মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি    |    
প্রকাশ : ২৬ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
ডাক্তারের ছুরির আঘাতে নবজাতকের মৃত্যু
এবার ডাক্তারের ছুরির আঘাতে মানিকগঞ্জে এক নবজাতকের মৃত্যু হয়েছে। সদর উপজেলার বালিকটেক এলাকায় একতা ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে এ ঘটনা ঘটে। নবজাতকের মাথায় চারটি সেলাইয়ের চিহ্ন দেখা গেলেও অভিযুক্ত ডাক্তার মো. নাজমুল হাসানের দাবি, নবজাতকটি ঠাণ্ডাজনিত কারণে মারা গেছে। তবে ডাক্তার এ প্রতিবেদকের কাছে স্বীকার করেছেন, সিজারিয়ান অপারেশনের সময় ছুরির আঘাতে মাথায় সামান্য কেটে যায় ওই নবজাতকের। স্বজনদের অভিযোগ, ডাক্তার অপারেশন করার পর নবজাতকের মাথায় সেলাই দিয়ে তড়িঘড়ি করে পালিয়ে গেছেন। ক্লিনিকটির ব্যবস্থাপক ফারুক হোসেন নবজাতকের মৃত্যুর বিষয়টি স্বীকার করে জানান, ওই পরিবারের পাশে ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ থাকবে।
ওই নবজাতকের বাবা ভারারিয়া গ্রামের মিশুক রানা জানান, তার স্ত্রী মাকসুদাকে প্রসবজনিত ব্যথা উঠলে স্থানীয় একতা ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে রোববার রাত সাড়ে ৯টার দিকে ভর্তি করানো হয়। রাত ১২টার দিকে ক্লিনিকের ডাক্তার মো. নাজমুল হাসান তার স্ত্রীর সিজারিয়ান অপারেশন করান। অপারেশনের সময় ডাক্তারের ছুরির আঘাতে তার মেয়েসন্তানের মাথা কেটে যায় ও প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়। পরে ডাক্তার নবজাতকের মাথায় বেশ কয়েকটি সেলাই দেন। তিনি জানান, এ কন্যা শিশুটি ছিল তাদের প্রথম সন্তান। ভোররাতে শিশুটির অবস্থার অবনতি হলে ঢাকায় নেয়ার পথে সকাল ৮টার দিকে তার মৃত্যু হয়।নিহত নবজাতকের মা মাকসুদা বেগমের মামা রকিব উল্লাহ জানান, প্রসব করানোর পর শিশুটির মাথা তুলা ও তোয়ালে দিয়ে ঢেকে রাখা হয়েছিল। এরপরও তুলা ভেদ করে রক্ত বের হচ্ছিল। সকাল ১০টার দিকে দাফন করার জন্য গোসল করানোর সময় তুলা সরালে তারা দেখতে পান শিশুটির মাথায় গভীর ক্ষত। সেখানে সেলাই করা রয়েছে। এ দেখে তারা ধারণা করেন, কাটা জায়গা থেকে রক্তপাতের কারণেই শিশুটির মৃত্যু হয়েছে। এ অবস্থায় তারা শিশুর লাশ ক্লিনিকে ফিরিয়ে আনেন।
ডা. নাজমুল হাসানের সঙ্গে টেলিফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, বর্তমানে তিনি ডিজি হেলথে ডেপুটেশনে কর্মরত। সিজারিয়ান অপারেশনের কথা স্বীকার করে তিনি বলেন, ঠাণ্ডাজনিত কারণে শিশুটির অবস্থা ভালো ছিল না। সে কারণে তার মৃত্যু হতে পারে। মাথায় আঘাতের কথা স্বীকার করে জানান, তিনিই সেলাই করেছিলেন। মাথায় ছুরির আঘাতে শিশুটির মৃত্যু হয়নি বলে তিনি দাবি করেন। মানিকগঞ্জ সদর থানার এসআই মহম্মদ আশরাফুল ইসলাম জানান, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মানিকগঞ্জ ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেলা হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। সিভিল সার্জন ডা. খুরশিদ আলম জানান, বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।



আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত