প্রকাশ : ১৫ জুলাই, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
শারজাহপ্রবাসীর কাকুতি
২০১৭-১৮ অর্থবছরের বাজেট কার্যকর হওয়ায় ১ জুলাই থেকে দ্বিগুণ আবগারি শুল্ক দিয়ে প্লেনের টিকিট কাটতে হচ্ছে যাত্রীদের। বাড়তি শুল্কের কারণে এ অর্থবছরের বাজেটে সার্কভুক্ত দেশ বাদে আন্তর্জাতিক সব রুটে প্লেন ভাড়া বেড়ে গেছে। সার্কভুক্ত দেশ ছাড়া এশিয়ার অন্যান্য দেশের ক্ষেত্রে বিদ্যমান ১ হাজার টাকার পরিবর্তে ২ হাজার টাকা। ইউরোপ, যুক্তরাষ্ট্র ও বিশ্বের অন্যান্য দেশের ক্ষেত্রে বিদ্যমান ১ হাজার ৫০০ টাকার পরিবর্তে ৩ হাজার টাকা করা হয়েছে। অর্থমন্ত্রী ঘোষিত বাজেটে বলা হয়েছে উচ্চমধ্যবিত্ত এবং উচ্চবিত্তরাই সার্কভুক্ত দেশের বাইরে যান। যারা এ তথ্য দিয়েছেন তা সম্পূর্ণ ভুল। বরং সার্কভুক্ত দেশেই উচ্চমধ্যবিত্ত বা উচ্চবিত্তরাই যান। সার্কভুক্ত দেশের মধ্যে বাংলাদেশ থেকে ৮০% লোক শুধু ভারতে যায়। এ ৮০% যাত্রীর মধ্যে অধিকাংশই বাসে করে যাতায়াত করেন। কিছু অংশ বিমানে যাতায়াত করেন। আর সবাই ভ্রমণের উদ্দেশেই ভারত যান। কারণ ভারতে আমাদের দেশের জনগণের ব্যবসা-বাণিজ্য বা চাকরি নেই বরং ভারতের ৮ লাখ মানুষ বাংলাদেশে ব্যবসা-বাণিজ্য এবং চাকরি করেন। অর্থমন্ত্রীকে তথ্য দিচ্ছি যারা মধ্যপ্রাচ্যে আসেন তাদের অধিকাংশই নিন্মবিত্ত বা মধ্যবিত্ত পরিবারের মানুষ। অর্থমন্ত্রীর জানার কথা মধ্যপ্রাচ্যে প্রবাসীদের অধিকাংশই শ্রমিক। এমনিতেই টিকিটের ভাড়া বেশি হওয়ায় সঠিক সময়ে দেশে যেতে পারেন না; এখন আবার দ্বিগুণ শুল্ক বড়ই বেমানান। মধ্যপ্রাচ্যের অনেক শ্রমিক রয়েছেন যারা প্রবাসীদের কাছে হাত পেতে টিকিটের টাকা জমিয়ে টিকিট ক্রয় করেন।
এমনও প্রবাসী আছেন শুধু টিকিটের টাকা জমা করতে পারছেন না বলে দেশে যেতে পারছেন না। সাউথ আফ্রিকায় অনেক প্রবাসী আছেন যারা টিকিটের টাকা জমা করতে পারছেন না বলে বছরের পর বছর আফ্রিকায় পড়ে আছেন।
আবগারি শুল্ক দ্বিগুণ হওয়ায় আমরা আতংকিত নই। আতংকের মূল কারণ আমাদের দেশে একবার যা বৃদ্ধি পায় তা প্রতি বছর পেতেই থাকে। তাইতো প্রবাসীরা আতংকগ্রস্ত। তাছাড়া প্রবাসীদের রেমিটেন্স যোদ্ধা বলা হয়। মন্ত্রীর কাছে আবেদন রেমিটেন্স যোদ্ধাদের আতংকের মধ্যে না রেখে রিলাক্স মোডে থাকতে সহায়তা করুন।
আবদুল্লাহ আল শাহীন, শারজাহ, থেকে




আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত