• বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৯
মাদারীপুর প্রতিনিধি    |    
প্রকাশ : ২৮ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
মাদারীপুরে সালিশ মীমাংসা
কাউন্সিলর ও আ’লীগ নেতার নির্দেশে কিশোরীকে জুতাপেটা
মাদারীপুর শহরের মধ্য খাগদি এলাকায় সালিশ মীমাংসার নামে এক কিশোরীকে জুতাপেটা করার অভিযোগ উঠেছে। মঙ্গলবার বিকালের এ ঘটনায় স্থানীয়দের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে।
১৮ ডিসেম্বর দুপুরে মধ্য খাগদি এলাকার হাসান শরীফ একই এলাকার অতিদরিদ্র এক পরিবারের মেয়েকে ফুসলিয়ে তামান্না নামে এক মহিলার কাছে বিক্রি করে দেয়। গত শুক্রবার সদর উপজেলার খাকছড়ার করমবাজার থেকে ওই কিশোরীকে উদ্ধার করা হয়। কিশোরীর পরিবার বিষয়টি স্থানীয় গণ্যমান্যদের জানায়। মঙ্গলবার বিকালে বিষয়টি নিয়ে সালিশ বৈঠক বসে। সালিশে ছিলেন মাদারীপুর পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আইয়ুব খান, ৯নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুজাম খান ও সাবেক কাউন্সিলর সামসুল হক খান। তারা কিশোরীকে দোষী দাবি করে ১০টি জুতাপেটা, একই সঙ্গে হাসান শরীফকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা এবং ১০টি জুতাপেটার নির্দেশ দেন। পরে সবার সামনেই কিশোরীকে জুতাপেটা করা হয়। কিশোরীর ভাই যুগান্তরকে বলেন, ‘দারিদ্র্যতার সুযোগ নিয়ে আমার বোনকে বিক্রি করে দেয় হাসান। প্রভাবশালীরা বিষয়টি মীমাংসা করে দেয়ার নামে আমার বোনকে জুতাপেটা করেছে।’
লাঞ্ছিতা কিশোরী বলেন, ‘আমরা কোন দেশে বাস করি। আমার অনেক বড় ক্ষতি করেছে ওরা। এর বিচার তো পেলামই না, উল্টো সালিশের নামে আমাকে জুতাপেটা করেছে। আমি এর বিচার চাই।’ জানতে চাইলে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা মুজাম খান বলেন, ‘মেয়েটির চরিত্র খারাপ। সালিশে দোষী প্রমাণ হওয়ায় আমরা জুতাপেটা করেছি।’ এ ব্যাপারে স্থানীয় কাউন্সিলর আইয়ুব খানের সঙ্গে কথা বলার জন্য একাধিকবার ফোন দিলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি। জানতে চাইলে মাদারীপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাজল কৃষ্ণ দে বলেন, ‘আওয়ামী লীগ নেতার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ উঠেছে তা সত্য হলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’
মাদারীপুর পুলিশ সুপার সরোয়ার হোসেন বলেন, ‘ঘটনাটি সম্পর্কে অবগত নই। যদি ওই কিশোরীর পরিবার থেকে অভিযোগ দেয়া হয় তাহলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।’



আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত