সফিউল্লাহ আনসারী    |    
প্রকাশ : ১৭ আগস্ট, ২০১৬ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
চাই সামাজিক বন্ধন ও সহনশীল পরিবেশে বাঁচতে
ইসলাম শান্তির ধর্ম। ইসলাম মানবতার কল্যাণের জন্য আল্লাহর মনোনীত দ্বীন বা জীবন বিধান। ইসলামের মূল বাণী ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার অপপ্রয়াসে বিশ্বজুড়ে চলছে অশান্তি সৃষ্টির পাঁয়তারা। মধ্যপ্রাচ্য থেকে ইসলামের নামে সন্ত্রাসবাদ ও জঙ্গিবাদ ইদানীং আমাদের দেশের মতো শান্তিপ্রিয় মানুষের অবস্থান অস্থিতিশীল করে তুলছে, যা কখনও সুস্থ সমাজ ব্যবস্থায় কাম্য নয়। স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশে সহিংসতা কেউ আশা করে না। কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য, আমরা ধর্মের নামে অসহিঞ্চু একটা কঠিন সময়ের মুখোমুখি।
তবে সময় যত কঠিন হোক, এ অবস্থা থেকে উত্তরণের মাধ্যমে প্রমাণ করতে হবে, আমরা শান্তি চাই, অশান্তি চাই না। শুধু সরকার নয়, জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে জাতীয় ঐক্যের মাধ্যমে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ মোকাবেলা করতে হবে। আমাদের মধ্যে রাজনৈতিক বিভেদ থাকতে পারে, কিন্তু জাতীয় স্বার্থে এসব ভুলে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।
জঙ্গি দমনে বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যদের তথ্য সংগ্রহ এবং বিশ্লেষণ আরও বিচক্ষণতার সঙ্গে সম্পন্ন হওয়া উচিত। প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক সংবাদ মাধ্যম এবং অনলাইনসহ অন্যান্য জনপ্রিয় গণযোগাযোগ মাধ্যমে সচেতনতামূলক প্রচারণার মাধ্যমে সামাজিক আন্দোলন সময়ের দাবি। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষক-শিক্ষার্থী, জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক নেতা, এনজিও-সামাজিক সংগঠনের মাধ্যমে জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে উদ্যোগী হতে হবে। জঙ্গি দমনে অনলাইন মাধ্যমে কঠোর নজরদারির ব্যবস্থা করা প্রয়োজন। তবে সবার আগে প্রয়োজন পারিবারিক বন্ধন শক্তিশালী করে পরিবারের সদস্যদের মধ্যকার সম্পর্ক সুদৃঢ় করা। সবাইকে তাদের সন্তানের প্রতি সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে, যাতে তারা কোনোভাবেই বিপথগামী না হয় বা সঠিক পথ না হারায়।
জঙ্গিবাদ প্রতিরোধে সরকারের গৃহীত সচেতনতা ও সক্ষমতা কেবল সবার অংশগ্রহণ ও আন্তরিকতায় সফল হতে পারে। আমরা সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদমুক্ত বাংলাদেশ চাই। ধর্মীয় মূল্যবোধ ধারণ করে দেশ ও মানুষের কল্যাণ চাই। চাই শান্তি-স্বস্তি-সামাজিক বন্ধনে সহনশীল পরিবেশে বাঁচতে।
[email protected]



আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত