অ্যাস্ট্রাজেনেকারের আরও দুই লাখ ৭০ হাজার টিকা এলো দেশে
jugantor
অ্যাস্ট্রাজেনেকারের আরও দুই লাখ ৭০ হাজার টিকা এলো দেশে

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২১:০৫:৪৪  |  অনলাইন সংস্করণ

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকারের আরও দুই লাখ ৭০ হাজার ডোজ টিকা দেশে এসেছে। বুলগেরিয়া থেকে বুধবার টার্কিশ এয়ারলাইন্সের কার্গো ফ্লাইটে টিকাগুলো ঢাকায় পৌঁছেছে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, শাহজালাল বিমানবন্দরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের একজন প্রতিনিধি উপহারের এসব টিকা গ্রহণ করেছেন। করোনা মোকাবিলায় যৌথ প্রচেষ্টার নিদর্শনস্বরূপ বুলগেরিয়া এই টিকা উপহার পাঠিয়েছে।

ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটে তৈরি অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা কোভিশিল্ডের তিন কোটি ডোজ কেনার জন্য গত বছরের শেষ দিকে চুক্তি করেছিল বাংলাদেশ। দুই চালানে ৭০ লাখ ডোজ পাঠায় ভারত। এ ছাড়া ভারত সরকারের উপহার হিসেবে আরও ৩২ লাখ ডোজ টিকা পায় বাংলাদেশ। টিকার প্রথম চালান পাওয়ার পরই ৭ ফেব্রুয়ারি সারা দেশে গণটিকাদান শুরু করা হয়। কিন্তু ভারতে করোনা পরিস্থিতি খারাপের দিকে যাওয়ায় দেশটি টিকা রপ্তানি বন্ধ করে দিলে সংকটে পড়ে বাংলাদেশ।

পর্যাপ্ত টিকা না থাকায় ২৫ এপ্রিল দেশে টিকার প্রথম ডোজ দেওয়া বন্ধ হয়ে যায়। যারা প্রথম ডোজ কোভিশিল্ড নিয়েছেন, তাদের সবাইকে দ্বিতীয় ডোজ টিকাদানও বন্ধ করে দেওয়া হয়।

চীনের তৈরি সিনোফার্মের টিকা আসার পর দ্বিতীয় দফায় গত ১৯ জুন থেকে টিকাদান কার্যক্রম আবার চালু হয়। এরমধ্যে জাপান থেকে অ্যাস্ট্রাজেনেকারের টিকা আসে। সেই টিকা দিয়ে অ্যাস্ট্রাজেনেকারের দ্বিতীয় ডোজের জন্য অপেক্ষমাণদের দেওয়া শুরু হয়।

অ্যাস্ট্রাজেনেকারের আরও দুই লাখ ৭০ হাজার টিকা এলো দেশে

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:০৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকারের আরও দুই লাখ ৭০ হাজার ডোজ টিকা দেশে এসেছে।  বুলগেরিয়া থেকে বুধবার টার্কিশ এয়ারলাইন্সের কার্গো ফ্লাইটে টিকাগুলো ঢাকায় পৌঁছেছে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, শাহজালাল বিমানবন্দরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের একজন প্রতিনিধি উপহারের এসব টিকা গ্রহণ করেছেন।  করোনা মোকাবিলায় যৌথ প্রচেষ্টার নিদর্শনস্বরূপ বুলগেরিয়া এই টিকা উপহার পাঠিয়েছে।

ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটে তৈরি অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা কোভিশিল্ডের তিন কোটি ডোজ কেনার জন্য গত বছরের শেষ দিকে চুক্তি করেছিল বাংলাদেশ। দুই চালানে ৭০ লাখ ডোজ পাঠায় ভারত। এ ছাড়া ভারত সরকারের উপহার হিসেবে আরও ৩২ লাখ ডোজ টিকা পায় বাংলাদেশ।  টিকার প্রথম চালান পাওয়ার পরই ৭ ফেব্রুয়ারি সারা দেশে গণটিকাদান শুরু করা হয়। কিন্তু ভারতে করোনা পরিস্থিতি খারাপের দিকে যাওয়ায় দেশটি টিকা রপ্তানি বন্ধ করে দিলে সংকটে পড়ে বাংলাদেশ। 

পর্যাপ্ত টিকা না থাকায় ২৫ এপ্রিল দেশে টিকার প্রথম ডোজ দেওয়া বন্ধ হয়ে যায়। যারা প্রথম ডোজ কোভিশিল্ড নিয়েছেন, তাদের সবাইকে দ্বিতীয় ডোজ টিকাদানও বন্ধ করে দেওয়া হয়।

চীনের তৈরি সিনোফার্মের টিকা আসার পর দ্বিতীয় দফায় গত ১৯ জুন থেকে টিকাদান কার্যক্রম আবার চালু হয়।  এরমধ্যে জাপান থেকে অ্যাস্ট্রাজেনেকারের টিকা আসে।  সেই টিকা দিয়ে অ্যাস্ট্রাজেনেকারের দ্বিতীয় ডোজের জন্য অপেক্ষমাণদের দেওয়া শুরু হয়। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস

২০ অক্টোবর, ২০২১
১৭ অক্টোবর, ২০২১
আরও খবর