বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার    |    
প্রকাশ : ২৪ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
বেতন বৈষম্য দূরীকরণের দাবি
শহীদ মিনারে আমরণ অনশনে কয়েক হাজার শিক্ষক

প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সহকারী শিক্ষকদের বেতন গ্রেড প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের পরের ধাপে নির্ধারণের দাবিতে আমরণ অনশন শুরু করেছেন কয়েক হাজার শিক্ষক। শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে এ কর্মসূচি শুরু হয়। বাংলাদেশ প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক মহাজোটের ডাকে এ অনশন চলছে। সংগঠনে সাড়ে তিন লাখ শিক্ষক রয়েছে। এর ফলে ওই এলাকায় যান চলাচলে বিঘœ সৃষ্টি হচ্ছে। সারা দেশ থেকে আসা প্রাথমিকের শিক্ষকরা এতে অংশ নিয়েছেন। সন্ধ্যায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত অনশন চলছিল। শিক্ষক নেতারা বলছেন, দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত কর্মসূচি চলবে। সকালে পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে কর্মসূচি শুরু হয়। এরপর জাতীয় সঙ্গীত গাওয়া হয়। পরে শুরু হয় বক্তৃতা। শিক্ষক নেতারা তাদের বক্তব্যে বলেছেন, বেতন বৈষম্য দূর করার ঘোষণা না দেয়া পর্যন্ত অনশন চলবে।

অনশন কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক সমাজের সভাপতি তপন কুমার মণ্ডল, সাধারণ সম্পাদক মো. আসাদুর রহমান, জাতীয় প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক ফাউন্ডেশনের সভাপতি মোসা. শাহীনুর আকতার, সাধারণ সম্পাদক আমিনুল হক ভূঁইয়া, বাংলাদেশ প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক সমাজের সভাপতি মো. আনিসুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক নূরে আলম সিদ্দিকী রবিউল, শিক্ষক নেতা শাহিনুর আল-আমিন প্রমুখ।

বক্তৃতায় শিক্ষক নেতৃবৃন্দ বলেন, প্রধান শিক্ষকদের সঙ্গে সহকারী শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য দূরীকরণে এমন কোনো কাজ নেই যা আমরা করিনি। প্রধানমন্ত্রী ও প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর বরাবর স্মারকলিপি, খোলাচিঠিসহ বিভিন্ন সভা-সেমিনার করেছি। অবশেষে আজ আমরা এমন কর্মসূচি দিতে বাধ্য হয়েছি। আমাদের এ দাবি সবাই যৌক্তিক বললেও আমলাতান্ত্রিক জটিলতায় তা বাস্তবায়ন হচ্ছে না। প্রধানমন্ত্রীকে জানানো এবং দাবি আদায়ের জন্যই আমরা এই কর্মসূচি পালন করছি।

শাহিনুর আল-আমিন বলেন, এই অনশন কর্মসূচিতে ৫০-৬০ হাজার শিক্ষক উপস্থিত আছেন। তিনি বলেন, আমরা বঙ্গবন্ধুর করা স্কেল ফেরত চাই। তিনি যোগ্যতার ভিত্তিতে স্কেল করেছিলেন। সহকারী আর প্রধানদের মধ্যে আলাদা স্কেল ছিল না। আজকে আমাদের মধ্যে তিনটি গ্রেডের পার্থক্য।

মাদারীপুরের কালকিনি থেকে আসা শিক্ষক নেতা মিজানুর রহমান যুগান্তরকে বলেন, প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের কেবলই নিচের গ্রেডে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত সহকারী শিক্ষকদের বেতন স্কেল নির্ধারণ করতে হবে। তিনি বলেন, আমরা সরকারের সহযোগী। এটা সরকারকে বিব্রত করার আন্দোলন নয়। তথ্যটি হয়তো প্রধানমন্ত্রী জানেন না। তিনি জানতে পারলে অবশ্যই সমস্যার সমাধান করবেন।


 


আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত