শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার নির্দেশনা চেয়ে রিট
jugantor
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার নির্দেশনা চেয়ে রিট

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

২১ জানুয়ারি ২০২১, ১৯:৪৯:৩৩  |  অনলাইন সংস্করণ

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার নির্দেশনা চেয়ে রিট

করোনা মহামারির উদ্ভূত পরিস্থিতির মধ্যে কোনো বিলম্ব ছাড়াই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার এ রিট করেন ভাওয়াল মির্জাপুর পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ মো. আবদুল কাইয়ুম সরকার।

রিটের বিষয়টি নিশ্চিত করে তার আইনজীবী ফারুক আলমগীর চৌধুরী বলেন, বিচারপতি মো. খসরুজ্জামান ও বিচারপতি মো. মাহমুদ হাসান তালুকদারের বেঞ্চে এ রিটের শুনানি হতে হবে।

শিক্ষা সচিব, শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, উপ-সচিব, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যানসহ সংশ্লিষ্ট ছয়জনকে বিবাদী করা হয়েছে। এর আগে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিতে সরকারকে গত ১১ জানুয়ারি আইনি নোটিশ দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু নোটিশের জবাব না পেয়ে এ রিট করা হয়।

ওই নোটিশে বলা হয়, কোভিড-১৯ এর কারণে ২০২০ সালের ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এখন পর্যন্ত বন্ধ রয়েছে। এরমধ্যে মোট ১১ বার স্কুল বন্ধের তারিখ বাড়ানো হয়েছে। সর্বশেষ ২০ ডিসেম্বর সময় বাড়ানো হয়। তখন ১৬ জানুয়ারি পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের মেয়াদ বাড়ানো হয়। তাই ১৬ জানুয়ারি আর মেয়াদ বৃদ্ধি না করতে নোটিশে অনুরোধ করা হয়েছে। না হলে শিক্ষার্থীরা অপূরণীয় ক্ষতির সম্মুখিন হবে।

এর মধ্যে সরকার ১৬ জানুয়ারির পরে ফের ৩০ জানুয়ারি পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটির মেয়াদ বাড়িয়েছে।

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার নির্দেশনা চেয়ে রিট

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
২১ জানুয়ারি ২০২১, ০৭:৪৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার নির্দেশনা চেয়ে রিট
ফাইল ছবি

করোনা মহামারির উদ্ভূত পরিস্থিতির মধ্যে কোনো বিলম্ব ছাড়াই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার এ রিট করেন ভাওয়াল মির্জাপুর পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ মো. আবদুল কাইয়ুম সরকার।

রিটের বিষয়টি নিশ্চিত করে তার আইনজীবী ফারুক আলমগীর চৌধুরী বলেন, বিচারপতি মো. খসরুজ্জামান ও বিচারপতি মো. মাহমুদ হাসান তালুকদারের বেঞ্চে এ রিটের শুনানি হতে হবে।

শিক্ষা সচিব, শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, উপ-সচিব, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যানসহ সংশ্লিষ্ট ছয়জনকে বিবাদী করা হয়েছে। এর আগে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিতে সরকারকে গত ১১ জানুয়ারি আইনি নোটিশ দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু নোটিশের জবাব না পেয়ে এ রিট করা হয়।

ওই নোটিশে বলা হয়, কোভিড-১৯ এর কারণে ২০২০ সালের ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এখন পর্যন্ত বন্ধ রয়েছে। এরমধ্যে মোট ১১ বার স্কুল বন্ধের তারিখ বাড়ানো হয়েছে। সর্বশেষ ২০ ডিসেম্বর সময় বাড়ানো হয়। তখন ১৬ জানুয়ারি পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের মেয়াদ বাড়ানো হয়। তাই ১৬ জানুয়ারি আর মেয়াদ বৃদ্ধি না করতে নোটিশে অনুরোধ করা হয়েছে। না হলে শিক্ষার্থীরা অপূরণীয় ক্ষতির সম্মুখিন হবে।

এর মধ্যে সরকার ১৬ জানুয়ারির পরে ফের ৩০ জানুয়ারি পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটির মেয়াদ বাড়িয়েছে।