যাত্রী সংকটে আরও একটি হজফ্লাইট বাতিল

প্রকাশ : ০৪ আগস্ট ২০১৮, ১২:৫০ | অনলাইন সংস্করণ

  যুগান্তর রিপোর্ট

ছবি- সংগৃহীত

যাত্রী সংকটে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের আরও একটি হজফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে।

শনিবার বিজি-১০৬৭ ফ্লাইটটি বাতিল করা হয়। আজ বিকাল ৫টা ৫ মিনিটে সৌদি আরবের উদ্দেশে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ছাড়ার কথা ছিল। 

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) শাকিল মেরাজ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

বিমানের মুখপাত্র শাকিল মেরাজ এ হজফ্লাইট বাতিলের জন্য সরাসরি হজ এজেন্সিগুলোকে দায়ী করেছেন।

তিনি বলেন, ‘আজ পর্যন্ত মোট ১১টি হজফ্লাইট যাত্রী না পাওয়ায় বাতিল করা হয়েছে। আমরা প্রতিদিন প্রতিটি এজেন্সিকে হজ আপডেট জানিয়ে দেই। একইসঙ্গে তাদের বার বার টিকিট নিশ্চিত করার কথা বলা হচ্ছে।  হজ এজেন্সিগুলো যথাসময়ে টিকিট না কেনায় একের পর এক ফ্লাইট বাতিল করতে হচ্ছে। অথচ এসব এজেন্সিকে বারবার তাগাদা দেয়া হচ্ছিল।’

এ ফ্লাইট বাতিলের কারণে এখন পর্যন্ত বিমানের ৪ হাজার ক্যাপাসিটি লস (যাত্রী পাঠাতে না পেরে আসন নষ্ট) হয়েছে বলে তথ্য দেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, ‘শনিবার থেকে ৭ আগস্ট পর্যন্ত জেদ্দা ও মদিনায় আরও ৬টি ফ্লাইট যাত্রী সংকটে বাতিলের সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে।’

এজেন্সিগুলো দ্রুত এগিয়ে না এলে সংশ্লিষ্ট হজযাত্রীরা বিপদে পড়বেন বলে আশঙ্কা প্রকাশ করছেন বিমানের এ মুখপাত্র।

এর আগে পর্যাপ্ত যাত্রী না পাওয়ায় গত ২৭ জুলাই দুটি, ৩১ জুলাই একটি, ১ আগস্ট দুটি, ৩ আগস্ট দুটি ও ৪ আগস্ট একটি হজ ফ্লাইট বাতিল ঘোষণা করেছিলেন বিমান বাংলাদেশ কর্তৃপক্ষ।

অর্থাৎ এ নিয়ে গত ২৭ জুলাই থেকে আজ শনিবার পর্যন্ত বিমানের ১১টি হজের বিশেষ ফ্লাইট বাতিল করা হল।

বিমান সূত্রে জানা গেছে, বিমান প্রতিদিনই ৫২৮টি হজ এজেন্সিকে ই-মেইলের মাধ্যমে কোনো ফ্লাইটে কত সিট খালি আছে, অবহিত করে দ্রুত টিকিট কেনার তাগিদ দিয়ে আসছে।

অর্ধশত হজ এজেন্সি এখনও আড়াই হাজার হজযাত্রীর অনুকূলে বাড়িভাড়া নিশ্চিত না করাসহ বিমানের টিকিট সংগ্রহ করেনি। এ কারণে রাষ্ট্রায়ত্ত এ সংস্থার প্রায় পাঁচ হাজার হজযাত্রীর টিকিট অবিক্রীত রয়েছে।

এ বছর বাংলাদেশ থেকে এক লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ হজযাত্রী পবিত্র হজ পালনে সৌদি আরব যাবেন।