যুগান্তর রিপোর্ট    |    
প্রকাশ : ১৭ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
বিচারকদের শৃঙ্খলা সংক্রান্ত বিধিমালা
৩ ডিসেম্বরের আগে প্রজ্ঞাপন জারির আশা আইনমন্ত্রীর
অধস্তন আদালতের বিচারকদের চাকরির শৃঙ্খলা সংক্রান্ত বিধিমালা নিয়ে সৃষ্ট মতপার্থক্যের অবসান হয়েছে বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক। তিনি বলেন, বিধিমালা রাষ্ট্রপতির কাছে পাঠানো হবে। রাষ্ট্রপতির অনুমতি পেলে ৩ ডিসেম্বরের আগে গেজেট প্রকাশ করতে পারব। এখন শুধু রাষ্ট্রপতির
অনুমতির অপেক্ষা। বৃহস্পতিবার রাতে আপিল বিভাগের বিচারকদের সঙ্গে বৈঠকের পর আইনমন্ত্রী এসব কথা বলেন। রাত সোয়া ৮টা থেকে ১০টা পর্যন্ত কাকরাইলে জাজেস কমপ্লেক্সে ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহহাব মিঞার বাসভবনে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।
আইনমন্ত্রী আনিসুল হক আরও বলেন, নিন্ম আদালতের বিচারকদের চাকরির শৃঙ্খলা ও আচরণবিধির বিষয়ে কিছু মতপার্থক্য ছিল। সাংবাদিকদের তিনি বলেন, খুব আনন্দের সঙ্গে জানাচ্ছি, যেসব মতপার্থক্য ছিল, সেসব দূর হয়েছে। শৃঙ্খলাবিধির ব্যাপারে ঐকমত্য হয়েছে। এখন বিধিমালার খসড়া রাষ্ট্রপতির কাছে পাঠানো হবে এবং তার অনুমোদন পেলে গেজেট প্রকাশ করা হবে। আশা প্রকাশ করে তিনি বলেন, ৩ ডিসেম্বর আদালতে শুনানির আগেই গেজেট প্রকাশ করা হতে পারে।
এক প্রশ্নের জবাবে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, আজকের বৈঠকে পাঁচজন বিচারপতিই উপস্থিত ছিলেন। সবকিছু আলোচনা করে সবার মতামত নিয়েছি। ব্যাপারটা ছিল অল্প কয়েকটি বিষয় নিয়ে মতপার্থক্য। আমাদের কাছে যা যুক্তিসঙ্গত মনে হয়েছে, তা আমরা উভয়পক্ষ মেনে নিয়েছি। এ কারণেই খুব তাড়াতাড়ি এটার নিরসন হয়েছে।
নিন্ম আদালতের বিচারকদের চাকরির শৃঙ্খলাসংক্রান্ত বিধিমালা প্রণয়ন করার বিষয়ে গেজেট নিয়ে ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহহাব মিঞাসহ আপিল বিভাগের বিচারপতিদের সঙ্গে আইনমন্ত্রী আনিসুল হকের বৈঠক হওয়ার কথা ছিল ৯ নভেম্বর। ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতিসহ সুপ্রিমকোর্টের আপিল বিভাগের বিচারপতিদের সঙ্গে বসার একদিন আগেই আইন মন্ত্রণালয় থেকে বৈঠক পেছানোর তথ্য জানানো হয়।
৫ নভেম্বর অধস্তন আদালতের বিচারকদের চাকরির শৃঙ্খলাসংক্রান্ত বিধিমালা গেজেট নিয়ে মামলার শুনানিতে আপিল বিভাগের বিচারপতিদের সঙ্গে আইনমন্ত্রী আনিসুল হকের বসার কথা জানান অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। তিনি বলেন, ‘বৃহস্পতিবার (৯ নভেম্বর) বিচারপতিদের সঙ্গে আইনমন্ত্রীর বৈঠকের সম্ভাব্য দিন নির্ধারণ করা হয়। তা আবার পিছিয়ে ১৬ নভেম্বর দিন ঠিক করা হয়।’ এর আগে ৩০ জুলাই সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা বৈঠকে বসার জন্য আইনমন্ত্রী আনিসুল হকের প্রতি আহ্বান জানিয়েছিলেন। এর জবাবে সেদিনই আইনমন্ত্রী টেলিফোনে প্রধান বিচারপতির সঙ্গে কথা বলেন এবং ৩ আগস্ট বৈঠকের দিন নির্ধারণ করেন। কিন্তু আইনমন্ত্রী অসুস্থ থাকায় নির্ধারিত দিনে বৈঠক হয়নি। এ অবস্থায় এসকে সিনহা ৬ আগষ্ট আবারও বৈঠকে বসার আহ্বান জানান। কিন্তু সেই বৈঠকও হয়নি। এরই মধ্যে এসকে সিনহা ছুটি নিয়ে বিদেশ চলে যান। ৮ অক্টোবর ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহহাব মিঞা বিধিমালা নিয়ে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে বসার আগ্রহ প্রকাশ করেন। অ্যাটর্নি জেনারেলের উদ্দেশে আদালতে তিনি বলেন, আমার মনে হয় এটা (বিধিমালা) হওয়া দরকার। এটা নিয়ে বসা দরকার। কোথায় কোথায় আপত্তি আছে, সেটা খোঁজা দরকার। সময় চাচ্ছেন, সময় দিচ্ছি। তবুও এটা হওয়া দরকার। এরপর ১১ অক্টোবর ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতির সঙ্গে সুপ্রিমকোর্টে এক বৈঠক শেষে আইনমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, ‘বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়েছে। আপিল বিভাগের বিচারপতিদের সঙ্গে বসব। আশা করি আগামী নির্ধারিত তারিখের আগেই সুরাহা হবে।






আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত