রাশিয়া থেকে জ্বালানি তেল আমদানির পথ খুঁজে বের করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর
jugantor
রাশিয়া থেকে জ্বালানি তেল আমদানির পথ খুঁজে বের করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১৬ আগস্ট ২০২২, ১৬:৩৯:৪৪  |  অনলাইন সংস্করণ

রাশিয়া থেকে জ্বালানি তেল আমদানির পথ খুঁজে বের করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

রাশিয়া থেকে জ্বালানি তেল কীভাবে আমদানি করা যায়- তার উপায় খুঁজে বের করার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

মঙ্গলবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় প্রধানমন্ত্রী এই নির্দেশনা দেন বলে জানিয়েছে পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান।

একনেক বৈঠক শেষে সংবাদ সম্মেলন পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ‘বৈঠকে দেশের সামগ্রিক পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনার একপর্যায়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন- ভারত যদি রাশিয়া থেকে তেল আমদানি করতে পারে, তাহলে আমরা কেন পারব না?রাশিয়ার কাছ থেকে তেল আমদানি করা গেলে বিনিময় মুদ্রা কী হবে- তা নিয়ে একটি সমাধান খুঁজে বের করতে প্রধানমন্ত্রী সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছেন।’

ইউক্রেনের সঙ্গে রাশিয়ার যুদ্ধ শুরুর পর বিশ্ববাজারে অপরিশোধিতি জ্বালানি তেলের দাম ব্যারেলে ১৩০ ডলার ছাড়িয়ে গেলেও এখন তা কিছুটা কমে এসেছে। কিন্তু তেল আমদানির খরচ বেড়ে যাওয়ায় ভর্তুকি কমাতে আর ডলার বাঁচাতে সরকার আগস্টের শুরুতে জ্বালানি তেলের দাম ৫০ শতাংশ পর্যন্ত বাড়িয়েছে।

তেল বাঁচাতে সরকার বিদ্যুৎ উৎপাদনও কমিয়ে দিয়েছে, পরিস্থিতি সামাল দিতে রুটি করে সব এলাকায় লোডশেডিং করতে হচ্ছে।

এদিকে গত মে মাসে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ জানিয়েছিলেন, বাংলাদেশে অপরিশোধিত জ্বালানি তেল বিক্রির প্রস্তাব দিয়েছে রশিয়া।তবে রাশিয়ার তেল বাংলাদেশের রিফাইনারিতে ‘পরিশোধনযোগ্য নয়’ বলে সে সময় জানিয়েছিলেন প্রতিমন্ত্রী।

রাশিয়া থেকে জ্বালানি তেল আমদানির পথ খুঁজে বের করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১৬ আগস্ট ২০২২, ০৪:৩৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
রাশিয়া থেকে জ্বালানি তেল আমদানির পথ খুঁজে বের করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর
ফাইল ছবি

রাশিয়া থেকে জ্বালানি তেল কীভাবে আমদানি করা যায়- তার উপায় খুঁজে বের করার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

মঙ্গলবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় প্রধানমন্ত্রী এই নির্দেশনা দেন বলে জানিয়েছে পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান।

একনেক বৈঠক শেষে সংবাদ সম্মেলন পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ‘বৈঠকে দেশের সামগ্রিক পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনার একপর্যায়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন- ভারত যদি রাশিয়া থেকে তেল আমদানি করতে পারে, তাহলে আমরা কেন পারব না?রাশিয়ার কাছ থেকে তেল আমদানি করা গেলে বিনিময় মুদ্রা কী হবে- তা নিয়ে একটি সমাধান খুঁজে বের করতে প্রধানমন্ত্রী সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছেন।’

ইউক্রেনের সঙ্গে রাশিয়ার যুদ্ধ শুরুর পর বিশ্ববাজারে অপরিশোধিতি জ্বালানি তেলের দাম ব্যারেলে ১৩০ ডলার ছাড়িয়ে গেলেও এখন তা কিছুটা কমে এসেছে। কিন্তু তেল আমদানির খরচ বেড়ে যাওয়ায় ভর্তুকি কমাতে আর ডলার বাঁচাতে সরকার আগস্টের শুরুতে জ্বালানি তেলের দাম ৫০ শতাংশ পর্যন্ত বাড়িয়েছে।

তেল বাঁচাতে সরকার বিদ্যুৎ উৎপাদনও কমিয়ে দিয়েছে, পরিস্থিতি সামাল দিতে রুটি করে সব এলাকায় লোডশেডিং করতে হচ্ছে।

এদিকে গত মে মাসে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ জানিয়েছিলেন, বাংলাদেশে অপরিশোধিত জ্বালানি তেল বিক্রির প্রস্তাব দিয়েছে রশিয়া।তবে রাশিয়ার তেল বাংলাদেশের রিফাইনারিতে ‘পরিশোধনযোগ্য নয়’ বলে সে সময় জানিয়েছিলেন প্রতিমন্ত্রী।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর