শটগান হাতে আর্জেন্টিনার জার্সি পরা সেই ব্যক্তি শনাক্ত
jugantor
শটগান হাতে আর্জেন্টিনার জার্সি পরা সেই ব্যক্তি শনাক্ত

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ১৮:০৭:২১  |  অনলাইন সংস্করণ

রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপি-পুলিশের সংঘর্ষ চলাকালে শটগান হাতে আর্জেন্টিনার জার্সি পরা সেই ব্যক্তির পরিচয় শনাক্ত হয়েছে। তার নাম মাহিদুর রহমান। তিনি পল্টন থানায় আনসার সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। গতকাল (বুধবার) নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলটির নেতাকর্মী ও পুলিশের সংঘর্ষের সময় আর্জেন্টিনার জার্সি গায়ে শটগান হাতে গুলি ছুড়তে দেখা যায় তাকে।

বৃহস্পতিবার বিকালে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) অতিরিক্ত কমিশনার ও গোয়েন্দাপ্রধান (ডিবি) মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ডিবিপ্রধান বলেন, যারা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যকে ছাত্রলীগ কর্মী বলে গুজব ছড়াচ্ছে তাদের শনাক্ত করার কাজ চলছে। এ ব্যাপারে ব্যবস্থাও নেওয়া হবে।

গতকাল (বুধবার) বিকাল ৩টার দিকে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সড়ক বন্ধ করে দলটির নেতাকর্মীদের জমায়েত হওয়ায় পুলিশ তাদের সরাতে গেলে দুপক্ষের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ বেধে যায়।

সংঘর্ষের সময় আর্জেন্টিনার জার্সি গায়ে শটগান হাতে এক ব্যক্তির ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়।

ফেসবুক ব্যবহারকারী অনেকে আর্জেন্টিনার জার্সি পরিহিত ওই ব্যক্তিকে ছাত্রলীগের বলে দাবি করেন। এরপর তার পরিচয় নিয়ে আলোচনা শুরু হয়। তবে সংঘর্ষের পরদিনই পুলিশ জানাল, শটগান হাতে ভাইরাল হওয়া ব্যক্তি ছাত্রলীগ কর্মী নন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য। তিনি পল্টন মডেল থানায় অন্তর্ভুক্ত হয়ে দায়িত্ব পালন করছিলেন।

আনসারের নির্ধারিত পোশাক না পরে সিভিল পোশাকে দায়িত্ব পালন করায় তার বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হবে কিনা- জানতে চাইলে ডিবিপ্রধান বলেন, কেন তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে? আমিও তো সিভিল পোশাকে দায়িত্ব পালন করি। জানমাল রক্ষায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা যেকোনো সময় যেকোনো ধরনের পোশাক পরে দায়িত্ব পালন করতে পারেন।

শটগান হাতে আর্জেন্টিনার জার্সি পরা সেই ব্যক্তি শনাক্ত

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ০৬:০৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপি-পুলিশের সংঘর্ষ চলাকালে শটগান হাতে আর্জেন্টিনার জার্সি পরা সেই ব্যক্তির পরিচয় শনাক্ত হয়েছে। তার নাম মাহিদুর রহমান। তিনি পল্টন থানায় আনসার সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। গতকাল (বুধবার) নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলটির নেতাকর্মী ও পুলিশের সংঘর্ষের সময় আর্জেন্টিনার জার্সি গায়ে শটগান হাতে গুলি ছুড়তে দেখা যায় তাকে।

বৃহস্পতিবার বিকালে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) অতিরিক্ত কমিশনার ও গোয়েন্দাপ্রধান (ডিবি) মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ডিবিপ্রধান বলেন, যারা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যকে ছাত্রলীগ কর্মী বলে গুজব ছড়াচ্ছে তাদের শনাক্ত করার কাজ চলছে। এ ব্যাপারে ব্যবস্থাও নেওয়া হবে।

গতকাল (বুধবার) বিকাল ৩টার দিকে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সড়ক বন্ধ করে দলটির নেতাকর্মীদের জমায়েত হওয়ায় পুলিশ তাদের সরাতে গেলে দুপক্ষের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ বেধে যায়।

সংঘর্ষের সময় আর্জেন্টিনার জার্সি গায়ে শটগান হাতে এক ব্যক্তির ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়।

ফেসবুক ব্যবহারকারী অনেকে আর্জেন্টিনার জার্সি পরিহিত ওই ব্যক্তিকে ছাত্রলীগের বলে দাবি করেন। এরপর তার পরিচয় নিয়ে আলোচনা শুরু হয়। তবে সংঘর্ষের পরদিনই পুলিশ জানাল, শটগান হাতে ভাইরাল হওয়া ব্যক্তি ছাত্রলীগ কর্মী নন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য। তিনি পল্টন মডেল থানায় অন্তর্ভুক্ত হয়ে দায়িত্ব পালন করছিলেন।

আনসারের নির্ধারিত পোশাক না পরে সিভিল পোশাকে দায়িত্ব পালন করায় তার বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হবে কিনা- জানতে চাইলে ডিবিপ্রধান বলেন, কেন তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে? আমিও তো সিভিল পোশাকে দায়িত্ব পালন করি। জানমাল রক্ষায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা যেকোনো সময় যেকোনো ধরনের পোশাক পরে দায়িত্ব পালন করতে পারেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন