জঙ্গি ছিনতাই: ১০ আসামি ফের রিমান্ডে
jugantor
জঙ্গি ছিনতাই: ১০ আসামি ফের রিমান্ডে

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

০১ ডিসেম্বর ২০২২, ১৮:৩১:১২  |  অনলাইন সংস্করণ

ঢাকার আদালত প্রাঙ্গণ থেকে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত দুই জঙ্গিকে ছিনিয়ে নেওয়ার ঘটনায় পুলিশের দায়ের করা মামলায় ১০ আসামিকে আরও পাঁচ দিন করে রিমান্ডে পাঠিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) আদালতের হাকিম শফিউদ্দিন এ আদেশ দেন।

দশ দিনের রিমান্ড শেষে ১০ আসামিকে এদিন আদালতে হাজির করে তাদের আরও পাঁচ দিন করে রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করে পুলিশ। উভয়পক্ষের শুনানি নিয়ে আদালত ওই রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

রিমান্ডপ্রাপ্ত ১০ আসামি হলেন- শাহীন আলম ওরফে কামাল, শাহ আলম ওরফে সালাউদ্দিন, বিএম মজিবুর রহমান, সুমন হোসেন পাটোয়ারী, আরাফাত রহমান, খাইরুল ইসলাম, মোজাম্মেল হোসেন, শেখ আবদুল্লাহ, আবদুর সবুর ও রশিদ উন্নবী ভূঁইয়া।

এছাড়া মামলার ১৩ নম্বর আসামি ঈদি আমিন ২৭ নভেম্বর আদালতে আইনজীবীর মাধ্যমে আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করেন। পুলিশের পক্ষ থেকে তার ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদন জানানো হয়। উভয়পক্ষের শুনানি নিয়ে আদালত তার চার দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এছাড়াও ঈদি আমিনের তিন আশ্রয়দাতাকে রিমান্ডে পাঠানো হয়েছে।
এরা হলেন- খোতেজা আক্তার লিপি, নাসির মিয়া ও তানভীর হোসেন। শুনানি শেষে ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট শাকিল আহম্মদ তাদের তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

উল্লেখ্য, গত ২০ নভেম্বর দুপুর ১২টার দিকে ঢাকার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত প্রাঙ্গণ থেকে পুলিশের চোখে-মুখে পিপার স্প্রে করে প্রকাশক দীপন হত্যা মামলার মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত দুই আসামি সুনামগঞ্জের ছাতকের মইনুল হাসান শামীম ও লালমনিরহাটের আদিতমারীর আবু ছিদ্দিক সোহেলকে ছিনতাই করে নিয়ে যায় তাদের সহযোগী জঙ্গিরা।

এ ঘটনায় দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। পলাতক দুই জঙ্গিকে ধরিয়ে দিলে ১০ লাখ করে ২০ লাখ টাকা পুরস্কার ঘোষণা করেছে পুলিশ। সারা দেশে জারি করা হয়েছে ‘রেড অ্যালার্ট’। দুই জঙ্গিকে ছিনিয়ে নেওয়ার ঘটনায় কোতোয়ালি থানায় একটি মামলাও করেছে পুলিশ। যেই মামলায় ওই ১০ আসামিকে দ্বিতীয় দফায় রিমান্ডে নেওয়া হচ্ছে।

জঙ্গি ছিনতাই: ১০ আসামি ফের রিমান্ডে

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
০১ ডিসেম্বর ২০২২, ০৬:৩১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ঢাকার আদালত প্রাঙ্গণ থেকে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত দুই জঙ্গিকে ছিনিয়ে নেওয়ার ঘটনায় পুলিশের দায়ের করা মামলায় ১০ আসামিকে আরও পাঁচ দিন করে রিমান্ডে পাঠিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) আদালতের হাকিম শফিউদ্দিন এ আদেশ দেন। 

দশ দিনের রিমান্ড শেষে ১০ আসামিকে এদিন আদালতে হাজির করে তাদের আরও পাঁচ দিন করে রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করে পুলিশ। উভয়পক্ষের শুনানি নিয়ে আদালত ওই রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

রিমান্ডপ্রাপ্ত ১০ আসামি হলেন- শাহীন আলম ওরফে কামাল, শাহ আলম ওরফে সালাউদ্দিন, বিএম মজিবুর রহমান, সুমন হোসেন পাটোয়ারী, আরাফাত রহমান, খাইরুল ইসলাম, মোজাম্মেল হোসেন, শেখ আবদুল্লাহ, আবদুর সবুর ও রশিদ উন্নবী ভূঁইয়া।

এছাড়া মামলার ১৩ নম্বর আসামি ঈদি আমিন ২৭ নভেম্বর আদালতে আইনজীবীর মাধ্যমে আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করেন। পুলিশের পক্ষ থেকে তার ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদন জানানো হয়। উভয়পক্ষের শুনানি নিয়ে আদালত তার চার দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এছাড়াও ঈদি আমিনের তিন আশ্রয়দাতাকে রিমান্ডে পাঠানো হয়েছে।
এরা হলেন- খোতেজা আক্তার লিপি, নাসির মিয়া ও তানভীর হোসেন। শুনানি শেষে ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট শাকিল আহম্মদ তাদের তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

উল্লেখ্য, গত ২০ নভেম্বর দুপুর ১২টার দিকে ঢাকার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত প্রাঙ্গণ থেকে পুলিশের চোখে-মুখে পিপার স্প্রে করে প্রকাশক দীপন হত্যা মামলার মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত দুই আসামি সুনামগঞ্জের ছাতকের মইনুল হাসান শামীম ও লালমনিরহাটের আদিতমারীর আবু ছিদ্দিক সোহেলকে ছিনতাই করে নিয়ে যায় তাদের সহযোগী জঙ্গিরা।

এ ঘটনায় দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। পলাতক দুই জঙ্গিকে ধরিয়ে দিলে ১০ লাখ করে ২০ লাখ টাকা পুরস্কার ঘোষণা করেছে পুলিশ। সারা দেশে জারি করা হয়েছে ‘রেড অ্যালার্ট’। দুই জঙ্গিকে ছিনিয়ে নেওয়ার ঘটনায় কোতোয়ালি থানায় একটি মামলাও করেছে পুলিশ। যেই মামলায় ওই ১০ আসামিকে দ্বিতীয় দফায় রিমান্ডে নেওয়া হচ্ছে।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন