সৌদিতে বাংলাদেশি কিশোরীর মৃত্যু, এজেন্সি মালিক আটক
jugantor
সৌদিতে বাংলাদেশি কিশোরীর মৃত্যু, এজেন্সি মালিক আটক

  যুগান্তর রিপোর্ট  

১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৭:১৮:০৩  |  অনলাইন সংস্করণ

সৌদিতে বাংলাদেশি কিশোরীর মৃত্যু, এজেন্সি মালিক আটক

সৌদি আরবে বাংলাদেশি কিশোরী উম্মে কুলসুমের মৃত্যুর ঘটনায় ঢাকার একটি এজেন্সির মালিকসহ দুইজনকে আটক করেছে র‌্যাব। এমএইচ ট্রেডার্স ইন্টারন্যাশনাল নামের এজেন্সির মাধ্যমে কুলসুম সৌদিতে গৃহকর্মীর কাজে গিয়েছিলেন।

বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর ফকিরাপুলের ডিআইটি রোডে ওই এজেন্সিতে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।

র‌্যাবেরনির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ কুমার বসু গণমাধ্যমকে জানান, এমএইচ ট্রেডার্সের মাধ্যমে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর উপজেলার গোকর্ণ ইউনিয়নের নূরপুর গ্রামের শহিদুল ইসলামের ১৪ বছরের কিশোরী উম্মে কুলসুমের বয়স ২৬ বছর দেখিয়ে সৌদি আরবে পাঠানো হয়। সেখানে নির্যাতনের শিকার হয়ে গত ৯ আগস্ট স্থানীয় একটি হাসপাতালে কুলসুমের মৃত্যু হয়। ১১ সেপ্টেম্বর তার লাশ দেশে আনা হয়।

আটকদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেনর‌্যাবেরনির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।

কুলসুমের পরিবারের অভিযোগ, ১৭ মাস আগে স্থানীয় দালাল রাজ্জাক মিয়ার মাধ্যমে ৩০ হাজার টাকা খরচ করে মেসার্স এমএইচ ট্রেড ইন্টারন্যাশনালের মাধ্যমে কুলসুমকে গৃহকর্মীর কাজে সৌদি আরবে পাঠানো হয়। সেখানে যাওয়ার পর থেকেই কুলসুমের ওপর অমানুষিক নির্যাতন শুরু হয়।

সৌদিতে বাংলাদেশি কিশোরীর মৃত্যু, এজেন্সি মালিক আটক

 যুগান্তর রিপোর্ট 
১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৫:১৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
সৌদিতে বাংলাদেশি কিশোরীর মৃত্যু, এজেন্সি মালিক আটক
ছবি: সংগৃহীত

সৌদি আরবে বাংলাদেশি কিশোরী উম্মে কুলসুমের মৃত্যুর ঘটনায় ঢাকার একটি এজেন্সির মালিকসহ দুইজনকে আটক করেছে র‌্যাব। এমএইচ ট্রেডার্স ইন্টারন্যাশনাল নামের এজেন্সির মাধ্যমে কুলসুম সৌদিতে গৃহকর্মীর কাজে গিয়েছিলেন।

বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর ফকিরাপুলের ডিআইটি রোডে ওই এজেন্সিতে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।

র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ কুমার বসু গণমাধ্যমকে জানান, এমএইচ ট্রেডার্সের মাধ্যমে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর উপজেলার গোকর্ণ ইউনিয়নের নূরপুর গ্রামের শহিদুল ইসলামের ১৪ বছরের কিশোরী উম্মে কুলসুমের বয়স ২৬ বছর দেখিয়ে সৌদি আরবে পাঠানো হয়। সেখানে নির্যাতনের শিকার হয়ে গত ৯ আগস্ট স্থানীয় একটি হাসপাতালে কুলসুমের মৃত্যু হয়। ১১ সেপ্টেম্বর তার লাশ দেশে আনা হয়।

আটকদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।

কুলসুমের পরিবারের অভিযোগ, ১৭ মাস আগে স্থানীয় দালাল রাজ্জাক মিয়ার মাধ্যমে ৩০ হাজার টাকা খরচ করে মেসার্স এমএইচ ট্রেড ইন্টারন্যাশনালের মাধ্যমে কুলসুমকে গৃহকর্মীর কাজে সৌদি আরবে পাঠানো হয়। সেখানে যাওয়ার পর থেকেই কুলসুমের ওপর অমানুষিক নির্যাতন শুরু হয়।