যুগান্তর রিপোর্ট    |    
প্রকাশ : ২৬ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
ঘুরে দাঁড়ানোর স্বপ্নে শেষ হল রিহ্যাব ফেয়ার
বিক্রি ও বুকিংয়ের ক্ষেত্রে ইতিবাচক বার্তা দিয়ে শেষ হল পাঁচ দিনের জমজমাট রিহ্যাব ফেয়ার-২০১৭। শেষদিন সোমবার সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত মেলা প্রাঙ্গণে ছিল উপচে পড়া ভিড়। এবারের রিহ্যাব ফেয়ারে পাঁচ দিনে প্রায় ২৬ হাজার ক্রেতা-দর্শনার্থীর সমাগম ঘটে। প্লট, ফ্ল্যাট বিক্রি হয়েছে অনেক। আর আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোরও ঋণ দেয়ার বিষয়ে ব্যাপক সাড়া ছিল। যারা মেলা চলাকালে নাম অ্যান্ট্রি করেছেন আগামী ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত তারা বিশেষ ছাড়ে ঋণ সুবিধা পাবেন। সোমবার বেশকিছু বিক্রি ও বুকিংয়ের আশ্বাস পেয়ে বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানই খুশি। আর আবাসন খাত সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন, ইতিবাচক পথে হাঁটতে থাকা আবাসন খাতকে ঘুরে দাঁড়াতে এবারের মেলা বেশ সহায়তা করবে।
এ প্রসঙ্গে রিহ্যাব ফেয়ারে অংশ নেয়া ইস্ট ওয়েস্ট ডেভেলপার্স লিমিটেডের কর্মকর্তা জহিরুজ্জামান যুগান্তরকে বলেন, ‘এবারের রিহ্যাব ফেয়ারে বেশকিছু প্লট বিক্রি হয়েছে। তবে অনেক দর্শনার্থীর উপস্থিতির কারণে পরবর্তী সময়ে অনেক প্লট বিক্রির আশা করছি আমরা।’
এ বিষয়ে আকাশ ডেভেলপার্স লিমিটেডের মশিউর রহমান রাশেদ যুগান্তরকে বলেন, ‘আমাদের ফ্লাটের সাইজ বেশ বড়। এ কারণে আমাদের বিক্রি কম হয়েছে। ধানমণ্ডি লেক সাইটের একটি ফ্ল্যাট বিক্রি করেছি ৪ কোটি ৯৯ লাখ টাকায়। এর বাইরে মগবাজারসহ আশপাশের এলাকায় বেশকিছু নির্মাণাধীন প্রকল্পের ফ্ল্যাট বিক্রির সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। সব মিলিয়ে এবারের মেলায় সাড়া খুব ভালো। এ বিষয়ে রিহ্যাবের ভাইস প্রেসিডেন্ট (প্রথম) লিয়াকত আলী ভূঁইয়া যুগান্তরকে বলেন, ‘কয়েক বছর ধরে আবাসন খাত বেশ খারাপ অবস্থার মধ্য দিয়ে সময় পার করছিল। আমরা সরকারের বিভিন্ন পর্যায়ে আলোচনা করে আবাসন খাতের সিঙ্গেল ডিজিট সুদে ঋণের ব্যবস্থা করেছি। অনেক ব্যাংক এখন সিঙ্গেল ডিজিটে ঋণ সুবিধা দিচ্ছে। এর বাইরে আরও বেশকিছু বিষয়ে আবাসন খাত নিয়ে সরকারের মনোভাব ইতিবাচক। আশা করি, সামনের দিনগুলোয় সরকার এ বিষয়ে বিশেষ দৃষ্টি দেবে।’
প্রসঙ্গত, বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে রিয়েল এস্টেট অ্যান্ড হাউজিং অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (রিহ্যাব) আয়োজিত মেলা শুরু হয় ২১ ডিসেম্বর। বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ মেলার উদ্বোধন করেন। সোমবার রাত ৯টা পর্যন্ত চলে মেলা। এবারের মেলায় ৩০টি বিল্ডিং ম্যাটেরিয়ালস ও ১৩ অর্থলগ্নিকারী প্রতিষ্ঠানসহ ২০৫টি আবাসন প্রতিষ্ঠান অংশ নেয়। আর এবারের মেলার কো-স্পন্সর ছিল ২৪টি প্রতিষ্ঠান।



আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত