শ্বশুরের মামলায় চূড়ান্ত প্রতিবেদন, জামিন হয়নি বাবুল আকতারের
jugantor
শ্বশুরের মামলায় চূড়ান্ত প্রতিবেদন, জামিন হয়নি বাবুল আকতারের

  চট্টগ্রাম ব্যুরো  

২৫ জানুয়ারি ২০২২, ২২:০৪:০৮  |  অনলাইন সংস্করণ

শ্বশুরের মামলায় চূড়ান্ত প্রতিবেদন, জামিন হয়নি বাবুল আকতারের

স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতু হত্যায় নিজের করা মামলায় জামিন মেলেনি সাবেক এসপি বাবুল আকতারের। চট্টগ্রাম মহানগর দায়রা জজ আদালতে মঙ্গলবার জামিন আবেদন জানালে আদালত তা নামঞ্জুর করেন। একই ঘটনায় বাবুল আকতারের শ্বশুরের করা মামলাটির চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করেছে পিবিআই।

একই ঘটনায় দুই মামলা চলতে পারে না- তাই শ্বশুরের করা মামলাটির ডকেট বাবুল আকতারের করা মামলার ডকেটের সঙ্গে একীভূত করার আবেদন জানানো হয়। জিআরওর মাধ্যমে আদালতে এ আবেদন জানান মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পিবিআইর পরিদর্শক ওমর ফারুক।

তিনি মঙ্গলবার যুগান্তরকে বলেন, মিতু হত্যার ঘটনায় একটি মামলাই (বাবুল আকতারের করা মামলাটি) চলবে। যদিও বাবুল আকতার স্ত্রী হত্যার সঙ্গে জড়িত থাকার বিষয়টি প্রাথমিকভাবে প্রমাণিত হয়েছে। তাই ইতোমধ্যে ওই মামলায় তাকে বাদী থেকে আসামি করে আদালতের মাধ্যমে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে।

২০১৬ সালের ৫ জুন নগরীর পাঁচলাইশ থানাধীন জিইসি মোড় এলাকায় মাহমুদা খানম মিতুকে প্রকাশ্যে ছুরিকাঘাত ও গুলি করে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় পরদিন স্বামী বাবুল আকতার তিন অজ্ঞাত ব্যক্তিকে আসামি করে পাঁচলাইশ থানায় হত্যা মামলা করেন। মামলাটি প্রথমে তদন্ত করে সিএমপির ডিবি পুলিশ। পরে এ মামলার তদন্তভার পায় পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। সংস্থাটির তদন্তে উঠে আসে স্বামী বাবুল আকতারই মিতুকে হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী।

এ ঘটনায় গত বছরের ১২ মে মিতুর বাবা মোশাররফ হোসেন বাদী হয়ে বাবুল আকতারকে প্রধান আসামি করে পাঁচলাইশ থানায় আরেকটি হত্যা মামলা করেন। ওই মামলায় বাবুল আকতারকে গ্রেফতার দেখানো হয়।

অন্যদিকে বাবুল আকতারের করা মামলাটিতে এর আগে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দেওয়া হলে আদালতে এর বিরুদ্ধে নারাজি আবেদন দাখিল করেন বাবুল আকতার। আদালত তার সেই নারাজি আবেদন খারিজ করে দেন। একইসঙ্গে নিজের মামলায় আসামি হওয়ার পর বাবুল আকতার ওই মামলায় জামিন আবেদন করেন।

চট্টগ্রাম মহানগর দায়রা জজ শেখ আশফাকুর রহমানের আদালতে মঙ্গলবার জামিন আবেদন শুনানি হয়। শুনানি শেষে আদালত বাবুল আকতারের জামিন নামঞ্জুর করেন।

চট্টগ্রাম মহানগর পিপি মো. ফখরুদ্দিন চৌধুরী যুগান্তরকে বলেন, স্ত্রী মিতু হত্যা মামলার বাদী বাবুল আকতার হলেও এই ঘটনার সঙ্গে তার নিজের জড়িত থাকার প্রমাণ পায় তদন্তকারী সংস্থা পিবিআই। তাই তাকে (বাবুল আকতারকে) বাদী থেকে আসামি করা হয়। আসামি হিসাবে তাই মঙ্গলবার আদালতে জামিন আবেদন করেছিলেন বাবুল আকতার। শুনানি শেষে আদালত তার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেন। আদালতের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী মিতু হত্যা মামলায় এখন থেকে বাবুল আকতারের করা সেই মামলাটিই চলবে।

শ্বশুরের মামলায় চূড়ান্ত প্রতিবেদন, জামিন হয়নি বাবুল আকতারের

 চট্টগ্রাম ব্যুরো 
২৫ জানুয়ারি ২০২২, ১০:০৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
শ্বশুরের মামলায় চূড়ান্ত প্রতিবেদন, জামিন হয়নি বাবুল আকতারের
ডিবি পুলিশের বেষ্টনীতে বাবুল আকতার, ইনসেটে স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতু। ফাইল ছবি

স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতু হত্যায় নিজের করা মামলায় জামিন মেলেনি সাবেক এসপি বাবুল আকতারের। চট্টগ্রাম মহানগর দায়রা জজ আদালতে মঙ্গলবার জামিন আবেদন জানালে আদালত তা নামঞ্জুর করেন। একই ঘটনায় বাবুল আকতারের শ্বশুরের করা মামলাটির চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করেছে পিবিআই। 

একই ঘটনায় দুই মামলা চলতে পারে না- তাই শ্বশুরের করা মামলাটির ডকেট বাবুল আকতারের করা মামলার ডকেটের সঙ্গে একীভূত করার আবেদন জানানো হয়। জিআরওর মাধ্যমে আদালতে এ আবেদন জানান মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পিবিআইর পরিদর্শক ওমর ফারুক।

তিনি মঙ্গলবার যুগান্তরকে বলেন, মিতু হত্যার ঘটনায় একটি মামলাই (বাবুল আকতারের করা মামলাটি) চলবে। যদিও বাবুল আকতার স্ত্রী হত্যার সঙ্গে জড়িত থাকার বিষয়টি প্রাথমিকভাবে প্রমাণিত হয়েছে। তাই ইতোমধ্যে ওই মামলায় তাকে বাদী থেকে আসামি করে আদালতের মাধ্যমে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে।

২০১৬ সালের ৫ জুন নগরীর পাঁচলাইশ থানাধীন জিইসি মোড় এলাকায় মাহমুদা খানম মিতুকে প্রকাশ্যে ছুরিকাঘাত ও গুলি করে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় পরদিন স্বামী বাবুল আকতার তিন অজ্ঞাত ব্যক্তিকে আসামি করে পাঁচলাইশ থানায় হত্যা মামলা করেন। মামলাটি প্রথমে তদন্ত করে সিএমপির ডিবি পুলিশ। পরে এ মামলার তদন্তভার পায় পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। সংস্থাটির তদন্তে উঠে আসে স্বামী বাবুল আকতারই মিতুকে হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী। 

এ ঘটনায় গত বছরের ১২ মে মিতুর বাবা মোশাররফ হোসেন বাদী হয়ে বাবুল আকতারকে প্রধান আসামি করে পাঁচলাইশ থানায় আরেকটি হত্যা মামলা করেন। ওই মামলায় বাবুল আকতারকে গ্রেফতার দেখানো হয়। 

অন্যদিকে বাবুল আকতারের করা মামলাটিতে এর আগে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দেওয়া হলে আদালতে এর বিরুদ্ধে নারাজি আবেদন দাখিল করেন বাবুল আকতার। আদালত তার সেই নারাজি আবেদন খারিজ করে দেন। একইসঙ্গে নিজের মামলায় আসামি হওয়ার পর বাবুল আকতার ওই মামলায় জামিন আবেদন করেন। 

চট্টগ্রাম মহানগর দায়রা জজ শেখ আশফাকুর রহমানের আদালতে মঙ্গলবার জামিন আবেদন শুনানি হয়। শুনানি শেষে আদালত বাবুল আকতারের জামিন নামঞ্জুর করেন।  

চট্টগ্রাম মহানগর পিপি মো. ফখরুদ্দিন চৌধুরী যুগান্তরকে বলেন, স্ত্রী  মিতু হত্যা মামলার বাদী বাবুল আকতার হলেও এই ঘটনার সঙ্গে তার নিজের জড়িত থাকার প্রমাণ পায় তদন্তকারী সংস্থা পিবিআই। তাই তাকে (বাবুল আকতারকে) বাদী থেকে আসামি করা হয়। আসামি হিসাবে তাই মঙ্গলবার আদালতে  জামিন আবেদন করেছিলেন বাবুল আকতার। শুনানি শেষে আদালত তার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেন। আদালতের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী মিতু হত্যা মামলায় এখন থেকে বাবুল আকতারের করা সেই মামলাটিই চলবে। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন