যুগান্তর রিপোর্ট    |    
প্রকাশ : ২৬ জুলাই, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
১৪ দলের বৈঠক শেষে নাসিম
লতিফুর মার্কা নির্বাচনের চক্রান্ত করছে বিএনপি
আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ১৪ দলীয় জোটের মুখপাত্র স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া লন্ডনে বসে আগামী নির্বাচন ভণ্ডুলের চক্রান্ত করছেন। আমরা আশঙ্কা করছি, ২০০১ সালের মতো আবারও জাতীয়-আন্তর্জাতিক চক্রান্তের মাধ্যমে বিএনপি সাহাবুদ্দীন-লতিফুর মার্কা নির্বাচনের ষড়যন্ত্র করছে। বিএনপি সব সময়ই চক্রান্তের মাধ্যমে ক্ষমতায় এসেছে, এবারও চক্রান্ত শুরু করেছে। কোনো অবস্থাতেই বিএনপির সঙ্গে আলোচনা হবে না, আলোচনার প্রশ্নই আসে না।
মঙ্গলবার দুপুরে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে ১৪ দলের বৈঠক শেষে সংবাদ ব্রিফিংয়ে এ কথা বলেন তিনি। নাসিম বলেন, বৈঠকের আলোচনায় উঠে আসে- লন্ডনে সরকারবিরোধী ষড়যন্ত্র চলছে এবং খালেদা জিয়া সেখানে যাওয়ায় তা আরও গতি পেয়েছে। এজন্য সেদিকে সতর্ক দৃষ্টি রাখতে হবে।
নাসিম আরও বলেন, বিএনপির কথায় বোঝা যাচ্ছে, একটি নীলনকশা সামনে রেখে তারা তৎপর। সহায়ক সরকার এবং বিভিন্ন ভিশন দিয়ে নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ ও ভণ্ডুল করতে চায় তারা। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বিএনপির সঙ্গে আলোচনা করবে নির্বাচন কমিশন। সংবিধানসম্মত পদ্ধতিতে যথাসময়ে আগামী নির্বাচন হবে, নির্বাচন কমিশন তা পরিচালনা করবে এবং নির্বাচনকালীন সরকার তাদের সহায়তা করবে। কিন্তু বিএনপি যদি নির্বাচন ভণ্ডুলের চক্রান্ত করে ১৪ দল তা ঐক্যবদ্ধভাবে প্রতিরোধ করবে।
জামায়াত নেতা মুমিনুল হক চৌধুরীর কন্যা রিজিয়া নদভীর মহিলা আওয়ামী লীগের কমিটিতে পদ পাওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য বলেন, এ কথা আমি প্রথম শুনলাম। এ বিষয়ে আমি খোঁজখবর নেব। আওয়ামী লীগ থেকে প্রয়োজনীয় নির্দেশ দেয়ার জন্য বলব।
১৪ দলের মুখপাত্র জানান, জোটের পক্ষ থেকে বন্যাকবলিত এলাকায় ত্রাণ তৎপরতা চালানোর জন্য চট্টগ্রাম ও ফেনী অঞ্চলে সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া এবং উত্তরাঞ্চলে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরীর নেতৃত্বে দুটি প্রতিনিধি দল যাবে। গণতন্ত্রী পার্টির সাধারণ সম্পাদক শাহাদাৎ হোসেনের সভাপতিত্বে বৈঠকে আরও ছিলেন আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ, সাংগঠনিক সম্পাদক খলিদ মাহমুদ চৌধুরী, ত্রাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী প্রমুখ। শরিক নেতাদের মধ্যে ছিলেন জাসদের (একাংশ) সভাপতি শরিফ নুরুল আম্বিয়া, জাতীয় পার্টি (জেপি) মহাসচিব শেখ শহীদুল ইসলাম, ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা, কমিউনিস্ট কেন্দ্রের আহবায়ক ডা. ওয়াজেদুল ইসলাম, সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া, জাসদের (আরেকাংশ) সাধারণ সম্পাদক শিরিন আখতার, তরিকত ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক এমএ আউয়াল, বাসদের আহ্বায়ক রেজাউর রশীদ খান প্রমুখ। সূত্র জানায়, বৈঠকে আওয়ামী লীগের এক নেতা খালেদা জিয়ার লন্ডন যাওয়ার প্রসঙ্গ তুলে বলেন, তারেক রহমান তার ছেলে হলেও আইনের দৃষ্টিতে একজন সাজাপ্রাপ্ত দাগি আসামি। তার সঙ্গে দেখা করতে যাওয়ার জন্য খালেদা জিয়াকে জবাবদিহির আওতায় আনা যেতে পারে। বৈঠকে মোহাম্মদ নাসিম এরপর থেকে অনুষ্ঠিত যে কোনো নির্বাচনে জোটগতভাবে অংশ নেয়া প্রস্তাব করলে শরিকরা তাতে সায় দেন। জোট নেতারা বলেন, ১৪ দলেরও নিজস্ব রোডম্যাপ থাকা দরকার। কোন নির্বাচনে কিভাবে কাজ করা হবে তা থাকবে এতে। বৈঠকে এ প্রস্তাবের পক্ষেও সবাই মত দেন। নির্বাচন কমিশনের মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের ভোটের দিন সেনাবাহিনী চাওয়া এবং নিজেদের রিটার্নিং ও সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা হতে চাওয়ার বিষয়ে বক্তব্য দেন ফজলে হোসেন বাদশা। তখন আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে জবাব দেয়া হয়, এসব কর্মকর্তার বেশির ভাগই বিএনপির আমলে নিয়োগপ্রাপ্ত এবং এদের অনেকেই সরাসরি ছাত্রদলের নেতা ছিলেন।



আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত