• বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯
যুগান্তর রিপোর্ট    |    
প্রকাশ : ২৬ জুলাই, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
২৪ ঘণ্টার মধ্যে সিটিসেলের সংযোগ চালুর নির্দেশ
বন্ধ থাকা বেসরকারি মোবাইল ফোন অপারেটর সিটিসেলের তরঙ্গ ২৪ ঘণ্টার মধ্যে চালু করতে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনকে (বিটিআরসি) নির্দেশ দিয়েছেন সুপ্রিমকোর্টের আপিল বিভাগ। একই সঙ্গে প্রতিষ্ঠানটির লাইসেন্স পুনর্বহালের নির্দেশ দেন আদালত।
বিটিআরসির বিরুদ্ধে সিটিসেলের করা আদালত অবমাননার আবেদনের শুনানি শেষে মঙ্গলবার প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে তিন সদস্যের আপিল বেঞ্চ এ আদেশ দেন। ৬ আগস্ট আদালত অবমাননার বিষয়ে আদেশের দিন ধার্য করেছেন সর্বোচ্চ আদালত।
আদালতে সিটিসেলের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার রোকন উদ্দিন মাহমুদ ও অ্যাডভোকেট আহসানুল করীম। বিটিআরসির পক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম, কামরুল হক সিদ্দিকী ও খন্দকার রেজা-ই রাকিব।
শুনানি শেষে আহসানুল করীম জানান, আপিল বিভাগ দুটি শর্তে সিটিসেলকে তরঙ্গ সংযোগ দেয়ার নির্দেশ দেন। এগুলো হল- বিরোধ নিষ্পত্তি করার জন্য একটি কমিটি গঠন করে দেয়া এবং ১০০ কোটি টাকা ১৯ নভেম্বরের মধ্যে বিটিআরসিকে পরিশোধ করা। অথচ চলতি বছরের ১১ জুন সিটিসেলের তরঙ্গ বরাদ্দ বাতিল ও লাইসেন্স বাতিল করে দেয় বিটিআরসি। এ অবস্থায় তাদের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার আবেদনের পর মঙ্গলবার আপিল বিভাগ এ আদেশ দেন।
সিটিসেলের লাইসেন্স সোমবার বাতিলের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয় বিটিআরসি। প্রতিষ্ঠানটির কাছে পাওনা না দেয়ায় গত বছরের ২০ অক্টোবর তাদের তরঙ্গ কার্যক্রম বন্ধ করে দেয় বিটিআরসি। এরপর ২৪ অক্টোবর তরঙ্গ বরাদ্দ খুলে দেয়ার নির্দেশনা চেয়ে আপিল বিভাগে আবেদন জানায় সিটিসেল। মোবাইল ফোন অপারেটরটির আইনজীবীরা সেদিন দাবি করেন, সুপ্রিমকোর্টের নির্দেশনা অনুসারে বিটিআরসি ও এনবিআরের ১৪৪ কোটি টাকা শোধ করা হয়েছে। এরপরও তরঙ্গ কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়া হয়। ওই আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গত বছরের ৩ নভেম্বর ১৯ নভেম্বরের মধ্যে ১০০ কোটি টাকা পরিশোধের শর্তসাপেক্ষে সিটিসেলের তরঙ্গ বরাদ্দ অবিলম্বে খুলে দেয়ার আদেশ দেন আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চ। ওই দিনের মধ্যে টাকা পরিশোধ না করা হলে বিটিআরসিকে ফের তরঙ্গ বরাদ্দ বন্ধ করতেও বলেন সর্বোচ্চ আদালত। এরপর বিটিআরসির চেয়ারম্যান শাহজাহান মাহমুদের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার আবেদন জানায় সিটিসেল। দেশের প্রথম মোবাইল ফোন অপারেটর সিটিসেলের ৩৭ দশমিক ৯৫ শতাংশ শেয়ারের মালিক বিএনপি নেতা ও সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী এম মোরশেদ খানের প্যাসিফিক মোটরস লিমিটেড। এছাড়া ফারইস্ট টেলিকম লিমিটেডের ১৭ দশমিক ৫১ শতাংশ শেয়ার ও সিঙ্গাপুরের প্রতিষ্ঠান সিংটেলের ৪৫ শতাংশ শেয়ার রয়েছে।



আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত