• শুক্রবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯
জাভেদ মোস্তফা, সাভার থেকে    |    
প্রকাশ : ২১ আগস্ট, ২০১৬ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
২১ আগস্ট এলেই আঁতকে ওঠেন মাহাবুবা

এখনও হাজারো স্পি­ন্টারের বোঝা নিয়ে বেঁচে আছেন সাভারের মাহাবুবা পারভীন, বাম হাত ও পা অবশ, চিকিৎসা চলছে সিএমএইচে। প্রতি মাসে বঙ্গবন্ধু মেমোরিয়াল ট্রাস্ট থেকে পাচ্ছেন চিকিৎসা খরচ বাবদ ১০ হাজার টাকা। এ ছাড়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেয়া ১০ লাখ টাকার সঞ্চয়পত্র থেকে পাচ্ছেন কিছু টাকা। এতেই তিনি দিন পার করছেন। দেখতে দেখতে এক যুগ পার করে দিলেন মাহাবুবা। এখনও সেই স্মৃতি ভুলতে পারেন না। ২১ আগস্ট এলেই তিনি ভীতসন্ত্রস্ত হয়ে ওঠেন। নিজ বাড়ির নোংরা পরিবেশ ও আবর্জনা ভরা টিনশেড বাড়িতে না থেকে উঠেছেন সাভারের শিমুলতলার একটি ফ্ল্যাটে। বাড়িটি সংস্কার করা হলে আবার ফিরে যাবেন সেই বাড়িতে। সেখানেই শুক্রবার দুপুরে কথা হল এই প্রতিবেদকের সঙ্গে। মাহাবুবা পারভীন বেঁচে থাকতে চান সন্তানদের সুন্দর ভবিষ্যতের মাঝে। তার ইচ্ছে তার দুই ছেলে মানুষের মতো মানুষ হোক। দু’ছেলেই অনুদানের টাকায় বিশ্ববিদ্যলয়ের গণ্ডি পার করেছে। দু’জনই বেকার। টাকার অভাবে ছোট ছেলে উচ্চশিক্ষা গ্রহণে যেতে পারছে না বিদেশে। এ ছাড়াও তিনি দাবি করেছেন, যতদিন বেঁচে থাকবেন তার চিকিৎসা ঢাকা সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালেই হোক। বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে সেদিন সমাবেশের জন্য ট্রাকের ওপর নির্মিত মঞ্চের খুব কাছে দাঁড়িয়ে ছিলেন মাহাবুবা পারভীন। তখনকার বিরোধীদলীয় নেত্রী শেখ হাসিনার বক্তব্য শুনছিলেন এবং মাঝে মাঝে স্লোগান দিচ্ছিলেন। হঠাৎ বিকট শব্দের কয়েকটি বিস্ফোরণ। অসংখ্য নেতাকর্মী মাটিতে লুটিয়ে পড়লেন। তারপর আর কিছুই মনে নেই তার। জ্ঞান ফিরলে দেখেন তিনি মহাখালীর মেট্রোপলিটন হাসপাতালের বেডে শুয়ে আছেন। অসহ্য যন্ত্রণা তখন তার সারা শরীরে। হাজারেরও বেশি স্পি­ন্টার তখন তার শরীরে। বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে গ্রেনেড হামলার পর তাকে উদ্ধার করে মৃত ভেবে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে ফেলে রাখা হয়েছিল। কিন্তু স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য অজিত কুমার মজুমদার ‘মাহাবুবা বেঁচে আছে’ বলে চিৎকার করে জানান দিলে ডাক্তাররা তাকে দ্রুত আইসিসিইউতে নিয়ে চিকিৎসা দেন।


 


আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত