গোলাপগঞ্জ (সিলেট) প্রতিনিধি    |    
প্রকাশ : ২৬ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
দুদকের মামলায় পলাতক
সৈকতে বেড়াচ্ছেন গোলাপগঞ্জের সাবেক মেয়র পাপলু!
দুদকের মামলায় পলাতক রয়েছেন সিলেটের গোলাপগঞ্জ পৌরসভার সাবেক মেয়র জাকারিয়া আহমদ পাপলু, নির্বাহী প্রকৌশলী যোগেশ্বর চ্যাটার্জি, কার্য সহকারী সাব্বির আহমদ ও নিন্মমান সহকারী জহিরুল ইসলাম। তারা কোথায় আছেন, কেউ জানেন না। তবে সমুদ্রসৈকতে স্ত্রীর সঙ্গে তোলা পাপলুর কয়েকটি ছবি ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। এতে স্থানীয়দের মনে নানা প্রশ্নের উদয় হয়েছে। অনেকে বলছেন, ছবির স্থানটি কক্সবাজার। ঘুরে বেড়ালেও তাকে প্রশাসন কেন খুঁজে পাচ্ছে না।
এদিকে সোমবার যুগান্তরে তাদের দুর্নীতির সংবাদ প্রকাশিত হওয়ার পরই উধাও হয়ে গেছে পত্রিকার সব কপি। সকালে যুগান্তরের পাঠকরা পত্রিকা না পেয়ে খুবই হতাশ হয়েছেন।
অনুসন্ধানে জানা গেছে, ২৪ ডিসেম্বর পাপলুর ঘনিষ্ঠজন রুমেল আহমদের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে ওই ছবিগুলো প্রকাশিত হয়। ছবিতে পাপলুর সঙ্গে তার স্ত্রীকে সৈকতে বেড়াতে দেখা গেছে।
২১ ডিসেম্বর দুদকের সিলেট সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক দেবব্রত মণ্ডল বাদী হয়ে সাবেক মেয়র জাকারিয়া আহমদ পাপলুকে প্রধান আসামি করে ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। মামলাটি এ দিন গোলাপগঞ্জ থানায় দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ১৯৪৭-এর ৫(২)সহ দণ্ডবিধি ৪০৯, ৪২০, ৪৬৭, ৪৬৮, ৪৭১ ও ৪০৯ ধারায় রেকর্ড হয়। এরপর থেকে তাদের আর খুঁজে পাচ্ছে না পুলিশ। গোলাপগঞ্জ পৌরসভা থেকে অসুস্থতার অজুহাতে ছুটি নিয়ে পালিয়ে যায় কার্য সহকারী সাব্বির আহমদ ও নিন্মমান সহকারী জহিরুল ইসলাম। বর্তমানে তাদের ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটিও বন্ধ রয়েছে।
এ ব্যাপারে বর্তমান মেয়র সিরাজুল জব্বার চৌধুরী বলেন, আমরা বারবার তাদের অফিসে আসতে বললেও তারা আসছেন না। মামলা হওয়ার পর তারা পালিয়ে গেছেন। বর্তমানে অফিসে তাদের চেয়ারগুলো রয়েছে খালি। অফিস কক্ষে তালা। তাদের অনুপস্থিতির কারণে অফিসের নিয়মিত কাজকর্মে ব্যাঘাত ঘটছে।
সোমাবার যুগান্তরে ‘গোলাপগঞ্জ পৌরসভা : এডিপি ও রাজস্ব খাতের ১২ কোটি টাকা তছরুপ’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশিত হওয়ায় সকালে পত্রিকা উধাও হয়ে যায়। উপজেলার পৌর সদরে যুগান্তর বিক্রেতা মহসিন আলী জানান, সকালেই যুগান্তরের সব কপি নিমিষেই শেষ হয়ে যায়। কে বা কারা এত কপি যুগান্তর কিনে নিয়ে গেল, বলতে পারছি না। পত্রিকা না পেয়ে অনেক পাঠক ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। অনেকে ফটোকপি করে খবরটি পড়েছেন।



আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত