নিজেকে নির্দোষ দাবি লুৎফুজ্জামান বাবরের
jugantor
নিজেকে নির্দোষ দাবি লুৎফুজ্জামান বাবরের

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২১:১৮:২৮  |  অনলাইন সংস্করণ

নিজেকে নির্দোষ দাবি লুৎফুজ্জামান বাবরের

বিএনপির নেতৃত্বাধীন চারদলীয় জোট সরকারের সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবর অবৈধ সম্পদ অর্জনের মামলায় আত্মপক্ষ শুনানিতে নিজেকে নির্দোষ দাবি করেছেন।

মঙ্গলবার ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৭ এর বিচারক মো. শহিদুল ইসলামের আদালতে নিজেকে নির্দোষ দাবি করে তিনি ন্যায়বিচার প্রার্থনা করেন।

এদিন শুনানি উপলক্ষে বাবরকে কারাগার থেকে আদালতে হাজির করা হয়। আদালত বাবরের বিরুদ্ধে দেওয়া সাত সাক্ষীর সাক্ষ্য পড়ে শোনান। এরপর আদালতের এক প্রশ্নের জবাবে বাবর নিজেকে নির্দোষ দাবি করেন। একইসঙ্গে কোনো সাফাই সাক্ষ্য দেবেন না বলে জানান। এরপর আদালত আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর যুক্তিতর্কের জন্য দিন ধার্য করেন।

২০০৭ সালের ২৮ মে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় যৌথবাহিনীর হাতে আটক হন বাবর। অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে ২০০৮ সালের ১৩ জানুয়ারি রাজধানীর রমনা থানায় তার বিরুদ্ধে মামলাটি করা হয়। দুদকের সহকারী পরিচালক মির্জা জাহিদুল আলম বাদী হয়ে মামলাটি করেন।

তদন্ত শেষে ওই বছরের ১৬ জুলাই দুদকের উপসহকারী পরিচালক রূপক কুমার সাহা আদালতে চার্জশিট (অভিযোগপত্র) দাখিল করেন। চার্জশিটে বাবরের বিরুদ্ধে সাত কোটি পাঁচ লাখ ৯১ হাজার ৮৯৬ টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ করা হয়। একই বছরের ১২ আগস্ট আসামির বিরুদ্ধে চার্জ গঠনের মাধ্যমে বিচার শুরুর আদেশ দেন আদালত। গত ১৯ সেপ্টেম্বর এ মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হয়।

নিজেকে নির্দোষ দাবি লুৎফুজ্জামান বাবরের

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:১৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
নিজেকে নির্দোষ দাবি লুৎফুজ্জামান বাবরের
ফাইল ছবি

বিএনপির নেতৃত্বাধীন চারদলীয় জোট সরকারের সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবর অবৈধ সম্পদ অর্জনের মামলায় আত্মপক্ষ শুনানিতে নিজেকে নির্দোষ দাবি করেছেন। 

মঙ্গলবার ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৭ এর বিচারক মো. শহিদুল ইসলামের আদালতে নিজেকে নির্দোষ দাবি করে তিনি ন্যায়বিচার প্রার্থনা করেন।

এদিন শুনানি উপলক্ষে বাবরকে কারাগার থেকে আদালতে হাজির করা হয়। আদালত বাবরের বিরুদ্ধে দেওয়া সাত সাক্ষীর সাক্ষ্য পড়ে শোনান। এরপর আদালতের এক প্রশ্নের জবাবে বাবর নিজেকে নির্দোষ দাবি করেন। একইসঙ্গে কোনো সাফাই সাক্ষ্য দেবেন না বলে জানান। এরপর আদালত আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর যুক্তিতর্কের জন্য দিন ধার্য করেন।

২০০৭ সালের ২৮ মে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় যৌথবাহিনীর হাতে আটক হন বাবর। অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে ২০০৮ সালের ১৩ জানুয়ারি রাজধানীর রমনা থানায় তার বিরুদ্ধে মামলাটি করা হয়। দুদকের সহকারী পরিচালক মির্জা জাহিদুল আলম বাদী হয়ে মামলাটি করেন। 

তদন্ত শেষে ওই বছরের ১৬ জুলাই দুদকের উপসহকারী পরিচালক রূপক কুমার সাহা আদালতে চার্জশিট (অভিযোগপত্র) দাখিল করেন। চার্জশিটে বাবরের বিরুদ্ধে সাত কোটি পাঁচ লাখ ৯১ হাজার ৮৯৬ টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ করা হয়। একই বছরের ১২ আগস্ট আসামির বিরুদ্ধে চার্জ গঠনের মাধ্যমে বিচার শুরুর আদেশ দেন আদালত। গত ১৯ সেপ্টেম্বর এ মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হয়।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন