এমসি কলেজে গণধর্ষণ: ৬ আসামির ডিএনএ নমুনা সংগ্রহ
jugantor
এমসি কলেজে গণধর্ষণ: ৬ আসামির ডিএনএ নমুনা সংগ্রহ

  যুগান্তর রিপোর্ট  

০১ অক্টোবর ২০২০, ১৭:৩৮:০০  |  অনলাইন সংস্করণ

সিলেট এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে দলবেঁধে তরুণীকে ধর্ষণের ঘটনায় ৬ আসামির ডিএনএ নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে বৃহস্পতিবার দুপুরে তাদের নমুনা সংগ্রহ করা হয়।

যাদের ডিএনএ নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে তারা হলেন- মামলার প্রধান আসামি সাইফুর রহমান, অর্জুন লস্কর, রবিউল ইসলাম, শাহ মাহবুবুর রহমান রনি, রাজন মিয়া এবং আইনুদ্দিন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে হাসপাতালের উপ-পরিচালক হিমাংশু লাল রায় বলেন, আসামিদের ডিএনএ নমুনার সঙ্গে ধর্ষণের শিকার ওই গৃহবধূর ডিএনএ মিলিয়ে দেখা হবে।

প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার এমসি কলেজে স্বামীর সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার হন ওই তরুণী। রাত সাড়ে ৮টার দিকে স্বামীর কাছ থেকে ওই তরুণীকে জোর করে তুলে নিয়ে ছাত্রাবাসে ধর্ষণ করে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এ সময় কলেজের সামনে তার স্বামীকে বেঁধে রাখা হয়।

এ ঘটনায় ভিকটিমের স্বামী বাদী হয়ে শাহপরান থানায় মামলা করেন। মামলায় ছাত্রলীগের ছয় নেতাকর্মীসহ অজ্ঞাত আরও তিনজনকে আসামি করা হয়।

মামলায় অভিযুক্তরা হলেন, এমসি কলেজ ছাত্রলীগ কর্মী সাইফুর রহমান, কলেজের ইংরেজি বিভাগের মাস্টার্সের ছাত্র শাহ মাহবুবুর রহমান রনি, মাহফুজুর রহমান মাছুম, অর্জুন লস্কর, বহিরাগত ছাত্রলীগ কর্মী রবিউল এবং তারেক আহমদ। মামলার অপর তিন আসামি অজ্ঞাত।

এমসি কলেজে গণধর্ষণ: ৬ আসামির ডিএনএ নমুনা সংগ্রহ

 যুগান্তর রিপোর্ট 
০১ অক্টোবর ২০২০, ০৫:৩৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সিলেট এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে দলবেঁধে তরুণীকে ধর্ষণের ঘটনায় ৬ আসামির ডিএনএ নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে বৃহস্পতিবার দুপুরে তাদের নমুনা সংগ্রহ করা হয়।

যাদের ডিএনএ নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে তারা হলেন- মামলার প্রধান আসামি সাইফুর রহমান, অর্জুন লস্কর, রবিউল ইসলাম, শাহ মাহবুবুর রহমান রনি, রাজন মিয়া এবং আইনুদ্দিন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে হাসপাতালের উপ-পরিচালক হিমাংশু লাল রায় বলেন, আসামিদের ডিএনএ নমুনার সঙ্গে ধর্ষণের শিকার ওই গৃহবধূর ডিএনএ মিলিয়ে দেখা হবে।

প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার এমসি কলেজে স্বামীর সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার হন ওই তরুণী। রাত সাড়ে ৮টার দিকে স্বামীর কাছ থেকে ওই তরুণীকে জোর করে তুলে নিয়ে ছাত্রাবাসে ধর্ষণ করে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এ সময় কলেজের সামনে তার স্বামীকে বেঁধে রাখা হয়।

এ ঘটনায় ভিকটিমের স্বামী বাদী হয়ে শাহপরান থানায় মামলা করেন। মামলায় ছাত্রলীগের ছয় নেতাকর্মীসহ অজ্ঞাত আরও তিনজনকে আসামি করা হয়।

মামলায় অভিযুক্তরা হলেন, এমসি কলেজ ছাত্রলীগ কর্মী সাইফুর রহমান, কলেজের ইংরেজি বিভাগের মাস্টার্সের ছাত্র শাহ মাহবুবুর রহমান রনি, মাহফুজুর রহমান মাছুম, অর্জুন লস্কর, বহিরাগত ছাত্রলীগ কর্মী রবিউল এবং তারেক আহমদ। মামলার অপর তিন আসামি অজ্ঞাত।

 

ঘটনাপ্রবাহ : সিলেট এমসি কলেজ হোস্টেলে গণধর্ষণ

আরও খবর