তার বিদেশ যাত্রায় কেয়ামত পর্যন্ত কি নিষেধাজ্ঞা থাকবে, প্রশ্ন হাইকোর্টের
jugantor
তার বিদেশ যাত্রায় কেয়ামত পর্যন্ত কি নিষেধাজ্ঞা থাকবে, প্রশ্ন হাইকোর্টের

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ১৭:০১:০৭  |  অনলাইন সংস্করণ

‘ক্ষমতা থাকলেই ক্ষমতার অপব্যবহার করবেন না। অযথা ক্ষমতা দেখাবেন না।একজন মানুষকে ২০১৯ সালে নোটিশ দিলেন, কিন্তু এখনো নিষ্পত্তি করলেন না। আবার বিদেশ যাত্রায় নিষেধাজ্ঞা দিলেন। তার বিদেশ যাত্রায় কেয়ামত পর্যন্ত কি নিষেধাজ্ঞা থাকবে?’

রোববার বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ দুর্নীতি দমন কমিশনকে (দুদক) উদ্দেশ করে এসব মন্তব্য করেন।

এরপর আদালত আফতাব অটো মোবাইল লিমিটেডের কো-অপারেটিভ ডিরেক্টর মো. মামুন খানের বিদেশ যাত্রায় নিষেধাজ্ঞা কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন।

আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট মো. জয়নাল আবেদীন ও অ্যাডভোকেট সাঈদা ইয়াসমিন।

পরে আইনজীবী জয়নাল আবেদীন গণমাধ্যমকে বলেন, ২০১৯ সালের মার্চ মাসে আফতাব অটো মোবাইল লিমিটেডের কো-অপারেটিভ ডিরেক্টর মো. মামুন খানের বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে নোটিশ দেয় দুদক। পরে তাকে দুদক কার্যালয়ে হাজিরও হতে হয়।পরবর্তীতে ২০১৯ সালের ৭ সেপ্টেম্বর তার বিদেশযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা দিয়ে ইমিগ্রেশন পুলিশকে চিঠি দেয় দুদক।

জয়নাল আবেদীন জানান, দুদকের ওই চিঠির বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে গত আগস্ট মাসে উচ্চ আদালতে রিট করেন মামুন।

তার বিদেশ যাত্রায় কেয়ামত পর্যন্ত কি নিষেধাজ্ঞা থাকবে, প্রশ্ন হাইকোর্টের

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০৫:০১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

‘ক্ষমতা থাকলেই ক্ষমতার অপব্যবহার করবেন না। অযথা ক্ষমতা দেখাবেন না।একজন মানুষকে ২০১৯ সালে নোটিশ দিলেন, কিন্তু এখনো নিষ্পত্তি করলেন না। আবার বিদেশ যাত্রায় নিষেধাজ্ঞা দিলেন। তার বিদেশ যাত্রায় কেয়ামত পর্যন্ত কি নিষেধাজ্ঞা থাকবে?’

রোববার বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ দুর্নীতি দমন কমিশনকে (দুদক) উদ্দেশ করে এসব মন্তব্য করেন। 

এরপর আদালত আফতাব অটো মোবাইল লিমিটেডের কো-অপারেটিভ ডিরেক্টর মো. মামুন খানের বিদেশ যাত্রায় নিষেধাজ্ঞা কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন।

আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট মো. জয়নাল আবেদীন ও অ্যাডভোকেট সাঈদা ইয়াসমিন।

পরে আইনজীবী জয়নাল আবেদীন গণমাধ্যমকে বলেন, ২০১৯ সালের মার্চ মাসে আফতাব অটো মোবাইল লিমিটেডের কো-অপারেটিভ ডিরেক্টর মো. মামুন খানের বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে নোটিশ দেয় দুদক। পরে তাকে দুদক কার্যালয়ে হাজিরও হতে হয়।পরবর্তীতে ২০১৯ সালের ৭ সেপ্টেম্বর তার বিদেশযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা দিয়ে ইমিগ্রেশন পুলিশকে চিঠি দেয় দুদক। 

জয়নাল আবেদীন জানান, দুদকের ওই চিঠির বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে গত আগস্ট মাসে উচ্চ আদালতে রিট করেন মামুন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন