ডিএনসিসির সব গাড়িতে সিসি ক্যামেরা, জিপিএস ট্র্যাকার বসছে
jugantor
ডিএনসিসির সব গাড়িতে সিসি ক্যামেরা, জিপিএস ট্র্যাকার বসছে

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

৩০ নভেম্বর ২০২১, ১৯:১৯:০১  |  অনলাইন সংস্করণ

সম্প্রতি ঢাকা দক্ষিণ ও উত্তর সিটিতে সংস্থাটি দুটির ট্রাকের চাপায় দুইজন নিহতের ঘটনায় শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) সব গাড়িতে সিসিটিভি ক্যামেরা স্থাপন এবং জিপিএস ট্র্যাকার লাগানো হবে।

মঙ্গলবার দুপুরে ডিএনসিসির সভাকক্ষে চালকদের সঙ্গে আলোচনা সভায় মেয়র আতিকুল ইসলাম এ কথা বলেন।সভায় চালকদের বিভিন্ন নির্দেশনা দেন মেয়র আতিকুল ইসলাম।

ডিএনসিসি মেয়র বলেন, নিজে বাসায় শুয়ে-বসে থেকে বদলি চালক দিয়ে গাড়ি চালানো যাবে না।এর প্রমাণ পাওয়া গেলে চাকরিচ্যুত করা হবে। সব গাড়িতে জিপিএস ট্র্যাকার লাগানো হবে। প্রতিটি গাড়ি কোথায় যায়, কখন বের হয়- সবকিছুর রেকর্ড রাখা হবে। এসব নির্দেশনা না মানলে বিদায় দেওয়া হবে।

ডিএনসিসির সব গাড়ির বাংলাদেশ সড়ক পরিবহণ কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) নিবন্ধন ও নিয়মিত ফিটনেস পরীক্ষা করার ঘোষণা দিয়েছেন মেয়র।

বিআরটিএতে ডিএনসিসির চালকদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হবে বলেও জানান মেয়র।

মেয়র আতিক আরও বলেন, বর্জ্যের কোনো গাড়ি দিনে চালানো যাবে না।তবে জরুরি প্রয়োজনে কিছু গাড়ি চলবে।প্রত্যেক চালকের লাইসেন্স থাকতে হবে এবং সেটা সঙ্গে রাখতে হবে।

ডিএনসিসির সব গাড়িতে সিসি ক্যামেরা, জিপিএস ট্র্যাকার বসছে

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
৩০ নভেম্বর ২০২১, ০৭:১৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সম্প্রতি ঢাকা দক্ষিণ ও উত্তর সিটিতে সংস্থাটি দুটির ট্রাকের চাপায় দুইজন নিহতের ঘটনায় শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) সব গাড়িতে সিসিটিভি ক্যামেরা স্থাপন এবং জিপিএস ট্র্যাকার লাগানো হবে।

মঙ্গলবার দুপুরে ডিএনসিসির সভাকক্ষে চালকদের সঙ্গে আলোচনা সভায় মেয়র আতিকুল ইসলাম এ কথা বলেন।সভায় চালকদের বিভিন্ন নির্দেশনা দেন মেয়র আতিকুল ইসলাম।

ডিএনসিসি মেয়র বলেন, নিজে বাসায় শুয়ে-বসে থেকে বদলি চালক দিয়ে গাড়ি চালানো যাবে না।এর প্রমাণ পাওয়া গেলে চাকরিচ্যুত করা হবে। সব গাড়িতে জিপিএস ট্র্যাকার লাগানো হবে। প্রতিটি গাড়ি কোথায় যায়, কখন বের হয়- সবকিছুর রেকর্ড রাখা হবে। এসব নির্দেশনা না মানলে বিদায় দেওয়া হবে।

ডিএনসিসির সব গাড়ির বাংলাদেশ সড়ক পরিবহণ কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) নিবন্ধন ও নিয়মিত ফিটনেস পরীক্ষা করার ঘোষণা দিয়েছেন মেয়র।

বিআরটিএতে ডিএনসিসির চালকদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হবে বলেও জানান মেয়র।

মেয়র আতিক আরও বলেন, বর্জ্যের কোনো গাড়ি দিনে চালানো যাবে না।তবে জরুরি প্রয়োজনে কিছু গাড়ি চলবে।প্রত্যেক চালকের লাইসেন্স থাকতে হবে এবং সেটা সঙ্গে রাখতে হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন