অর্পণ দাশগুপ্ত    |    
প্রকাশ : ২৩ জুলাই, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
সন্দেহ

এক সন্দেহগ্রস্ত গার্লফ্রেন্ড এবং তার বয়ফ্রেন্ডের কথোপকথন:

- হ্যালো, বাসে উঠেছো ঠিকঠাক মতো?

- এই তো বাবু, মাত্রই বাসে উঠলাম। একটু পরেই ছেড়ে দেবে।

- তোমার পাশের সিটে কে বসেছে?

- কে বসবে আবার? যাত্রী বসেছে।

- সেটাই তো! যাত্রী ছেলে নাকি মেয়ে? সত্যি করে বলবা!

- আরে ছেলে। এক চাচা বসেছেন। মুরুব্বি টাইপ।

- একদম মিথ্যা বলবা না! তুমি না প্রায়ই তোমার পাশের সিটের বসা মেয়েদের কাহিনী ফেসবুকে দাও। কী মনে করেছো? বুঝি না আমি? তোমার তো কন্যা রাশি!

- ইয়ে বাবু, ফেসবুকে তো ওসব বানিয়ে লিখি। সব মিথ্যা। পাবলিক সত্য ঘটনা খায় না। বানিয়ে বানিয়ে মিথ্যা ঘটনা লিখলে ঝাঁপিয়ে পড়ে।

- তাই, না? আমার সঙ্গে ফিলোসফিগিরি দেখাও! আমি শিওর তোমার পাশে মেয়েই বসছে। ওই তো একটা মেয়ের কণ্ঠ শুনতে পাচ্ছি! দাও তো, উনাকে ফোনটা দাও।

- আরে বাবু, বললাম তো আমার পাশে কোনো মেয়ে নাই। এক মুরুব্বি ভদ্রলোক বসেছেন।

- উঁহু। মিথ্যা কথা। তাহলে ফোনটা ওই মুরুব্বিকে দাও!

- এইটা কি বললা তুমি? যাকে চিনি না জানি না, শ্রদ্ধেয় মুরুব্বি মানুষ, তাকে বলবো আমার গার্লফ্রেন্ডের সঙ্গে কথা বলেন? ইম্পসিবল! আমি পারব না!

- তাই, না? এখন আমি পুরোপুরি শিওর, তোমার পাশে অবশ্যই কোনো সুন্দরী মেয়ে বসেছে। না হলে এইভাবে ইগনোর করতা না। ওই মুরুব্বি ব্যাটা কি তোমার শ্বশুর

লাগে? ফোন দাও বলছি উনাকে!

- ইয়ে বাবু, প্লিজ। উনি দেখতেই অনেক রাগী রাগী। যখন-তখন ধমক দিয়ে বসতে পারে।

- এসব রাগী মানুষ কম দেখি নাই, আমার বাবাও অনেক রাগী! উনাকে ফোনটা দিবা? নাকি আমার সঙ্গে আর থাকতে চাও না? নাকি আমাকে আর ভাল্লাগতেছে না, আমার কথার কোনো দাম নাই?

- আচ্ছা দিচ্ছি।

- ভিডিও কল দিবা তুমি। যাও ইমোতে ঢোকো!

- কিহ! ভিডিও কল?

- ইয়েস! তুমি গুটিবাজিও করতে পারো, বলা যায় না। দ্রুত দিবা নাকি রিলেশন ব্রেকআপ করবো??

- ইয়ে, আচ্ছা দিচ্ছি। দুই মিনিট ওয়েট।



২ মিনিট পর

ছেলেটা তার পাশের সিটের মুরুব্বিটাকে বুঝিয়ে সুঝিয়ে ইমো ওপেন করে ভিডিও কলে ক্লিক করে ফোনটা হাতে দিল। আর বললো, প্লিজ আংকেল, আমার গার্লফ্রেন্ডকে জাস্ট একটা হাই দিবেন। গার্লফ্রেন্ডই অবশ্য আগে হাই দিল...

- হাই আংকেল!! একটু ফ্রন্ট ক্যামেরার দিকে ভালো করে তাকান তো দেখি! কই আরেকটু, আপনার মুখটা ঠিক স্ক্রিনে আসছে না।

- হ্যাঁ মা, এখন দেখা যাচ্ছে?

ভিডিও কলে দুজনের চোখে চোখ পড়তেই হঠাৎ দুজন চমকে উঠল! তাদের মাথায় যেন আকাশ ভেঙে পড়ল! মেয়েটা চিৎকার দিয়ে

বলে উঠল ঃ ‘বাবা তুমি?’

বাবাও টাশকি খেয়ে বললঃ ‘চুমকি তুই?’


 


আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত