logo
জাপানের সেরা সুন্দরী প্রিয়াংকা দোহারের ঘোষ পরিবারের মেয়ে
    |    
প্রকাশ : ০৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০:০০
মিস ওয়ার্ল্ড জাপান-২০১৬ প্রতিযোগিতায় সেরার মুকুট পরেছেন প্রিয়াংকা ইউসিকা ঘোষ। তিনি ঢাকা জেলার দোহার উপজেলার মালিকান্দা গ্রামের সম্ভ্রান্ত ঘোষ পরিবারের মেয়ে। তার বাবা অরুণ ঘোষের জন্ম ও বেড়ে ওঠা মালিকান্দাতে। তবে প্রিয়াংকার জন্ম জাপানে।
এলাকাবাসী ও পারিবারিক তথ্যমতে, ১৯৮৫ সালের ২১ আগস্ট অরুণ ঘোষ বাংলাদেশ থেকে জাপানে চলে যান। কয়েক বছর পর বিয়ে করেন জাপানি নারী নাউকো ঘোষকে। এরপর নাগরিকত্ব পেয়ে সেখানেই বসবাস শুরু করেন। ১৯৯৪ সালের ২০ জানুয়ারি অরুণ-নাউকো দম্পতির কোলে জম্ম নেয় প্রিয়াংকা ইউসিকা ঘোষ। সেই প্রিয়াংকাই নির্বাচিত হলেন জাপানের সেরা সুন্দরী।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মালিকান্দার বাড়িতে এখন প্রিয়াংকার দাদু অবনী মোহন ঘোষ ও ঠাকুমার সমাধি ছাড়া আর কিছু নেই। জেঠো অজয় ঘোষ ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা। একাত্তরে মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে তার অবদান ছিল অনস্বীকার্য। তিনি ঢাকা জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার ছিলেন। বর্তমানে তিনি স্থায়ীভাবে ভারতের পশ্চিমবঙ্গে বসবাস করছেন। সেই সূত্রে ঘোষ পরিবারের অধিকাংশ সদস্য সেখানেই বসবাস করছেন। প্রিয়াংকার বাবা অরুণ পরিবারের মেঝো ছেলে। অজয় ঘোষ, অরুণ ঘোষ ও অমল ঘোষ তিন ভাই। এদের দাদু ডা. প্রফুল্ল ঘোষ ছিলেন পশ্চিমবঙ্গের প্রথম মুখ্যমন্ত্রী। একাধারে তিনি ১৯৪৭-৪৮, ১৯৬৭-৬৮ এবং ১৯৭১ সালে মুখ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। ড. প্রফুল্ল ঘোষের জন্মও দোহারের মালিকান্দা গ্রামে। তবে অল্প বয়সেই তিনি ভারতে চলে যান। তার হাত ধরে মাহাত্মা গান্ধী মালিকান্দা গ্রামে এসেছিলেন। গান্ধীজী নামে একটি আশ্রমও রয়েছে মালিকান্দায়।
অজয় ঘোষের সঙ্গে কথা হয় মুঠোফোনে। তিনি বলেন, আমাদের জন্ম বাংলাদেশে। কাজেই বাংলাদেশ আমাদের পরিবারের শেকড়। একই সঙ্গে প্রিয়াংকার বাবার জন্মও বাংলাদেশে। কিন্তু প্রিয়াংকা বাংলাদেশের কথা তেমনভাবে কিছু বলতে পারবে না। আমার ভাই জাপানে এসে বিয়ের পর একবার বাংলাদেশে গিয়েছিল তখন প্রিয়াংকা মায়ের গর্ভে। এরপর আর যাওয়া হয়নি। প্রিয়াংকার শিক্ষা জীবনের কিছু সময় কেটেছে ভারতে। পশ্চিমবঙ্গের সুধীর মেমোরিয়াল স্কুলে স্ট্যান্ডার্ড টু ও থ্রি ক্লাসে দুই বছর পড়েছে। এরপর আমেরিকায় পড়াশোনা শেষ করে জাপানে স্থায়ীভাবে বসবাস করছে সে। জাপানে ফিরে মডেলিংয়ের সঙ্গে যুক্ত হয় প্রিয়াংকা। তারই ধারাবাহিকতায় এ বছর সে মিস জাপান নির্বাচিত হয়েছে। তার এ অর্জনে আমরা গর্বিত ও আনন্দিত।
এ বিষয়ে প্রিয়াংকা ঘোষ ও তার বাবা অরুণ ঘোষের সঙ্গে কথা বলা সম্ভব হয়নি। জেঠো অজয় ঘোষ জানান, এমন সংবাদের পর থেকে আমরা সবাই উৎফুল্ল। তবে চেষ্টা করে এখনও ওদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারিনি।
মালিকান্দা গ্রামের বাসিন্দা অমিত ঘোষ বলেন, প্রিয়াংকাদের পুরো পরিবারের বাস ছিল মালিকান্দা গ্রামে। পরিবারটি শিক্ষা-দীক্ষায়, সমাজকর্মে ছিল পরিপূর্ণ। আমাদের গ্রামের এ পরিবারের একটি মেয়ে আজ মিস জাপান নির্বাচিত হয়েছে। তাই আমরা ওকে নিয়ে গর্ববোধ করছি।
৫ সেপ্টেম্বর টোকিওতে অনুষ্ঠিত মিস ওয়ার্ল্ড জাপান-২০১৬ প্রতিযোগিতায় গেলবারের চ্যাম্পিয়ন এরিয়ানা মিয়ামুটোকে টপকে মিস জাপান নির্বাচিত হয় ২২ বছর বয়সী প্রিয়াংকা ইউসিকা ঘোষ।