যুগান্তর রিপোর্ট    |    
প্রকাশ : ১৩ অক্টোবর, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
চার সপ্তাহের মধ্যে সাভার ট্যানারি পল্লীর কাজ শেষ করার নির্দেশ
সাভারের ট্যানারি পল্লীর অবকাঠামোগত সব ধরনের নির্মাণকাজ চার সপ্তাহের মধ্যে শেষ করার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে কঠিন বর্জ্য যাতে তরল বর্জ্যরে সঙ্গে মিশে না যায়, সে বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ারও নির্দেশ দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি সাভারে ট্যানারির বর্জ্য শোধনাগার (সিইটিপি) ৪ নভেম্বর পর্যন্ত প্রতিদিন ঘণ্টায় ঘণ্টায় মনিটরিং করে ১২ নভেম্বরের মধ্যে আদালতে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। পরিবেশবাদী সংগঠন বেলার আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার বিচারপতি সৈয়দ রেফাত আহমেদ ও বিচারপতি মো. সেলিমের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এই আদেশ দেন। আদালতে আবেদনের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী সৈয়দা রিজোয়ানা হাসান ও সাঈদ আহমেদ কবির। শিল্প মন্ত্রণালয়ের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী রইস উদ্দিন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল কাজী জিনাত হক। এর আগে গত জুলাই মাসে ধলেশ্বরী নদীর দূষণ ঠেকাতে সাভারের ট্যানারি পল্লীর বর্জ্য পরিশোধন ব্যবস্থার বিষয়ে হাইকোর্টে আবেদন করেন বাংলাদেশ পরিবেশ আইনজীবী সমিতি (বেলা)। আবেদনে সাভারের ট্যানারি পল্লীর পরিবেশ দূষণ নিয়ন্ত্রণকারী ক্রম (ক্যান্সার সৃষ্টিকারী রাসায়নিক) রিকভারি ইউনিট, লবণাক্ততা দূষণ প্রতিরোধক এবং কঠিন বর্জ্য পরিশোধকের সর্বশেষ অবস্থা জানতে চাওয়া হয়। রিজওয়ানা হাসান বলেন, হাজারীবাগের মতো দূষণ যেন সাভারের ট্যানারি পল্লীতে না হয়, সেজন্যই বারবার আদালতে আসা। আদালত এ বিষয়ে আদেশে বলেছেন, সিইটিপি ৪ নভেম্বর পর্যন্ত প্রতিদিন ঘণ্টায় ঘণ্টায় মনিটর করতে হবে এবং ১২ নভেম্বরের মধ্যে আদালতে প্রতিবেদন দিতে হবে। এ ছাড়া তরল বর্জ্যরে সঙ্গে যেন কঠিন বর্জ্য না মেশে তা নিশ্চিত করতে প্রতিটি কারখানার পাইপে বাধ্যতামূলকভাবে বায়োস্ক্রিন লাগাতে হবে। রইস উদ্দিন বলেন, আজ আদালতে শিল্প মন্ত্রণালয় ও বিসিকের পক্ষে কিছু প্রতিবেদন দেয়া হয়েছে। আদালত পরিবেশসম্মতভাবে কাজ চালাতে নির্দেশ দিয়েছেন। বর্জ্য পরিশোধন করতে প্রাথমিকভাবে প্রত্যেক কারখানায় বার বসাতে হবে। অবকাঠামো স্থাপনের অসম্পন্ন কাজ চার সপ্তাহের মধ্যে সম্পন্ন করতে হবে। এ ছাড়া বর্জ্য শোধনাগারের মনিটরিং প্রতিবেদন আদালতে দাখিল করতে হবে।



আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত