ইয়াসিন রহমান    |    
প্রকাশ : ১৬ জুলাই, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
পুরান ঢাকার ইলেকট্রিক মার্কেটে নিম্নমানের পণ্য
পুরান ঢাকার ইলেকট্রিক মার্কেটগুলোতে নকল ও নিম্নমানের পণ্য বিক্রি হচ্ছে। চায়না থেকে আমদানি করা এসব পণ্য আসল ব্র্যান্ডের বলে পাইকারি এবং খুচরা মূল্যে বিক্রি করছে একশ্রেণীর অসাধু ব্যবসায়ী। এসব পণ্য বিক্রিও হচ্ছে উচ্চমূল্যে। এতে প্রতিনিয়ত প্রতারিত হচ্ছেন সাধারণ ক্রেতারা। এছাড়া ভুয়া ওয়ারেন্টির কারণে অতিরিক্ত অর্থ খরচ ও ভোগান্তি রয়েছেই।
অনুসন্ধানে জানা গেছে, পুরান ঢাকার পাটুয়াটুলি, নবাবপুর, গুলিস্তান ও চকবাজারসহ রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে রয়েছে ইলেকট্রিক পণ্যের খুচরা ও পাইকারি মার্কেট। যেখানে দেদারসে নকল এবং নিম্নমানের বৈদ্যুতিক পাখা, পানির পাম্প, বাল্ব, টিউব লাইট, বিভিন্ন ব্র্যান্ডের সুইচ, সকেট, কাটআউট, হোল্ডার, রেগুলেটর, মাল্টিপ্লাগ বৈদ্যুতিক তারসহ নানা পণ্য বিক্রি হচ্ছে।
সরেজমিন গুলিস্তান সুন্দরবন স্কোয়ার সুপার মার্কেট ঘুরে প্রায় প্রতিটি দোকানেই নিম্নমানের ইলেকট্রিক পণ্য বিক্রি করতে দেখা গেছে। মার্কেটের নিচতলা থেকে তৃতীয়তলা পর্যন্ত সবক’টি দোকানে বৈদ্যুতিক তার, বাল্ব, পাখাসহ বিভিন্ন ধরনের পণ্য পাইকারি ও খুচরা বিক্রি করা হয়। সেখানে রাজধানীর বিভিন্ন স্থান থেকে আসা ক্রেতাদের পণ্যগুলো আসল বলে বিক্রি করতে দেখা গেছে। এছাড়া মার্কেটের নিচতলায় মেসার্স রাকিব এন্টারপ্রাইজ ঘুরে নামিদামি বিভিন্ন ব্র্যান্ডের বৈদ্যুতিক পাখা বিক্রি করতে দেখা গেছে। যার সবই নিম্নœমানের; কিন্তু ক্রেতাদের এসব পণ্য আসল বলে বিক্রি করছে বিক্রেতারা। এছাড়া মার্কেটের নিচতলায় বিভিন্ন কোম্পানির নিম্নমানের বৈদ্যুতিক বাল্ব, বৈদ্যুতিক সুইচ, সকেট, মাল্টিপ্লাগ বিক্রি করছেন ব্যবসায়ীরা।
কথা হল মো. ফরহাদ হোসেন নামে এক ক্রেতার সঙ্গে। তিনি জানান, চার মাস আগে তিন হাজার টাকায় জেএফসি বৈদ্যুতিক পাখা কেনেন তিনি। কিন্তু কয়েকদিনের মধ্যেই পাখাটির সমস্যা দিতে শুরু করে। পরে হঠাৎ করেই পাখাটি বন্ধ হয়ে যায়। মিস্ত্রিকে দেখালে পাখাটি নকল বলে জানান তিনি। এক বছরের ওয়ারেন্টি দিলেও বিক্রেতারা পাখাটি বদলে দিচ্ছে না। এখন খরচ দিয়ে মেরামত করতে হবে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক বিক্রেতা জানান, অনেক সময় পণ্য আসল বলে বিক্রি করতে হয়। আবার অনেকে বুঝে শুনেই এসব পণ্য নিয়ে যায়।
স্টেডিয়াম ইলেকট্রিক মার্কেটের ব্যবসায়ী আলী আহমদ যুগান্তরকে বলেন, পাটুয়াটুলি ও গুলিস্তানসহ পুরান ঢাকার বিভিন্ন স্থানে চায়না থেকে আমদানি করা বিভিন্ন ব্র্যান্ডের হুবহু নিম্নমানের বৈদ্যুতিক পাখা বিক্রি হচ্ছে; যা কিছুদিন ভালো সার্ভিস দিলেও কয়েকদিনের মধ্যে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। পুরান ঢাকাজুড়ে একাধিক নিম্নমানের বৈদ্যুতিক ‘তার’ তৈরির কারখানা রয়েছে।
এদিকে পানি তোলার মোটর বিক্রির একটি বৃহত্তর এলাকা পুরান ঢাকার নবাবপুর। যেখানে আসলের সঙ্গে নিম্নমানের মোটর বিক্রি করছে বিক্রেতারা। এতে প্রতারণার শিকার হচ্ছেন ক্রেতারা। সরেজমিন রাজধানীর পুরান ঢাকার নবাবপুর রোড ঘুরে এমন অনেক মোটরের দোকান লক্ষ্য করা গেছে। সেখানে সুযোগ পেলেই আসলের নামে নিম্নমানের মোটর বিক্রি করা হচ্ছে। এনিয়ে ক্রেতা-দোকানি প্রায়ই কথা কাটাকাটি করতে দেখা যায়।
১৬৫ নবাবপুর রোডে সেন্ট্রাল ইলেকট্রিক মার্কেটের এসএফ এন্টারপ্রাইজে গিয়ে দেখা যায়, বিভিন্ন ধরনের মোটর বিক্রি হচ্ছে সেখানে। ৮ থেকে ২৫ হাজার টাকা পর্যন্ত বিভিন্ন ধরনের মোটর রয়েছে। নামি মোটরের সঙ্গে অনেক বেনামি মোটরও বিক্রি হচ্ছে।
এখানে লক্ষ্মীবাজার থেকে আসা সোহান আহমেদ নামে এক ক্রেতাকে মোটর নিয়ে দোকানির সঙ্গে কথা কাটাকাটি করতে দেখা গেছে। জানতে চাইলে তিনি বলেন, ৫ মাস আগে ভালো ব্র্যান্ডের একটি পানির মোটর কিনেছিলেন; কিন্তু হঠাৎ করেই অকেজো হয়ে যায়। এক বছরের ওয়ারেন্টি থাকা সত্ত্বেও মেরামত করতে হবে। এক হাজার টাকা দাবি করছে তারা। ওয়ারী থেকে অকেজো মোটর নিয়ে আসা মো. শাহাবুদ্দিন জানান, তিনি ১ মাস আগে নবাবপুর রোডের মোটরের দোকান থেকে একটি মোটর কিনেছিলেন। মাস যেতেই সেটা অকেজো হয়ে পড়ে।




আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত