সম্রাটের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানি পেছাল
jugantor
সম্রাটের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানি পেছাল

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

২৭ নভেম্বর ২০২২, ১৮:০৪:৪২  |  অনলাইন সংস্করণ

রমনা থানার অস্ত্র ও মাদক আইনের মামলায় যুবলীগ নেতা ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাটের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানি পিছিয়েছে।

রোববার সম্রাটের আইনজীবীর সময়ের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত তা মঞ্জুর করেন।

এদিন অস্ত্র মামলায় অভিযোগ গঠনের শুনানি ছিল ঢাকার প্রথম অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ ফায়সাল আতিক বিন কাদেরের আদালতে। আর মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের মামলার অভিযোগ গঠনের শুনানির দিনধার্য ছিল ঢাকার সপ্তম অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ তেহসিন ইফতেখারের আদালতে।

দুই মামলায় ঢাকার দুই আদালতে হাজিরা দেন সম্রাট। তার আইনজীবী আফরোজা শাহনাজ পারভীন হিরা শুনানি পেছানোর আবেদন করেন। পরে আদালত তা মঞ্জুর করেন।

২০১৯ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর ঢাকার মতিঝিলের ক্লাবপাড়ায় র‌্যাবের ক্যাসিনোবিরোধী অভিযানের শুরুর পর ৬ অক্টোবর ভোর ৫টার দিকে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার আলকরা ইউনিয়নের কুঞ্জুশ্রীপুর গ্রাম থেকে সম্রাট ও তার সহযোগী আরমানকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। ওই সময় আরমান মাদকাসক্ত থাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত তাকে ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেন।

এরপর সম্রাটকে নিয়ে তার কাকরাইল কার্যালয়ে অভিযান চালানো হয়। অভিযানে অস্ত্র ও মাদকের পাশাপাশি অস্ট্রেলিয়ান ক্যাঙ্গারুর দুটি চামড়া উদ্ধার করা হয়। আর অস্ট্রেলিয়ান ক্যাঙ্গারুর চামড়া উদ্ধারের ঘটনায় ভ্রাম্যমাণ আদালত তাকে ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেন। মাদক ও অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনায় সম্রাটের বিরুদ্ধে দুটি মামলা করা হয়।

আদালত সূত্র জানায়, ২০২০ সালের ৬ নভেম্বর অস্ত্র আইনের মামলায় ও গত বছরের ৯ ডিসেম্বর মাদক আইনের মামলায় সম্রাটের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে র‌্যাব।

সম্রাটের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানি পেছাল

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
২৭ নভেম্বর ২০২২, ০৬:০৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রমনা থানার অস্ত্র ও মাদক আইনের মামলায় যুবলীগ নেতা ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাটের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের শুনানি পিছিয়েছে।

রোববার সম্রাটের আইনজীবীর সময়ের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত তা মঞ্জুর করেন।

এদিন অস্ত্র মামলায় অভিযোগ গঠনের শুনানি ছিল ঢাকার প্রথম অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ ফায়সাল আতিক বিন কাদেরের আদালতে। আর মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের মামলার অভিযোগ গঠনের শুনানির দিনধার্য ছিল ঢাকার সপ্তম অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ তেহসিন ইফতেখারের আদালতে।

দুই মামলায় ঢাকার দুই আদালতে হাজিরা দেন সম্রাট। তার আইনজীবী আফরোজা শাহনাজ পারভীন হিরা শুনানি পেছানোর আবেদন করেন। পরে আদালত তা মঞ্জুর করেন।

২০১৯ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর ঢাকার মতিঝিলের ক্লাবপাড়ায় র‌্যাবের ক্যাসিনোবিরোধী অভিযানের শুরুর পর ৬ অক্টোবর ভোর ৫টার দিকে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার আলকরা ইউনিয়নের কুঞ্জুশ্রীপুর গ্রাম থেকে সম্রাট ও তার সহযোগী আরমানকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। ওই সময় আরমান মাদকাসক্ত থাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত তাকে ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেন। 

এরপর সম্রাটকে নিয়ে তার কাকরাইল কার্যালয়ে অভিযান চালানো হয়। অভিযানে অস্ত্র ও মাদকের পাশাপাশি অস্ট্রেলিয়ান ক্যাঙ্গারুর দুটি চামড়া উদ্ধার করা হয়। আর অস্ট্রেলিয়ান ক্যাঙ্গারুর চামড়া উদ্ধারের ঘটনায় ভ্রাম্যমাণ আদালত তাকে ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেন। মাদক ও অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনায় সম্রাটের বিরুদ্ধে দুটি মামলা করা হয়। 

আদালত সূত্র জানায়, ২০২০ সালের ৬ নভেম্বর অস্ত্র আইনের মামলায় ও গত বছরের ৯ ডিসেম্বর মাদক আইনের মামলায় সম্রাটের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে র‌্যাব।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর