দেশে মোবাইল ফোন সেবার মান যাচাই শুরু
jugantor
দেশে মোবাইল ফোন সেবার মান যাচাই শুরু

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

২১ জানুয়ারি ২০২১, ২১:৫২:১০  |  অনলাইন সংস্করণ

দেশে মোবাইল ফোন সেবার মান যাচাই শুরু

মোবাইল ফোন সেবার মান যাচাই করা শুরু করেছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ সংস্থা-বিটিআরসি। আপাতত দেশের ৩০০ উপজেলায় ছয় মাসব্যাপী এই কার্যক্রম চলবে।

বৃহস্পতিবার বিটিআরসির কার্যালয়ে এ কার্যক্রম উদ্বোধন করেন সংস্থাটির চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদার।

অনুষ্ঠানে আধুনিক প্রযুক্তি ও সমন্বিত প্রচেষ্টার মাধ্যমে গ্রাহককে মানসম্মত সেবা দেওয়া নিশ্চিত করা এবং গ্রাহকের স্বার্থের ক্ষেত্রে কোনো সমঝোতা না করার নির্দেশনা দিয়েছেন বিটিআরসি চেয়ারম্যান।

দেশের মোবাইল ফোন অপারেটরের জন্য সরকার ‘কোয়ালিটি অব সার্ভিস নীতিমালা’ ঘোষণা করেছে। সে অনুযায়ী সফল কলের হার ৯৭ শতাংশ বা তার চেয়ে বেশি হওয়া, কলড্রপ ২ শতাংশের কম থাকা ও কল সংযোগের সময় সর্বোচ্চ ৭ সেকেন্ড হতে হবে।

ইন্টারনেট সেবা নিয়ে সরকারের ঘোষিত নীতিমালায় বলা হয়েছে, থ্রিজি ইন্টারনেটের গতি কমপক্ষে দুই এমবিপিএস এবং ফোরজির ক্ষেত্রে ন্যূনতম সাত এমবিপিএস গতি থাকতে হবে। এই মান রক্ষা করা হচ্ছে কি না, তা আধুনিক প্রযুক্তি দিয়ে পরীক্ষা করবে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ সংস্থা বিটিআরসি। দেশের ৩০০ উপজেলায় এই পরীক্ষা কার্যক্রম চলবে আগামী ৬ মাস। পরীক্ষায় সেবার মানে কোনো ব্যত্যয় পাওয়া গেলে, তা সংশ্লিষ্ট অপারেটরকে জানানো হবে। এবং কোন অপারেটরের সেবার মান কতটা উন্নত হয়েছে, তা যাচাই করা হবে পরবর্তীতে।

বিটিআরসির এই পরীক্ষার গোপনীয়তা বজায় রাখার বিষয়ে অনুষ্ঠানে গুরুত্বারোপ করেছেন কমিশনের লিগ্যাল অ্যান্ড লাইসেন্সিং বিভাগের কমিশনার আবু সৈয়দ দিলজার হুসেইন।

পরীক্ষার প্রতিবেদন জনসাধারণের অবগতির জন্য কমিশনের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করার কথা বলেন কমিশনের স্পেকট্রাম বিভাগের কমিশনার মো. শহীদুজ্জামান।

আর বিটিআরসির এই পরীক্ষায় যেন গ্রাহকের স্বার্থ নিশ্চিত হয়, সেদিকে নজর দেওয়ার পাশাপাশি বিষয়টি ফলোআপে রাখার প্রতি জোর দেন কমিশনের ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড অপারেশনস বিভাগের কমিশনার মো. মহিউদ্দিন আহমেদ।

দেশে মোবাইল ফোন সেবার মান যাচাই শুরু

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
২১ জানুয়ারি ২০২১, ০৯:৫২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
দেশে মোবাইল ফোন সেবার মান যাচাই শুরু
ফাইল ছবি

মোবাইল ফোন সেবার মান যাচাই করা শুরু করেছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ সংস্থা-বিটিআরসি। আপাতত দেশের ৩০০ উপজেলায় ছয় মাসব্যাপী এই কার্যক্রম চলবে।

বৃহস্পতিবার বিটিআরসির কার্যালয়ে এ কার্যক্রম উদ্বোধন করেন সংস্থাটির চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদার। 

অনুষ্ঠানে আধুনিক প্রযুক্তি ও সমন্বিত প্রচেষ্টার মাধ্যমে গ্রাহককে মানসম্মত সেবা দেওয়া নিশ্চিত করা এবং গ্রাহকের স্বার্থের ক্ষেত্রে কোনো সমঝোতা না করার নির্দেশনা দিয়েছেন বিটিআরসি চেয়ারম্যান।

দেশের মোবাইল ফোন অপারেটরের জন্য সরকার ‘কোয়ালিটি অব সার্ভিস নীতিমালা’ ঘোষণা করেছে। সে অনুযায়ী সফল কলের হার ৯৭ শতাংশ বা তার চেয়ে বেশি হওয়া, কলড্রপ ২ শতাংশের কম থাকা ও কল সংযোগের সময় সর্বোচ্চ ৭ সেকেন্ড হতে হবে।

ইন্টারনেট সেবা নিয়ে সরকারের ঘোষিত নীতিমালায় বলা হয়েছে, থ্রিজি ইন্টারনেটের গতি কমপক্ষে দুই এমবিপিএস এবং ফোরজির ক্ষেত্রে ন্যূনতম সাত এমবিপিএস গতি থাকতে হবে। এই মান রক্ষা করা হচ্ছে কি না, তা আধুনিক প্রযুক্তি দিয়ে পরীক্ষা করবে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ সংস্থা বিটিআরসি। দেশের ৩০০ উপজেলায় এই পরীক্ষা কার্যক্রম চলবে আগামী ৬ মাস। পরীক্ষায় সেবার মানে কোনো ব্যত্যয় পাওয়া গেলে, তা সংশ্লিষ্ট অপারেটরকে জানানো হবে। এবং কোন অপারেটরের সেবার মান কতটা উন্নত হয়েছে, তা যাচাই করা হবে পরবর্তীতে।

বিটিআরসির এই পরীক্ষার গোপনীয়তা বজায় রাখার বিষয়ে অনুষ্ঠানে গুরুত্বারোপ করেছেন কমিশনের লিগ্যাল অ্যান্ড লাইসেন্সিং বিভাগের কমিশনার আবু সৈয়দ দিলজার হুসেইন। 

পরীক্ষার প্রতিবেদন জনসাধারণের অবগতির জন্য কমিশনের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করার কথা বলেন কমিশনের স্পেকট্রাম বিভাগের কমিশনার মো. শহীদুজ্জামান।

আর বিটিআরসির এই পরীক্ষায় যেন গ্রাহকের স্বার্থ নিশ্চিত হয়, সেদিকে নজর দেওয়ার পাশাপাশি বিষয়টি ফলোআপে রাখার প্রতি জোর দেন কমিশনের ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড অপারেশনস বিভাগের কমিশনার মো. মহিউদ্দিন আহমেদ।