পরীমনির ঘটনায় ইকবাল বললেন ‘নট এ বিগ ইস্যু’
jugantor
পরীমনির ঘটনায় ইকবাল বললেন ‘নট এ বিগ ইস্যু’

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১৭ জুন ২০২১, ১৯:৩৭:৩৬  |  অনলাইন সংস্করণ

ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় নায়িকা পরীমনি ইস্যু নিয়ে এখন মাতামাতি চলছে সর্বত্র। গত ৮ জুন রাতে ঢাকা বোট ক্লাবে ধর্ষণ-হত্যাচেষ্টার অভিযোগ আনেন এই চিত্রনায়িকা। ফেসবুকে তার দেওয়া স্ট্যাটাসে তোলপাড় শুরু হয় সোশ্যাল মিডিয়াসহ সর্বত্রয়।

এ ঘটনায় পরীমনি বাদী হয়ে গত ১৪ জুন নাসির উদ্দিন মাহমুদ, অমিসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে সাভার থানায় মামলা করেন। সেদিনই নাসির ইউ মাহমুদ, অমিসহ পাঁচজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তাদের কাছ থেকে ইয়াবা ও মদ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় বিমানবন্দর থানায় করা মামলায় নাসির ও অমিকে সাত দিনের এবং গ্রেফতার তিন নারীকে তিন দিনের রিমান্ডে নেয় ডিবি। তাদেরকে দফায় দফায় চলছে গোয়েন্দা পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদ। চলছে সিসিটিভি ফুটেজ বিশ্লেষণসহ সেদিনের পুরো ঘটনার চিত্র উঠিয়ে আনার জোর চেষ্টা।

এরমধ্যেই গুলশানের অল কমিউনিটি ক্লাবে ভাংচুরের অভিযোগ উঠে পরীমনির বিরুদ্ধে। অল কমিউনিটি ক্লাব কর্তৃপক্ষ বলছে, বিষয়টি আলোচনায় আসায় তারা কেবল সেদিনের পুরো ঘটনাটি ‘পরিষ্কার’ করেছে। তারা তাদের যেই সদস্যের মাধ্যমে পরীমনি এসেছিল কেবল সেই সদস্যের বিষয়েই ভাবছে। এক্ষেত্রে পরীমনিকে নিয়ে নতুন করে কোনো আইনি ব্যবস্থায় যাবেন না বলে যুগান্তরকে জানান অল কমিউনিটি ক্লাবের প্রেসিডেন্ট কেএম আলমগীর ইকবাল।

বুধবার (১৬ জুন) সন্ধ্যায় কেএম আলমগীর ইকবাল গণমাধ্যমকে বলেন, ৭ জুন পরীমনি ও তার সঙ্গে আরও কয়েকজন ওই ক্লাবে গিয়ে গ্লাস ভাংচুর করেছেন। সেই রাতে ১৫টি গ্লাস ভেঙেছেন, নয়টি স্ট্রে ছুড়ে মেরেছেন এবং অনেকগুলো হাফপ্লেট ছুড়ে ছুড়ে ভেঙেছেন। ঘটনার দিন পরীমনির সঙ্গে এক ভদ্রলোক ছিল হাফপ্যান্ট পরা আরেকজন মহিলাও ছিল। এটা রাত প্রায় সোয়া ১টা বা দেড়টার ঘটনা।

তবে শুরু থেকেই এ অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে চিত্রনায়িকা পরীমনি। তিনি এটিকে ‘ফালতু অভিযোগ’ বলে অভিহিত করেন। এতদিন পরে এমন অভিযোগ কেন- সেই প্রশ্নও তোলেন তিনি।

পরবর্তীতে বৃহস্পতিবার এ বিষয়ে যুগান্তরের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হয় কেএম আলমগীর ইকবালের সঙ্গে। তিনি বলেন, ক্লাবের নিয়ম হলো কারও অতিথি যখন সেখানে আসে তখন সে মেম্বারের অতিথি, ক্লাবের নয়। সেই অতিথি যাই করবে তার দায়-দায়িত্ব মেম্বারকেই নিতে হবে। সেতো (পরীমনি) সেদিন কিছু গ্লাস-প্লেট ভেঙেছে। সেটা ‘নট এ বিগ ইস্যু’। আমরা এজন্য মামলার কথা ভাবছি না। এটা সামাজিক ক্লাবতো। আমরা কয়েকটি প্লেটের জন্যতো আর তার (পরীমনি) বিরুদ্ধে মামলা করব না। আর যেই মেম্বার তাদের নিয়ে এসেছিল, সে একটা মুচলেকা দিয়েছে যে যা ক্ষতি হয়েছে সে জরিমানাসহ তা দিয়ে দেবে।

পরীমনির ঘটনায় ইকবাল বললেন ‘নট এ বিগ ইস্যু’

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১৭ জুন ২০২১, ০৭:৩৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় নায়িকা পরীমনি ইস্যু নিয়ে এখন মাতামাতি চলছে সর্বত্র। গত ৮ জুন রাতে ঢাকা বোট ক্লাবে ধর্ষণ-হত্যাচেষ্টার অভিযোগ আনেন এই চিত্রনায়িকা। ফেসবুকে তার দেওয়া স্ট্যাটাসে তোলপাড় শুরু হয় সোশ্যাল মিডিয়াসহ সর্বত্রয়। 

এ ঘটনায় পরীমনি বাদী হয়ে গত ১৪ জুন নাসির উদ্দিন মাহমুদ, অমিসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে সাভার থানায় মামলা করেন। সেদিনই নাসির ইউ মাহমুদ, অমিসহ পাঁচজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তাদের কাছ থেকে ইয়াবা ও মদ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় বিমানবন্দর থানায় করা মামলায় নাসির ও অমিকে সাত দিনের এবং গ্রেফতার তিন নারীকে তিন দিনের রিমান্ডে নেয় ডিবি। তাদেরকে দফায় দফায় চলছে গোয়েন্দা পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদ। চলছে সিসিটিভি ফুটেজ বিশ্লেষণসহ সেদিনের পুরো ঘটনার চিত্র উঠিয়ে আনার জোর চেষ্টা। 

এরমধ্যেই গুলশানের অল কমিউনিটি ক্লাবে ভাংচুরের অভিযোগ উঠে পরীমনির বিরুদ্ধে। অল কমিউনিটি ক্লাব কর্তৃপক্ষ বলছে, বিষয়টি আলোচনায় আসায় তারা কেবল সেদিনের পুরো ঘটনাটি ‘পরিষ্কার’ করেছে। তারা তাদের যেই সদস্যের মাধ্যমে পরীমনি এসেছিল কেবল সেই সদস্যের বিষয়েই ভাবছে। এক্ষেত্রে পরীমনিকে নিয়ে নতুন করে কোনো আইনি ব্যবস্থায় যাবেন না বলে যুগান্তরকে জানান অল কমিউনিটি ক্লাবের প্রেসিডেন্ট কেএম আলমগীর ইকবাল।

বুধবার (১৬ জুন) সন্ধ্যায় কেএম আলমগীর ইকবাল গণমাধ্যমকে বলেন, ৭ জুন পরীমনি ও তার সঙ্গে আরও কয়েকজন ওই ক্লাবে গিয়ে গ্লাস ভাংচুর করেছেন। সেই রাতে ১৫টি গ্লাস ভেঙেছেন, নয়টি স্ট্রে ছুড়ে মেরেছেন এবং অনেকগুলো হাফপ্লেট ছুড়ে ছুড়ে ভেঙেছেন। ঘটনার দিন পরীমনির সঙ্গে এক ভদ্রলোক ছিল হাফপ্যান্ট পরা আরেকজন মহিলাও ছিল। এটা রাত প্রায় সোয়া ১টা বা দেড়টার ঘটনা।

তবে শুরু থেকেই এ অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে চিত্রনায়িকা পরীমনি। তিনি এটিকে ‘ফালতু অভিযোগ’ বলে অভিহিত করেন। এতদিন পরে এমন অভিযোগ কেন- সেই প্রশ্নও তোলেন তিনি।

পরবর্তীতে বৃহস্পতিবার এ বিষয়ে যুগান্তরের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হয় কেএম আলমগীর ইকবালের সঙ্গে। তিনি বলেন, ক্লাবের নিয়ম হলো কারও অতিথি যখন সেখানে আসে তখন সে মেম্বারের অতিথি, ক্লাবের নয়। সেই অতিথি যাই করবে তার দায়-দায়িত্ব মেম্বারকেই নিতে হবে। সেতো (পরীমনি) সেদিন কিছু গ্লাস-প্লেট ভেঙেছে। সেটা ‘নট এ বিগ ইস্যু’। আমরা এজন্য মামলার কথা ভাবছি না। এটা সামাজিক ক্লাবতো। আমরা কয়েকটি প্লেটের জন্যতো আর তার (পরীমনি) বিরুদ্ধে মামলা করব না। আর যেই মেম্বার তাদের নিয়ে এসেছিল, সে একটা মুচলেকা দিয়েছে যে যা ক্ষতি হয়েছে সে জরিমানাসহ তা দিয়ে দেবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : পরীমনিকে ধর্ষণচেষ্টা