প্রকাশ : ২৪ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
প্রশাসনে পদোন্নতিবঞ্চনা
যোগ্যতা ও দক্ষতার মূল্যায়ন হওয়া উচিত
প্রশাসনের বিভিন্ন স্তরে পদোন্নতির পরপর বঞ্চিতদের ক্ষোভ ও হতাশার বিষয়টি আলোচনায় এসেছে। যোগ্যতাসম্পন্ন কোনো কর্মী পদোন্নতিবঞ্চিত হলে কেবল যে ক্ষোভ সৃষ্টি হয় তা-ই নয়, এতে প্রশাসনে স্থবিরতাও দেখা দেয়, যা দেশের উন্নয়নে নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে। বৃহস্পতিবার উপসচিব পদের ১৯৬ কর্মকর্তাকে যুগ্ম সচিব হিসেবে পদোন্নতি দিয়েছে সরকার। এক্ষেত্রেও উল্লেখযোগ্যসংখ্যক কর্মকর্তার পদোন্নতিবঞ্চিত হওয়ার অভিযোগ উঠেছে। যোগ্যতা থাকা সত্ত্বেও কাক্সিক্ষত পদোন্নতি না হওয়ায় হতাশা প্রকাশ করেছেন অনেকে। পদোন্নতির প্রজ্ঞাপন কেন গভীর রাতে জারি করা হল, এ নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে।
যুগ্ম সচিবের স্থায়ী পদ ৪৩০টি থাকলেও পদোন্নতির পর বর্তমানে জনপ্রশাসনে যুগ্ম সচিব হয়েছেন ৮৪২ জন। ফলে যুগ্ম সচিব পদে শিগগিরই কাজের সুযোগ মিলবে না পদোন্নতিপ্রাপ্ত অনেক কর্মকর্তার। তাদের অধিকাংশকেই জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হয়ে থাকতে হবে। অনেক কর্মকর্তাকে আগের পদেই কাজ করতে হবে। বিপুলসংখ্যক কর্মকর্তার পদোন্নতিতে কোনো জটিলতা সৃষ্টি হবে কিনা, এটিও এক প্রশ্ন। সরকারি কোষাগারে বাড়তি চাপের বিষয়টি নিয়েও আলোচনা হচ্ছে। রাজনৈতিক বিবেচনায় পদোন্নতির পাশাপাশি শাস্তিমূলক ‘ওএসডি’র বিষয়টি ব্যাপক আলোচিত। এ প্রবণতা প্রশাসনের ক্ষতি ছাড়া সুফল বয়ে আনে না।
কিছুদিন আগে যুগ্ম সচিব থেকে অতিরিক্ত সচিব পদে পদোন্নতির প্রজ্ঞাপন জারির পর কেউ কেউ অভিযোগ করেছেন, অনেকে বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের সময় মন্ত্রীদের একান্ত সচিব বা এ ধরনের গুরুত্বপূর্ণ পদে কর্মরত থাকায় পদোন্নতিবঞ্চিত হয়েছেন। এর আগে বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের সময়েও পদোন্নতির ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্যসংখ্যক কর্মকর্তা বঞ্চনার অভিযোগ এনেছিলেন। তাদের অভিযোগ ছিল, আগের আওয়ামী লীগ সরকারের সময় বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করার কারণেই তাদের পদোন্নতি থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে। বিগত বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের আমলে যেসব যোগ্য কর্মকর্তা বঞ্চিত ছিলেন, তারা বর্তমান সরকারের আমলে পদোন্নতি পাবেন, এটি ছিল তাদের প্রত্যাশা। কিন্তু এবারেও পদোন্নতিবঞ্চিত হওয়ায় তারা হতবাক হয়েছেন।
সরকার পরিবর্তনের পর আগের সরকারের গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালনকারীদের পদোন্নতি থেকে বঞ্চিত করা হলে দক্ষ ও পেশাদার কর্মকর্তার অভাবে জনপ্রশাসনে স্থবিরতা সৃষ্টি হতে পারে। পক্ষপাতদুষ্টতার কারণে যোগ্য কর্মকর্তারা পদোন্নতিবঞ্চিত হলে জনপ্রশাসনে নানামুখী সংকট সৃষ্টি হবে। দক্ষ ও পেশাদার কর্মকর্তার অভাবে বিভিন্ন ক্ষেত্রে লক্ষ্য অর্জনে বহুমুখী জটিলতা সৃষ্টি হবে। দেশে দক্ষ ও গতিশীল প্রশাসন ব্যবস্থা গড়ে না উঠলে সামগ্রিকভাবে পিছিয়ে পড়বে দেশ। কাজেই প্রশাসনের সব স্তরে পদোন্নতির ক্ষেত্রে প্রকৃত দক্ষ ও মেধাবীদের যথাযথ মূল্যায়ন নিশ্চিত করতে হবে।



আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত