রাশিয়া থেকে ৩ লাখ টন গম আমদানি করবে সরকার
jugantor
রাশিয়া থেকে ৩ লাখ টন গম আমদানি করবে সরকার

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১১ আগস্ট ২০২২, ১৯:০০:২৫  |  অনলাইন সংস্করণ

সরকার রাশিয়া থেকে ৩ লাখ টন গম আমদানি করবে। খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদারের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতে বাংলাদেশে গম রপ্তানির বিষয়ে সম্মতির কথা জানিয়েছেন ঢাকায় নিযুক্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত আলেক্সান্ডার ভিকেনতেভিচ মান্টিটস্কি।

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে সাক্ষাৎকালে তারা বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন, দ্বিপক্ষীয় ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রসার ও গম রপ্তানিসহ বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন- খাদ্য সচিব মো. ইসমাইল হোসেন, খাদ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (ডিজি) মো. সাখাওয়াত হোসেনসহ খাদ্য মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

বৈঠক শেষে খাদ্যমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের সঙ্গে রাশিয়ার সম্পর্ক অত্যন্ত চমৎকার। এ সম্পর্ক বাণিজ্য-বিনিয়োগসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে ক্রমান্বয়ে সম্প্রসারিত হচ্ছে। বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতাপরবর্তী যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশের অর্থনীতি ও অবকাঠামো পুনর্গঠনে রাশিয়ার সহযোগিতার কথা কৃতজ্ঞতার সঙ্গে স্মরণ করেন তিনি।

রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত বলেন, বাংলাদেশ ও রাশিয়ার মধ্যে বাণিজ্য এবং বিনিয়োগের অপার সম্ভাবনা রয়েছে। এ সুযোগ কাজে লাগিয়ে বাংলাদেশের খাদ্য নিরাপত্তা অর্জনে রাশিয়া ভূমিকা রাখতে আগ্রহী।

রাষ্ট্রদূত এ সময় বাংলাদেশে প্রয়োজনীয় গম রপ্তানিতে রাশিয়ার আগ্রহের কথা জানান। প্রাথমিকভাবে ৩ লাখ টন গম আমদানি/রপ্তানিতে দুই দেশ সম্মত হয়েছে বলেও জানান তিনি।

রাশিয়ার গম রপ্তানিতে আগ্রহের জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে খাদ্যমন্ত্রী বলেন, ‘দ্বি-পাক্ষিক সম্পর্কোন্নয়নে এটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।’

রাশিয়া থেকে ৩ লাখ টন গম আমদানি করবে সরকার

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১১ আগস্ট ২০২২, ০৭:০০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সরকার রাশিয়া থেকে ৩ লাখ টন গম আমদানি করবে। খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদারের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতে বাংলাদেশে গম রপ্তানির বিষয়ে সম্মতির কথা জানিয়েছেন ঢাকায় নিযুক্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত আলেক্সান্ডার ভিকেনতেভিচ মান্টিটস্কি।

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে সাক্ষাৎকালে তারা বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন, দ্বিপক্ষীয় ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রসার ও গম রপ্তানিসহ বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন- খাদ্য সচিব মো. ইসমাইল হোসেন, খাদ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (ডিজি) মো. সাখাওয়াত হোসেনসহ খাদ্য মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

বৈঠক শেষে খাদ্যমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের সঙ্গে রাশিয়ার সম্পর্ক অত্যন্ত চমৎকার। এ সম্পর্ক বাণিজ্য-বিনিয়োগসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে ক্রমান্বয়ে সম্প্রসারিত হচ্ছে। বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতাপরবর্তী যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশের অর্থনীতি ও অবকাঠামো পুনর্গঠনে রাশিয়ার সহযোগিতার কথা কৃতজ্ঞতার সঙ্গে স্মরণ করেন তিনি। 

রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত বলেন, বাংলাদেশ ও রাশিয়ার মধ্যে বাণিজ্য এবং বিনিয়োগের অপার সম্ভাবনা রয়েছে। এ সুযোগ কাজে লাগিয়ে বাংলাদেশের খাদ্য নিরাপত্তা অর্জনে রাশিয়া ভূমিকা রাখতে আগ্রহী। 

রাষ্ট্রদূত এ সময় বাংলাদেশে প্রয়োজনীয় গম রপ্তানিতে রাশিয়ার আগ্রহের কথা জানান। প্রাথমিকভাবে ৩ লাখ টন গম আমদানি/রপ্তানিতে দুই দেশ সম্মত হয়েছে বলেও জানান তিনি।

রাশিয়ার গম রপ্তানিতে আগ্রহের জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে খাদ্যমন্ত্রী বলেন, ‘দ্বি-পাক্ষিক সম্পর্কোন্নয়নে এটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।’

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন