হেফাজতের সম্মেলনে গিয়ে যা বললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
jugantor
হেফাজতের সম্মেলনে গিয়ে যা বললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

২৭ নভেম্বর ২০২১, ২০:৩৫:০৩  |  অনলাইন সংস্করণ

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, ‘নবী ও কুরআনকে অপবিত্র করলে আমার মনে কষ্ট লাগে, যেমন আপনাদের মনে লাগে।’

শনিবার বিকাল সাড়ে ৪টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের মিলনায়তনে ‘আল্লাহ, রাসূল, কুরআন-সুন্নাহ তথা ইসলাম অবমাননাকারীদের বিরুদ্ধে জাতীয় সংসদে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির আইন পাস করার দাবিতে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, যিনি (প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা) রাষ্ট্র পরিচালনা করছেন তিনি পাক্কা মুসলমান। তিনি তাহাজ্জুদ নামাজ পড়েন, কুরআন তিলাওয়াত করেন। তিনি দেশের ক্ষমতায় বসার আগে কুরআন-সুন্নাহর বিরুদ্ধে কোনো কাজ করবেন না বলে ঘোষণা দিয়েছেন। আজ পর্যন্ত তিনি কুরআন-সুন্নাহর বাইরে কোনো কাজ করেছেন বলে আমি মনে করি না। তিন আলেম-ওলামাদের প্রতি যথেষ্ট শ্রদ্ধা রাখেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আপনারা একটু আগে বলেছেন- হেফাজত অরাজনৈতিক প্রতিষ্ঠান। নির্বাচনে যায় না। রাজনীতিতেও যায় না। বাইরে থেকে দুষ্কৃতকারীরা এসে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করেছে। আপনারা ভুল করেছেন বা করে ফেলেছেন। যেমন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কথাই বলি। যে ঘটনা ঘটেছে। আপনারা আমাদের সঙ্গে কথা বলেছেন আমি এ ঘটনার আগেই সাবধান করেছিলাম। আমি বলেছিলাম আপনারা সামলাতে পারবেন না। সেখানে মাদ্রাসার ছাত্র দুইজন ছিল, বাকি সব ছিল বাইরের সাধারণ মানুষ। আমরা এ ঘটনাই বলতে চাই। আপনারা আধ্যাত্মিকলাইনে চর্চা করেন। কুরআন-সুন্নাহ নিয়ে চর্চা করেন, এটা একটা অরাজনৈতিক প্রতিষ্ঠান, তাহলে কেন আপনাদের মধ্যে অনুপ্রবেশ করে। সেখানে আপনাদের সাবধান হওয়া উচিত।

তিনি আরও বলেন, আমি মনেপ্রাণে বিশ্বাস করি- আল্লাহ রাব্বুল আলআমিনকে বিশ্বাস করি। আমি কুরআন-সুন্নাহকে মেনে চলতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। আমাদের নবীজির নামে বা কুরআনকে কেউ যদি অপবিত্র করার প্রচেষ্টা করে, আপনাদের হৃদয়ে যেমন কষ্ট লাগে, তেমনি আমার হৃদয়েও কষ্ট লাগে। এজন্যই আমি বলি, আমরা কারো বিশ্বাসের প্রতি অমর্যদা করি না এবং করতে দেব না। এটা আমাদের কথা। আমাদের আইনের কথা।

হেফাজতের কেন্দ্রীয় নেতারা সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।

হেফাজতের সম্মেলনে গিয়ে যা বললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
২৭ নভেম্বর ২০২১, ০৮:৩৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, ‘নবী ও কুরআনকে অপবিত্র করলে আমার মনে কষ্ট লাগে, যেমন আপনাদের মনে লাগে।’

শনিবার বিকাল সাড়ে ৪টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের মিলনায়তনে ‘আল্লাহ, রাসূল, কুরআন-সুন্নাহ তথা ইসলাম অবমাননাকারীদের বিরুদ্ধে জাতীয় সংসদে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির আইন পাস করার দাবিতে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, যিনি (প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা) রাষ্ট্র পরিচালনা করছেন তিনি পাক্কা মুসলমান। তিনি তাহাজ্জুদ নামাজ পড়েন, কুরআন তিলাওয়াত করেন। তিনি দেশের ক্ষমতায় বসার আগে কুরআন-সুন্নাহর বিরুদ্ধে কোনো কাজ করবেন না বলে ঘোষণা দিয়েছেন। আজ পর্যন্ত তিনি কুরআন-সুন্নাহর বাইরে কোনো কাজ করেছেন বলে আমি মনে করি না। তিন আলেম-ওলামাদের প্রতি যথেষ্ট শ্রদ্ধা রাখেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আপনারা একটু আগে বলেছেন- হেফাজত অরাজনৈতিক প্রতিষ্ঠান। নির্বাচনে যায় না। রাজনীতিতেও যায় না। বাইরে থেকে দুষ্কৃতকারীরা এসে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করেছে। আপনারা ভুল করেছেন বা করে ফেলেছেন। যেমন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কথাই বলি। যে ঘটনা ঘটেছে। আপনারা আমাদের সঙ্গে কথা বলেছেন আমি এ ঘটনার আগেই সাবধান করেছিলাম। আমি বলেছিলাম আপনারা সামলাতে পারবেন না। সেখানে মাদ্রাসার ছাত্র দুইজন ছিল, বাকি সব ছিল বাইরের সাধারণ মানুষ। আমরা এ ঘটনাই বলতে চাই। আপনারা আধ্যাত্মিক লাইনে চর্চা করেন। কুরআন-সুন্নাহ নিয়ে চর্চা করেন, এটা একটা অরাজনৈতিক প্রতিষ্ঠান, তাহলে কেন আপনাদের মধ্যে অনুপ্রবেশ করে। সেখানে আপনাদের সাবধান হওয়া উচিত।

তিনি আরও বলেন, আমি মনেপ্রাণে বিশ্বাস করি- আল্লাহ রাব্বুল আলআমিনকে বিশ্বাস করি। আমি কুরআন-সুন্নাহকে মেনে চলতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। আমাদের নবীজির নামে বা কুরআনকে কেউ যদি অপবিত্র করার প্রচেষ্টা করে, আপনাদের হৃদয়ে যেমন কষ্ট লাগে, তেমনি আমার হৃদয়েও কষ্ট লাগে। এজন্যই আমি বলি, আমরা কারো বিশ্বাসের প্রতি অমর্যদা করি না এবং করতে দেব না। এটা আমাদের কথা। আমাদের আইনের কথা।

হেফাজতের কেন্দ্রীয় নেতারা সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন