যুগান্তর রিপোর্ট    |    
প্রকাশ : ২৮ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে আইনজীবীকে সাজা
সেই এসি ল্যান্ডের নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা
কক্ষে বসা নিয়ে বাকবিতণ্ডার জেরে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে আইনজীবীকে সাজা দেয়ার ঘটনায় ভুরুঙ্গামারী উপজেলার সহকারী কমিশনার ভূমি (এসি ল্যান্ড) বিরোদা রানী রায় হাইকোর্টে নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা করেছেন। প্রক্রিয়া যথাযথ না হওয়ায় আদালত আজ (বৃহস্পতিবার) লিখিতভাবে ক্ষমা প্রার্থনা করতে বলেছেন।
আদালত উষ্মা প্রকাশ করে এসি ল্যান্ড বিরোদা রানী রায়কে বলেন, ‘আপনার এত ক্ষমতা? আপনি শুধু একজন প্রবীণ আইনজীবীকে কক্ষ থেকে বের করেই দেননি। কোর্ট বসিয়ে সাজাও দিয়েছেন। আপনি ক্ষমতার অপব্যবহার করেছেন।’
বুধবার বিচারপতি মো. হাবিবুল গণি ও বিচারপতি কেএম কামরুল কাদেরের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের অবকাশকালীন বেঞ্চ এ ক্ষোভ প্রকাশ করেন। আইনজীবীকে সাজা দেয়ার ঘটনায় ভুরুঙ্গামারী উপজেলার সহকারী কমিশনার ভূমি (এসি ল্যান্ড) বিরোদা রানী রায়কে হাইকোর্টে সশরীরে হাজির হয়ে ব্যাখ্যা দিতে বলা হয় ১৭ ডিসেম্বর।
শুনানির শুরুতেই বিরোদা রানী রায়ের আইনজীবী মামুন মাহবুব এসি ল্যান্ডকে তলবের আদালতের আদেশ পড়ে শোনান। এরপর এসি ল্যান্ডের পক্ষে নিঃশর্ত ক্ষমার আবেদন দাখিল করেন। আবেদন এফিডেভিট আকারে দাখিল না করায় আদালত অসন্তোষ প্রকাশ করেন এবং নিঃশর্ত ক্ষমার আবেদন এফিডেভিট আকারে দাখিল করতে বলেন।
এ সময় আদালত আইনজীবী মামুন মাহবুবকে উদ্দেশ করে বলেন, ‘মোবাইল কোর্ট নিয়ে এত তোলপাড় হচ্ছে। উনি (এসি ল্যান্ড) কি এসব নিউজ পড়েন না? কয়েকদিন আগে হাইকোর্টের একটি বেঞ্চে এ বিষয়ে অর্ডার হয়েছে।’ এ পর্যায়ে বিরোদা রানীর কাছে সে দিনের ঘটনা জানতে চান আদালত। জবাবে এসি ল্যান্ড বলেন, ‘ওই দিন জমিজমা সংক্রান্ত একটি মামলার হেয়ারিং চলছিল। এ সময় আইনজীবী বিনোদ বিহারী আদালত কক্ষে যান। রুমে বসার জায়গা না থাকায় আমি উনাকে বাইরে যেতে ও পরে আসতে বলি।’ এ পর্যায়ে আদালত এসি ল্যান্ডকে বলেন, ‘আপনি তো শুধু প্রবীণ আইনজীবীকে রুম থেকে বের করে দেননি। কোর্ট প্রসেডিং চলাকালীন সময়ে আরেকটা কোর্ট বসিয়ে শাস্তিও দিয়ে দিলেন। আপনার এত ক্ষমতা?’
আদালত এসি ল্যান্ডকে উদ্দেশ করে বলেন, ‘কাউকে এভাবে অপদস্থ করা ঠিক নয়। কোনো আইনজীবী অপরাধ করে থাকলে তার বিচারের জন্য বার কাউন্সিল রয়েছে। আপনি কি কখনও শুনেছেন হাইকোর্ট কোনো আইনজীবীকে সরাসরি সাজা দিয়েছেন?’ পরে এসি ল্যান্ড বলেন, ‘সরকারি দায়িত্ব পালনের সময় আমার ব্যবহারে যদি কেউ কষ্ট পেয়ে থাকেন এজন্য দুঃখ প্রকাশ করছি।’
আদালত এসি ল্যান্ডের কাছে জানতে চান এ ঘটনার জন্য তিনি অনুতপ্ত কিনা। এসি ল্যান্ড চুপ থাকলে আদালত বলেন, ‘দেখছি উনার কোনো অনুভূতিই নেই।’ এ সময় এসি ল্যান্ডের আইনজীবী মামুন মাহবুব এগিয়ে এসে নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনার কথা আদালতকে জানান। এরপর আইনজীবী বিনোদ বিহারীকে আদালত বলেন, ‘আপনার আরও সহনশীল হওয়া উচিত ছিল।’ পরে আদালত আদেশের জন্য বৃহস্পতিবার (আজ) দিন ধার্য করেন।
এ বিষয়ে বিরোদা রানীর আইনজীবী মামুন মাহবুব যুগান্তরকে বলেন, ‘আজ আমরা মৌখিকভাবে নিঃশর্ত ক্ষমা চেয়েছি। আদালত বলেছেন, লিখিতভাবে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে।’ দিনাজপুরের বীরগঞ্জে এসি ল্যান্ডের কক্ষে বসা নিয়ে বাকবিতণ্ডার জের ধরে এক জ্যেষ্ঠ অ্যাডভোকেট বিনোদ বিহারী রায়কে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে সাজা দেন সহকারী কমিশনার বিরোদা রানী রায়। ১২ ডিসেম্বর একটি নামজারির মামলায় শুনানি করতে গেলে ৫০০ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে ১ দিনের কারাদণ্ড দেয়া হয় আইনজীবীকে।



আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত