বাংলাদেশ থেকে সৌদি গেলে কোয়ারেন্টিন অব্যাহতির অনুরোধ
jugantor
বাংলাদেশ থেকে সৌদি গেলে কোয়ারেন্টিন অব্যাহতির অনুরোধ

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১২ জুন ২০২১, ২১:৫৪:৪১  |  অনলাইন সংস্করণ

বাংলাদেশ থেকে সৌদি গেলে কোয়ারেন্টিন অব্যাহতির অনুরোধ

বাংলাদেশের কর্মীরা দেশে কোয়ারেন্টিন শেষে সৌদি আরব গেলে সে দেশে কোয়ারেন্টিন থেকে অব্যাহতি প্রদানের অনুরোধ করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন।

শনিবার সৌদি আরবের পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রিন্স ফয়সাল বিন ফারহান আল সৌদের সঙ্গে ফোনালাপে এ অনুরোধ করেন তিনি।এক্ষেত্রে বাংলাদেশি কর্মীদের খরচ সাশ্রয় হবে বলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন উল্লে­খ করেন। বিষয়টি বিবেচনা করা হবে বলে সৌদি আরবের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আশ্বস্ত করেন।

পরে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উপপ্রধান তথ্য কর্মকর্তা মো. তৌহিদুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, বর্তমানে বাংলাদেশ থেকে সৌদি আরবে যাওয়ার পর সাত দিন বাধ্যতামূলক প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন করতে হয়। করোনা মহামারির মধ্যেও বাংলাদেশি শ্রমিকের সৌদি গমনে অনুমতি প্রদানের জন্য সে দেশের সরকারকে ধন্যবাদ জানান ড. মোমেন। এ সময় ফয়সাল বিন ফারহান আল সৌদ জানান, এ বছর করোনা মহামারির কারণে অন্য দেশ থেকে কোনো ব্যক্তি সৌদি আরবে গিয়ে হজ পালন করার সুযোগ পাবেন না। তবে সৌদিতে অবস্থানরত সৌদি নাগরিকের পাশাপাশি অন্য দেশের নাগরিকরাও হজ পালনের সুযোগ পাবেন।

ড. মোমেন বলেন, মিয়ানমারের বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে সে দেশে নিরাপদ মর্যাদাপূর্ণ প্রত্যাবাসনকে বাংলাদেশ সর্বোচ্চ গুরুত্ব আরোপ করে। এ বিষয়ে তিনি সৌদি আরবের সহযোগিতা কামনা করেন।

ড. মোমেন সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানালে তিনি তা গ্রহণ করেন এবং সুবিধাজনক সময়ে বাংলাদেশ সফর করবেন বলে জানান।

বাংলাদেশ থেকে সৌদি গেলে কোয়ারেন্টিন অব্যাহতির অনুরোধ

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১২ জুন ২০২১, ০৯:৫৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
বাংলাদেশ থেকে সৌদি গেলে কোয়ারেন্টিন অব্যাহতির অনুরোধ
ফাইল ছবি

বাংলাদেশের কর্মীরা দেশে কোয়ারেন্টিন শেষে সৌদি আরব গেলে সে দেশে কোয়ারেন্টিন থেকে অব্যাহতি প্রদানের অনুরোধ করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন। 

শনিবার সৌদি আরবের পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রিন্স ফয়সাল বিন ফারহান আল সৌদের সঙ্গে ফোনালাপে এ অনুরোধ করেন তিনি।এক্ষেত্রে বাংলাদেশি কর্মীদের খরচ সাশ্রয় হবে বলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন উল্লে­খ করেন। বিষয়টি বিবেচনা করা হবে বলে সৌদি আরবের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আশ্বস্ত করেন। 

পরে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উপপ্রধান তথ্য কর্মকর্তা মো. তৌহিদুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। 

বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, বর্তমানে বাংলাদেশ থেকে সৌদি আরবে যাওয়ার পর সাত দিন বাধ্যতামূলক প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন করতে হয়। করোনা মহামারির মধ্যেও বাংলাদেশি শ্রমিকের সৌদি গমনে অনুমতি প্রদানের জন্য সে দেশের সরকারকে ধন্যবাদ জানান ড. মোমেন। এ সময় ফয়সাল বিন ফারহান আল সৌদ জানান, এ বছর করোনা মহামারির কারণে অন্য দেশ থেকে কোনো ব্যক্তি সৌদি আরবে গিয়ে হজ পালন করার সুযোগ পাবেন না। তবে সৌদিতে অবস্থানরত সৌদি নাগরিকের পাশাপাশি অন্য দেশের নাগরিকরাও হজ পালনের সুযোগ পাবেন। 

ড. মোমেন বলেন, মিয়ানমারের বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে সে দেশে নিরাপদ মর্যাদাপূর্ণ প্রত্যাবাসনকে বাংলাদেশ সর্বোচ্চ গুরুত্ব আরোপ করে। এ বিষয়ে তিনি সৌদি আরবের সহযোগিতা কামনা করেন। 

ড. মোমেন সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানালে তিনি তা গ্রহণ করেন এবং সুবিধাজনক সময়ে বাংলাদেশ সফর করবেন বলে জানান।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস