নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলন

আরও এক শিক্ষার্থীর জামিন, লুমার জামিন শুনানি সোমবার

প্রকাশ : ২৬ আগস্ট ২০১৮, ২১:০৪ | অনলাইন সংস্করণ

  যুগান্তর রিপোর্ট

ফাইল ছবি

নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের ঘটনায় পৃথক চার মামলায় এক শিক্ষার্থী ও এক ক্ষুদ্র উদ্যোক্তার জামিন দিয়েছেন আদালত।

রোববার আইনজীবীর মাধ্যমে ওই দুজন জামিন আবেদন করেন। শুনানি শেষে ঢাকা চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ও সংশ্লিষ্ট আদালত তাদের জামিন আবেদন মঞ্জুর করেন।
 
ঢাকা চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সাইফুজ্জামান হিরো নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের ধানমণ্ডি থানার তিন মামলায় ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা বর্ণালী চৌধুরী লোপার জামিন মঞ্জুর করেন।

আর ঢাকা মেট্রোপলিন ম্যাজিস্ট্রেট সুব্রত ঘোষ শুভ রমনা থানার এক মামলায় ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থী তৌহিদুল ইসলাম তুষারের জামিন মঞ্জুর করেন।

এ আদালতই ওই একই মামলায় কোটা সংস্কার আন্দোলনের যুগ্ম আহ্বায়ক লুৎফুর নাহার লুমা ওরফে নীলা ওরফে লুমা সরকারের অধিকতর জামিন শুনানির জন্য সোমবার দিন ধার্য করেন।

একই আদালত নিরাপদক সড়ক চাই আন্দোলনের রমনা থানার পৃথক এক মামলায় দুই আসামির জামিন নাকচ করেন। জামিনপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীরা হলেনÑ মো. রাকিব হোসেন ও মো. হৃদয়।

এদিন তুষার ও লুমার জামিন শুনানি করেন আইনজীবী ড. জাহিদ ইকবাল, জ্যোতির্ময় বড়ুয়া, জায়েদুর রহমান প্রমুখ।

শুনানিতে তারা বলেন, এ মামলায় আসামিদের বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট কোনো অভিযোগে নেই। সন্দেহজনকভাবে এদের গ্রেফতার করা হয়েছে। আসামিরা সবাই ছাত্র। জামিন না পেলে তাদের শিক্ষাজীবন মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে। গুজব ছড়ানো তাদের কাজ নয়। তারা এগুলো করেনি।

শুনানি শেষে আদালত তুষারের জামিন মঞ্জুর করেন এবং লুমার অধিকতর জামিন শুনানির জন্য সোমবার দিন ধার্য করেন। আসামিপক্ষের আইনজীবী জায়েদুর রহমান যুগান্তরকে এসব তথ্য জানিয়েছেন।

আদালত সূত্র জানায়, নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনে ভাঙচুর, উসকানি ও পুলিশের কর্তব্যকাজে বাধা দেয়ার অভিযোগে রাজধানীর বিভিন্ন থানায় এ পর্যন্ত ৫১টি মামলা দায়ের করেছে পুলিশ।

এসব মামলায় গ্রেফতার ৯৯ জনের মধ্যে ৫৪ জনই শিক্ষার্থী। এদের মধ্যে ১৯ আগস্ট নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের পৃথক দশ মামলায় ৪২ জনের জামিন দেন আদালত। এর মধ্যে ৩৭ জন শিক্ষার্থী।

আর ২০ আগস্ট নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের পৃথক আট মামলায় ১৪ জনের জামিন দিয়েছেন আদালত। এর মধ্যে ১২ জনই শিক্ষার্থী। 

এছাড়া ২০ আগস্ট কোটা সংস্কার আন্দোনের পৃথক পাঁচ মামলায় ১৯ জন শিক্ষার্থীর জামিন দেন আদালত।

গত ২৯ জুলাই রাজধানীর ক্যান্টনমেন্ট এলাকায় শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থী বাসচাপায় নিহত হন। এরপর ঘাতক বাসচালকের শাস্তি এবং নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলন করেন শিক্ষার্থীরা।

ওই আন্দোলনের সময় ভাঙচুর, গুজব ও পুলিশের কর্তব্যকাজে বাধা দেয়ার অভিযোগে ওই ছাত্রদের গ্রেফতার করা হয়।