশের তিন কনস্টেবল আহত হয়। তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

কুমিল্লা: জেলায় র‌্যাব ও বিজিবির সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ সহিদুল ইসলাম ওরফে সবু মিয়া (৪০) নামে ২৭ মামলার এক আসামি নিহত হয়েছেন।

র‌্যাব ও বিজিবির দাবি, নিহত সহিদুল শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী। তার বিরুদ্ধে ২৭টি মামলা রয়েছে। সহিদুল জেলার সদর দক্ষিণ উপজেলার একবালিয়া গ্রামের মৃত বাদশা মিয়ার ছেলে।

শুক্রবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে নগরীর কাপ্তানবাজার সংলগ্ন গোমতী বেড়িবাঁধ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

ঘটনাস্থলে থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, এক রাউন্ড গুলিসহ বিপুল পরিমাণ ইয়াবা ও ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়।

র‌্যাব জানায়, শুক্রবার দিবাগত রাতে মাদকবিরোধী অভিযানের অংশ হিসেবে র‌্যাব এবং বিজিবির পৃথক টহল দল নগরীর কাপ্তানবাজার সংলগ্ন গোমতী নদীর বেড়িবাঁধ এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে। এসময় র‌্যাব-বিজিবির উপস্থিতি টের পেয়ে তাদের ওপর হামলা চালায় মাদক ব্যবসায়ীরা। আত্মরক্ষার্থে র‌্যাবও পাল্টা গুলি ছুড়লে সহিদুল ইসলাম গুলিবিদ্ধ হয়।

পরে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পর দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

কুমিল্লাস্থ র‌্যাব-১১, সিপিসি-২ এর কোম্পানি কমান্ডার মেজর আতাউর রহমান জানান, সহিদুল ইসলাম সবু একজন চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী। তার বিরুদ্ধে মাদকের ২০টিসহ বিভিন্ন অভিযোগে ২৭টি মামলা রয়েছে।

পাথরঘাটা (বরগুনা): বরগুনার পাথরঘাটায় র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ কাজল নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। র‌্যাবের দাবি, নিহত কাজল জলদস্যু জাহাঙ্গীর বাহিনীর সদস্য।

শনিবার ভোররাতে উপজেলার বলেশ্বর নদের মাঝের চর এলাকায় এ ‘বন্দুকযুদ্ধের’ ঘটনা ঘটে। এ সময় ৩টি আগ্নেয়াস্ত্র ও বিপুল পরিমাণ গোলাবারুদ উদ্ধার করা হয়।

বরিশাল র‌্যাব-৮ এর বরাত দিয়ে পাথরঘাটা থানার ওসি মোল্লা মো. খবির আহম্মেদ জানান, পাথরঘাটা সংলগ্ন বলেশ্বর নদীর মাঝের চর (বিহঙ্গ দ্বীপ) এলাকায় রাতে র‌্যাব বিশেষ অভিযানে যায়। এসময় র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে কাজল নামে এক জলদস্যু নিহত হয়েছেন।

র‌্যাবের পক্ষ থেকে পাথরঘাটা থানায় মরদেহ ও অস্ত্র-গোলাবারুদ্ধ হস্তান্তর করা হবে। তবে তাৎক্ষণিকভাবে নিহতের নাম জানা গেলেও তার বাড়ির ঠিকানা জানা যায়নি বলে জানান ওসি।

ঘটনাপ্রবাহ : মাদকবিরোধী অভিযান ২০১৮

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter