যুগান্তর ডেস্ক    |    
প্রকাশ : ২৪ অক্টোবর, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্নে জেলা ব্র্যান্ডিং
একসেস টু ইনফরমেশন প্রোগ্রামের আওতায় জেলায় জেলায় প্রেস ব্রিফিং

ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নে বিভিন্ন ই-সেবা সম্পর্কে জনগণকে অবহিতকরণ ও জনগণের অংশগ্রহণকে উৎসাহিত করতে বিভিন্ন জেলায় প্রেস ব্রিফিং করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের একসেস টু ইনফরমেশন প্রোগ্রামের আওতায় সোমবার জেলা প্রশাসন ও তথ্য অফিসের যৌথ আয়োজনে ওই প্রেস ব্রিফিং করা হয়। এতে কিশোর বাতায়ন উদ্ভাবকের খোঁজে ও জেলা ব্র্যান্ডিং নিয়ে আলোচনা হয়েছে। আলোচনা হয়েছে বিভিন্ন জেলাকে বিভিন্ন নামে ব্র্যান্ডিংয়ের পাশাপাশি ওই জেলার ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি নিয়েও। যুগান্তরের ব্যুরো ও প্রতিনিধিরা জানান-

বাঘের গর্জন, সমৃদ্ধি অর্জন : প্রেস ব্রিফিং করেন খুলনার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মো. গিয়াস উদ্দিন। খুলনা জেলার জন্য ‘বাঘের গর্জন, সমৃদ্ধি অর্জন’ স্লোগান নির্বাচন করা হয়েছে।

প্রেস ব্রিফিংয়ে উপস্থিত ছিলেন খুলনা বেতারের আঞ্চলিক পরিচালক মো. বশির উদ্দিন, খুলনা তথ্য অফিসের উপপরিচালক ম. জাভেদ ইকবাল, আঞ্চলিক তথ্য অফিসের সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা জিনাত আরা প্রমুখ।

কুমিল্লা; ঐতিহ্যে, গৌরবে: অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন কুমিল্লা জেলা প্রশাসক মো. জাহাঙ্গীর আলম। জেলা প্রশাসক বলেন, কুমিল্লা একটি ইতিহাস ঐতিহ্যের জেলা। কুমিল্লার জেলা ব্র্যান্ডিং হিসেবে পর্যটনকে নির্বাচিত করা হয়েছে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. মনিরুজ্জামান তালুকদার, কুমিল্লার সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা মীর হোসেন আহসানুল কবীর, জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. আবদুল মজিদ ও জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নুরুল ইসলাম প্রমুখ। কুমিল্লা; ঐতিহ্যে, গৌরবে- স্লোগানে এ জেলাকে ব্র্যান্ডিং করা হচ্ছে।

বিল-নদী-খাল, এই তিনে বরিশাল : সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বরিশালের জেলা প্রশাসক মো. হাবিবুর রহমান। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. জাকির হোসেনের সভাপতিত্বে সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বরিশাল বিভাগীয় তথ্য অফিসের উপপরিচালক আমিরুল আজমসহ অনেকে। বিল-নদী-খাল এই তিনে বরিশাল- স্লোগানে এ জেলাকে ব্র্যান্ডিং করা হচ্ছে।

বাগেরহাট, সুন্দরবনের প্রবেশদ্বার : অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক তপন কুমার বিশ্বাস, বিশেষ অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. মোহাম্মদ মামুন উল হাসান। জেলা তথ্য কর্মকর্তা মো. ফরিদ উদ্দিন এ অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন বাগেরহাটকে সুন্দরবনের প্রবেশদ্বার হিসেবে ব্র্যান্ডিং করা হচ্ছে।

একুশের চেতনায় আলোকিত পাবনা : অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক রেখা রানী বালো। বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) শাফিউল ইসলাম, জেলা সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা ফরহাদ হোসেন প্রমুখ। ‘একুশের চেতনায় আলোকিত পাবনা’ স্লোগানে ব্র্যান্ডিং করা হচ্ছে এ জেলাকে।

হাওরকন্যা সুনামগঞ্জ : সংবাদ সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো.কামরুজ্জমান।

জেলা তথ্য অফিসের এ.ই অপারেটর মো. শরীফ হোসেনের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন জেলা তথ্য কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেন, জেলা শিশুবিষয়ক কর্মকর্তা বাদল চন্দ্র বর্মণ প্রমুখ। হাওরকন্যা হিসেবে সুনামগঞ্জকে ব্র্যান্ডিং করা হচ্ছে।

রাজসিক নাটোর : অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন নাটোরের জেলা প্রশাসক শাহিনা খাতুন। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মুহাম্মদ মুনীরুজ্জামান ভূঁঞার সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ড. চিত্রলেখা নাজনীন, জেলা তথ্য কর্মকর্তা মো. সামিউল আলম প্রমুখ। এই জেলাকে রাজসিক নাটোর হিসেবে ব্র্যাডিং করা হয়েছে।

নিঝুম দ্বীপের দেশ : প্রধান অতিথি ছিলেন নোয়াখালী জেলা প্রশাসক মো. মাহবুব আলম তালুকদার, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মো. আবদুর রউফ মণ্ডল, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নুসরাত ফাতিমা। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন নোয়াখালী সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা কৃপাময় চাকমা। নোয়াখালী জেলাকে নিঝুম দ্বীপের দেশ হিসেবে ব্র্যান্ডিং করা হচ্ছে।

হাওর-বাঁওড়-পাহাড়-পর্যটনে হবিগঞ্জ : অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট তারেক মোহাম্মদ জাকারিয়ার সভাপতিত্বে ও জেলা তথ্য কর্মকর্তা মো. সাইফুল আলমের পরিচালনায় মতবিনিময়ে প্রধান অতিথি ছিলেন স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক উপ-সচিব মো. সফিউল আলম।

হাওর-বাঁওড়-পাহাড়-পর্যটনে হবিগঞ্জ এই স্লোগানে জেলাকে ব্র্যান্ডিং করা হচ্ছে।

পর্যটনের আনন্দে, তুলসীমালার সুগন্ধে : শেরপুরে প্রেস ব্রিফিংয়ে মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন জেলা তথ্য কর্মকর্তা তাহলিমা জান্নাত। স্থানীয় সরকার বিভাগের পরিচালক উপসচিব একেএম জিয়াউল ইসলামের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মল্লিক আনোয়ার হোসেন। পর্যটনের আনন্দে তুলসীমালার সুগন্ধে- স্লোগানে শেরপুর জেলাকে ব্র্যান্ডিং করা হচ্ছে।

মুজিবনগর ৭১, গৌরবদীপ্ত মেহেরপুর : প্রেস ব্রিফিং করেন ডিডিএলজি খাইরুল হাসান। বক্তব্য রাখেন সিভিল সার্জন ডা. ডিকেএম সামসুজ্জামান, নির্বাহী প্রকৌশলী আজিম উদ্দীন সরদার, জেলা তথ্য কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলী ও নার্গিস আরা খাতুন। মুজিবনগর ৭১, গৌরবদীপ্ত মেহেরপুর হিসেবে ব্র্যান্ডিং হচ্ছে এ জেলা।

‘এক আঙ্গুলের নির্দেশ-স্বাধীন হলো বাংলাদেশ’: জেলা প্রশাসক মোহম্মাদ মোখলেসুর রহমান প্রেস ব্রিফিং করেন। তিনি জানান, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পবিত্র পুণ্য ভূমি গোপালগঞ্জ জেলার ব্র্যান্ডিং হল- ‘এক আঙ্গুলের নির্দেশ-স্বাধীন হলো বাংলাদেশ’।

এসময় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) জাহাঙ্গীর হোসেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) এমডি এ জলিল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

স্বাদে ভরা রসমঞ্জরীর ঘ্রান, চরাঞ্চলের ভুট্টা-মরিচ গাইবান্ধার প্রাণ: জেলা তথ্য কর্মকর্তা সাবিহা আকতার লাকির সভাপতিত্বে প্রেস ব্রিফিংয়ে বিস্তারিত তথ্য উপস্থাপন করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মুহাম্মদ মিজানুর রহমান। ‘স্বাদে ভরা রসমঞ্জরীর ঘ্রান, চরাঞ্চলের ভুট্টা-মরিচ গাইবান্ধার প্রাণ’ এই হল গাইবান্ধার জেলা ব্র্যাডিংয়ের স্লোগান। বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ময়নুল হক, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আমিনুল ইসলাম মণ্ডল প্রমুখ।

সয়াল্যান্ড লক্ষ্মীপুর : প্রেস ব্রিফিংয়ে প্রধান অতিথি ছিলেন লক্ষ্মীপুরে জেলা প্রশাসক হোমায়রা বেগম। জেলা তথ্য কর্মকর্তা আবদুল্লাহ আল মামুনের সঞ্চালনায় ও স্বাগত বক্তব্যের মধ্যে দিয়ে প্রেস ব্রিফিং শুরু হয়। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) শেখ মুর্শিদুল ইসলাম, ডা. মোস্তফা খালেদ আহমেদ। সয়াবিন বেশি হওয়ায় লক্ষ্মীপুরকে ‘সয়াল্যান্ড’ হিসেবে ব্র্যান্ডিং করা হয়েছে।

নৈসর্গিক নেত্রকোনা : অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. খালিদ হোসেনের সভাপতিত্বে প্রেস ব্রিফিংয়ে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক ড. মো. মুশফিকুর রহমান। নৈসর্গিক নেত্রকোনা হিসেবে এ জেলাকে ব্র্যান্ডিং করা হচ্ছে। এ সময় জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. ওয়ালী উল্লাহ, জেলা তথ্য কর্মকর্তা মো. আল ফয়সল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সাতক্ষীরার আকর্ষণ সড়কপথে সুন্দরবন : ‘সাতক্ষীরার আকর্ষণ, সড়কপথে সুন্দরবন’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে সাতক্ষীরা জেলাকে জেলা ব্র্যান্ডিংয়ে তুলে ধরা হবে। জেলার ইতিহাস, ঐতিহ্য, শিক্ষা, সংস্কৃতি, উৎপাদন, শিল্প, সাহিত্য সব কিছুরই সম্মিলন ঘটবে এই স্লোগানে। এরই মধ্যে এ ব্যাপারে বেশকিছু পদক্ষেপও গ্রহণ করা হয়েছে।

সোমবার সকালে সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসক আবুল কাসেম মো. মহিউদ্দিন এক জনাকীর্ণ প্রেস ব্রিফিংয়ে এ কথা বলেন। তিনি বলেন, দেশ এগিয়ে যাচ্ছে, সেই সঙ্গে সাতক্ষীরারও অগ্রগতি হচ্ছে। সুন্দরবন বিশ্ব ঐতিহ্যের অন্যতম এ কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, কেবল সুন্দরবনই সাতক্ষীরাকে পরিচিত করেনি। এই জেলার আম, মাছ, প্রাণিসম্পদ, জেলার সন্দেশ, গো-দুগ্ধ, অধিকমাত্রায় খাদ্যশস্য বিশেষ করে ধান ও সবজি উৎপাদন এসব কিছুই এ জেলাকে সমৃদ্ধ করেছে।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক আবদুল হান্নানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত প্রেস ব্রিফিংয়ে মূল বক্তব্য পড়ে শোনান জেলা তথ্য কর্মকর্তা মোজাম্মেল হক। এসময় জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা অহিদুল ইসলাম ও জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।


 


আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত