ধর্ষণবিরোধী বিক্ষোভে মতিঝিলের শাপলা চত্বর অবরোধ
jugantor
ধর্ষণবিরোধী বিক্ষোভে মতিঝিলের শাপলা চত্বর অবরোধ

  যুগান্তর রিপোর্ট  

১১ অক্টোবর ২০২০, ১৬:৪৮:৪৭  |  অনলাইন সংস্করণ

সম্প্রতি দেশে অব্যাহত ধর্ষণ ও যৌন নিপীড়নের ঘটনায় দোষীদের বিচারের দাবিতে রাজধানীর মতিঝিলের শাপলা চত্বরে সড়ক অবরোধ করেছে শিক্ষার্থীরা।

রোববার দুপুর দেড়টা থেকে একদল শিক্ষার্থী সড়ক অবরোধ করে। এতে মতিঝিল শাপলা চত্বর হয়ে সব দিকেই যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে।

মতিঝিল থানার ওসি মনির হোসেন মোল্লা বলেন, ধর্ষকদের বিচারের দাবিতে মতিঝিল আইডিয়াল কলেজ ও মতিঝিল বয়েজ কলেজের কয়েকশ শিক্ষার্থী সড়কে নেমে অবরোধ করে রেখেছে। তারা ‘ধর্ষণবিরোধী আন্দোলন’ ব্যানার নিয়ে বিক্ষোভ করছে।

‘আমার সোনার বাংলায় ধর্ষকদের ঠাঁই নাই’, ‘জেগেছে রে জেগেছে ছাত্র সমাজ জেগেছে’, ‘ধর্ষকদের বিরুদ্ধে লড়তে হবে একসঙ্গে’, ‘প্রীতিলতার বাংলায় ধর্ষকদের ঠাঁই নাই’- এমন স্লোগান দিয়ে বিক্ষোভ করছেন এসব শিক্ষার্থীরা।

সম্প্রতি সিলেটের এমসি কলেজ, নোয়াখালীর বেগমগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় ধর্ষণের ঘটনায় প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে সর্বত্রয়। শিক্ষার্থী, সাধারণ জনগণ, দেশের বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন এর বিরুদ্ধে ফুঁসে উঠেছে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও চলছে তীব্র প্রতিবাদ। ধর্ষণের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড করার তীব্র দাবি উঠেছে সাধারণ জনগণের পক্ষ থেকে। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ, বিরোধী দল বিএনপিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল থেকেও জনগণের এই দাবির পক্ষে সমর্থন জানানো হয়েছে।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরও ধর্ষণের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড করার দাবিতে সমর্থন জানিয়েছেন। গত ৭ অক্টোবর এক অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, এদের ছোটখাটো লঘু দণ্ড দিয়ে লাভ নেই। সর্বোচ্চ বিচারের যে দাবি উঠেছে, আমার মনে হয় এটা অযৌক্তিক নয়। এসব অপরাধীদের বিরুদ্ধে সব রাজনৈতিক সামাজিক সংগঠনকে আপসহীন মনোভাব নিয়ে এগিয়ে আসতে হবে।

এ অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে সরকার ধর্ষণ অপরাধের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

ধর্ষণবিরোধী বিক্ষোভে মতিঝিলের শাপলা চত্বর অবরোধ

 যুগান্তর রিপোর্ট 
১১ অক্টোবর ২০২০, ০৪:৪৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সম্প্রতি দেশে অব্যাহত ধর্ষণ ও যৌন নিপীড়নের ঘটনায় দোষীদের বিচারের দাবিতে রাজধানীর মতিঝিলের শাপলা চত্বরে সড়ক অবরোধ করেছে শিক্ষার্থীরা।

রোববার দুপুর দেড়টা থেকে একদল শিক্ষার্থী সড়ক অবরোধ করে।  এতে মতিঝিল শাপলা চত্বর হয়ে সব দিকেই যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে।

মতিঝিল থানার ওসি মনির হোসেন মোল্লা বলেন, ধর্ষকদের বিচারের দাবিতে মতিঝিল আইডিয়াল কলেজ ও মতিঝিল বয়েজ কলেজের কয়েকশ শিক্ষার্থী সড়কে নেমে অবরোধ করে রেখেছে।  তারা ‘ধর্ষণবিরোধী আন্দোলন’ ব্যানার নিয়ে বিক্ষোভ করছে।

‘আমার সোনার বাংলায় ধর্ষকদের ঠাঁই নাই’, ‘জেগেছে রে জেগেছে ছাত্র সমাজ জেগেছে’, ‘ধর্ষকদের বিরুদ্ধে লড়তে হবে একসঙ্গে’, ‘প্রীতিলতার বাংলায় ধর্ষকদের ঠাঁই নাই’- এমন স্লোগান দিয়ে বিক্ষোভ করছেন এসব শিক্ষার্থীরা।

সম্প্রতি সিলেটের এমসি কলেজ, নোয়াখালীর বেগমগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় ধর্ষণের ঘটনায় প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে সর্বত্রয়। শিক্ষার্থী, সাধারণ জনগণ, দেশের বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন এর বিরুদ্ধে ফুঁসে উঠেছে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও চলছে তীব্র প্রতিবাদ। ধর্ষণের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড করার তীব্র দাবি উঠেছে সাধারণ জনগণের পক্ষ থেকে। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ, বিরোধী দল বিএনপিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল থেকেও জনগণের এই দাবির পক্ষে সমর্থন জানানো হয়েছে।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরও ধর্ষণের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড করার দাবিতে সমর্থন জানিয়েছেন। গত ৭ অক্টোবর এক অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, এদের ছোটখাটো লঘু দণ্ড দিয়ে লাভ নেই। সর্বোচ্চ বিচারের যে দাবি উঠেছে, আমার মনে হয় এটা অযৌক্তিক নয়। এসব অপরাধীদের বিরুদ্ধে সব রাজনৈতিক সামাজিক সংগঠনকে আপসহীন মনোভাব নিয়ে এগিয়ে আসতে হবে।

এ অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে সরকার ধর্ষণ অপরাধের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

 

ঘটনাপ্রবাহ : সিলেট এমসি কলেজ হোস্টেলে গণধর্ষণ