আহত সাংবাদিকদের চিকিৎসা খরচ দেবে সরকার

  যুগান্তর রিপোর্ট ০৯ আগস্ট ২০১৮, ২১:৫০ | অনলাইন সংস্করণ

বিএফইউজে ও ডিইউজের সঙ্গে তথ্যমন্ত্রীর বৈঠক
বিএফইউজে ও ডিইউজের সঙ্গে তথ্যমন্ত্রীর বৈঠক। ছবি-সংগৃহীত

তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের সময় হামলায় আহত সাংবাদিকদের চিকিৎসার খরচ বহন করবে সরকার। পাশাপাশি যারা হামলা চালিয়েছে তাদের গ্রেফতার করে শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে।

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি মোল্লা জালাল ও মহাসচিব শাবান মাহমুদ এবং ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি আবু জাফর সূর্য ও সাধারণ সম্পাদক সোহেল হায়দার চৌধুরীর নেতৃত্বে সংগঠন দুটির নেতারা তথ্যমন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করেন। বৈঠকের পর সমাপনী বক্তব্যে তথ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, তথ্যসচিব আবদুল মালেক ছাড়াও তথ্য মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা সভায় উপস্থিত ছিলেন।

নিরাপদ সড়কের দাবিতে ঢাকার ধানমণ্ডিতে আন্দোলনকারীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের সময় কর্তব্যরত সাংবাদিকদের ধরে ধরে পেটায় হেলমেট পরা একদল যুবক। গত রোববার সায়েন্স ল্যাবরেটরি মোড়, ধানমণ্ডি ১ নম্বর ও ২ নম্বর সড়কে বেশ কয়েকজন আলোকচিত্র সাংবাদিক আহত হন।

বিএফইউজে নেতারা তথ্যমন্ত্রীকে জানান, শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মধ্যে পেশাগত দায়িত্বপালনের সময় ২৪ জন সাংবাদিক হামলার শিকার হন, এদের মধ্যে ১২ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গণমাধ্যমকর্মীদের ওপর দেশীয় অস্ত্র ও লাঠিসোঁটা নিয়ে হামলাকারীদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনতে সরকারকে ৭২ ঘণ্টার সময় বেঁধে দিয়েছেন সাংবাদিক ইউনিয়ন নেতারা। শনিবার সেই সময় শেষ হবে।

ভবিষ্যতে যেন গণমাধ্যমকর্মীদের ওপর এ ধরনের হামলা না হয়, তা নিশ্চিত করা হবে বলে সাংবাদিক ইউনিয়ন নেতাদের আশ্বস্ত করেন তথ্যমন্ত্রী।

ইনু বলেন, ‘সাংবাদিকদের ওপর যারা হামলা চালিয়েছে, তারা সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করে গণমাধ্যমের স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করতে চেয়েছে, এটা পরিকল্পিত চক্রান্ত। সাংবাদিকদের ওপর যারা হামলা করেছে তারা দুর্বৃত্ত, তাদের গ্রেফতারে সব ধরনের পদক্ষেপ নেয়া হবে।’

আলটিমেটাম অনুযায়ী শনিবারের মধ্যে দুর্বৃত্তদের গ্রেফতার করে সেই খবর সাংবাদিক নেতাদের দেয়ার চেষ্টা করবেন জানিয়ে ইনু বলেন, ‘আজই এ নিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেছি, উনি উদ্যোগও নিচ্ছেন।’

তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম বলেন, প্রধানমন্ত্রী সব সময় সাংবাদিকদের খোঁজখবর নিয়েছেন। আমাদের সরকার সংবাদমাধ্যম বান্ধব। আহত সাংবাদিকদের চিকিৎসার দায়িত্ব নিতে তথ্য মন্ত্রণালয়ে ইতিমধ্যে দাফতরিক চিঠি লিখেছি। আপনারা আস্থা রাখতে পারেন নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যেই হামলাকারীদের গ্রেফতার করা হবে। কোরবানির ঈদের আগেই মহার্ঘ ভাতা ঘোষণার লক্ষ্যে মন্ত্রণালয় কাজ করছে বলেও জানান তথ্য প্রতিমন্ত্রী।

বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী বলেন, আপনারা জানেন শেখ হাসিনা নেত্রী হিসেবে যেমন সাংবাদিকবান্ধব তেমনি প্রধানমন্ত্রী হিসেবেও। আমি মনে করি সাগর-রুনির হত্যার ঘটনায় ভিডিও ফুটেজ নেই তাই হয়তো তাদের হত্যার বিচার দেরি হচ্ছে। কিন্তু ছাত্রদের আন্দোলনের মাঝে যারা সাংবাদিকদের হত্যার উদ্দেশ্যে মারধর করেছে তাদের ভিডিও ফুটেজ ও ছবি সবার কাছে পরিষ্কার। ফলে তাদের গ্রেফতার করতে কোনো রকমের দেরি হওয়ার কথা নয়।

তিনি বলেন, তথ্য মন্ত্রণালয়কে অনুরোধ করব তারা যেন আহত সাংবাদিকদের চিকিৎসার সব দায়দায়িত্ব নেন এবং পেশাগত দায়িত্বপালন করতে গিয়ে তাদের মোবাইল, ক্যামেরা ও যেসব যন্ত্রপাতি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তা-ও কীভাবে সমাধান করা যায়, তার দায়িত্ব সাংবাদিকদের অভিভাবক মন্ত্রণালয় হিসেবে তথ্য মন্ত্রণালয়কে নিতে হবে।

বিএফইউজে সভাপতি মোল্লা জালাল বলেন, ‘আমরা আগামী শনিবার সারা দেশে ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন ও ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের উদ্যোগে আন্দোলনের ঘোষণা দিয়েছি। যদি সরকারের পক্ষ থেকে আহত সাংবাদিকদের চিকিৎসাভার ও দুর্বৃত্তদের গ্রেফতার না করেন, তাহলে দেশে অস্থিরতা তৈরি হবে। আর এর ফায়দা নেবে সরকারের বিরদ্ধে যারা ষড়যন্ত্র করছে তারা। ফলে তথ্য মন্ত্রণালয়ের সরাসরি হস্তক্ষেপে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে হামলাকারীদের গ্রেফতার করতে হবে।’

ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজে) সভাপতি আবু জাফর সূর্য বলেন, সাংবাদিকরা জানে তাদের অধিকার আদায়ে কিভাবে আন্দোলন করতে হয়। তথ্যমন্ত্রী তাৎক্ষণিক আহত সাংবাদিকদের দেখতে হাসপাতালে গেছেন এবং সার্বিক খোঁজখবর নিয়েছেন। আমরা আশা করি হামলাকারীদের দ্রুত গ্রেফতার করা হবে। তা না হলে সাধারণ সাংবাদিকদের অধিকার আদায়ে আমরা রাজপথে যেতে বাধ্য হব।

ঘটনাপ্রবাহ : বিমানবন্দর সড়কে দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যু

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter