• মঙ্গলবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০
যুগান্তর ডেস্ক    |    
প্রকাশ : ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
সুচির সমালোচনায় বিশ্ব নেতারা
মিয়ানমারে সেনা প্রশিক্ষণ বাতিল যুক্তরাজ্যের * সুচিকে অবশ্যই সংকট নিরসন করতে হবে -মার্কিন সিনেটর
মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সুচির জাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণের কঠোর সমালোচনা করেছেন বিশ্বনেতারা। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্যসহ বিভিন্ন দেশ এবং জাতিসংঘ ও অ্যামনেস্টির মতো প্রভাবশালী সংস্থার নেতা ও কূটনীতিকরা মিয়ানমারে ‘জাতিগত নির্মূল’র তীব্র নিন্দা জানান। অবিলম্বে সহিংসতা ও গণহত্যা বন্ধে দ্রুত উদ্যোগ নেয়ার আহ্বানও জানান তারা। খবর বিবিসি, এএফপিসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের।
খবরে বলা হয়, মঙ্গলবার দেয়া ভাষণে অং সান সুচি মানবাধিকার লঙ্ঘনের নিন্দা জানালেও তার দেশের সেনাদের চালানো নির্মমতা সম্পর্কে এবং রাখাইনে জাতিগত নিধনের ব্যাপারে কোনো মন্তব্য করেননি। অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল সুচির বক্তব্যকে অসত্য ও ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিদের দোষারোপের মিশ্রণ বলে অভিহিত করে। সংস্থাটি বলে, তার সেনাদের মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনায় তিনি ‘বালিতে তার মাথা গুঁজে রেখেছেন।’
মার্কিন সেক্রেটারি অব স্টেট রেক্স টিলারসন মঙ্গলবার সুচিকে ফোন করে রাখাইনে সহিংসতায় আক্রান্তদের ত্রাণ সহায়তা এবং সেখানে মানবাধিকার লংঘনের অভিযোগের দিকে নজর দিতে বলেছেন। অন্যদিকে মার্কিন সিনেট ফরেন রিলেশনশিপ কমিটির চেয়ারম্যান বব করকার এক বিবৃতিতে বলেন, সুচিকে অবশ্যই মিয়ানমারের রোহিঙ্গা সংকট নিরসন করতে হবে। সংখ্যালঘু রোহিঙ্গাদের পাশে দাঁড়ানোর আরেকটি সুযোগ এখনও তার রয়েছে বলে মনে করেন তিনি।
জাতিসংঘ সাধারণ অধিবেশনে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোন বলেন, মিয়ানমারে সেনা অভিযান অবশ্যই বন্ধ করতে হবে। মানবাধিকার সহায়তা প্রদানকারী দলগুলোকে সেখানে প্রবেশ করতে দিতে হবে এবং জাতিগত নিধন বন্ধ করে আইনের শাসন পুনঃপ্রতিষ্ঠা করতে হবে।
জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস মিয়ানমারের প্রতি সেনা অভিযান বন্ধের আহ্বান জানিয়েছে।
তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী রিসেপ তায়েপ এরদোগান আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি সংকটের ত্বরিত সাড়া দেয়ার জন্য আহ্বান জানিয়ে বলেন, যদি এখনই ট্র্যাজেডির সমাপ্তি ঘটাতে না পারি তবে মানবতাকে ইতিহাসের আরেকটি কলঙ্কজনক অধ্যায়ে বসবাস করতে হবে।
যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মে বলেন, রাখাইনে সেনা অভিযান বন্ধ করতে হবে এবং যুক্তরাজ্য মিয়ানমারের সেনাবাহিনীকে প্রশিক্ষণ দেয়ার কর্মসূচি বাতিল করছে।
নাইজেরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুহাম্মদু বুহারি মিয়ানমারে জাতিগত নিধনকে বসনিয়া ও রুয়ান্ডার গণহত্যার সঙ্গে তুলনা করেছেন। তিনি রোহিঙ্গাদের মর্যাদার সঙ্গে ফিরিয়ে নেয়ার জন্য সুচি সরকারের প্রতি আহ্বান জানান। এদিকে রোহিঙ্গাদের ওপর নৃশংসতার নিরপেক্ষ তদন্ত করতে জাতিসংঘের মানবাধিকার সংস্থার আহ্বানে সাড়া দিতে মিয়ানমারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে ইসলামী সহযোগিতা সংস্থা- ওআইসি। নিউইয়র্কে ওআইসি কনটাক্ট গ্রুপের এক বৈঠক শেষে এ আহ্বান জানানো হয়। অন্যদিকে মিয়ানমারে রোহিঙ্গা গণহত্যা নিরসনে ভূমিকা রাখতে ওআইসিকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানায় পাকিস্তান।
প্রসঙ্গত, ২৫ আগস্ট রোহিঙ্গা বিদ্রোহীরা মিয়ানমারে পুলিশ চৌকি ও সেনাক্যাম্পে হামলা করেছে- এমন অভিযোগে দেশটির সেনাবাহিনী রোহিঙ্গা মুসলিমদের ওপর নৃশংস দমন-পীড়ন শুরু করে। ইতিমধ্যে হত্যা, নির্যাতন থেকে বাঁচতে বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছেন ৪ লাখ ১০ হাজারের বেশি রোহিঙ্গা মুসলিম। জাতিসংঘ মিয়ানমারের এ বর্বর সেনা অভিযানকে ‘জাতিগত নির্মূল’ অভিযান বলে আখ্যায়িত করেছে।




আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত