প্রকাশ : ২১ আগস্ট, ২০১৬ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
এআই : হকিং, মাস্কের বিপরীতে জাকারবার্গ
কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার বিষয়ে নিজের অবস্থান ব্যাখ্যা করেছেন বিশ্বের সবচেয়ে বড় সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুক প্রধান মার্ক জাকারবার্গ। অনেকগুলো ভিন্ন দিক থেকে এটি অনেক সম্ভাবনা খুলে দিচ্ছে বলে মত দিয়েছেন তিনি।
‘হাও টু বিল্ড দ্য ফিউচার’ নামের এক ভিডিও সিরিজে কথা বলা সময় তিনি জানান, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাকে একটি বিপজ্জনক প্রযুক্তিগত উন্নয়ন হিসেবে দেখা উচিত নয়। বরং, একে তিনি একটি টুল হিসেবে দেখেন যা জীবন বাঁচাতে সহায়তা করবে। এক্ষেত্রে তিনি রোগ নির্ণয়, রোগ প্রতিকারে উন্নত ওষুধ বের করা আর আগের চেয়ে নিরাপদ স্বচালিত গাড়ির সিস্টেমে এর ব্যবহারের কথা উল্লেখ করেন বলে জানিয়েছে ব্রিটিশ ট্যাবলয়েড মিরর।
ওই সাক্ষাৎকারে জাকারবার্গ বলেন, ‘আমি এই সম্মেলনে সম্প্রতি একটি কাহিনী শুনেছি যে- কেউ একজন এমন একটি মেশিন লার্নিং অ্যাপ্লিকেশন বানিয়েছে, যা দিয়ে কারও ত্বকে কোনো ক্ষত থাকলে তার ছবি নেওয়া যাবে আর ওই ক্ষত ক্যান্সার কিনা তা এটি বিশ্বের সেরা ত্বক বিশেষজ্ঞ ও ডাক্তারদের মতো সঠিকভাবে নির্ণয় করতে পারবে।’
এখন আপনি আপনার ডাক্তারকে বিশ্বের সবচেয়ে ভালো ডাক্তার হতে তার হাতে এমন ক্ষমতা দিতে সক্ষম। প্রত্যেকেই বিশ্বের সেরা ডাক্তার হবেন আর এটি আসলেই একটি মৌলিক বিষয়।
জাকারবার্গ এআই নিয়ে কাজ করার জন্য সুপরিচিত। ইতোমধ্যে এই প্রযুক্তি ফেইসবুকের ফিল্টার ব্যবস্থায় ভালভাবেই ব্যবহৃত হচ্ছে। এর মাধ্যমে ব্যবহারকারীদের জন্য আগের চেয়ে বেশি উপযুক্ত কনটেন্ট আর তারা খবর রাখতে চান এমন মানুষদের প্রদর্শন করা হচ্ছে। সেই সঙ্গে ২০১৫ সালে একটি এআই সহযোগী বানাতেও কাজ করেন তিনি। এই সহযোগী তাকে তার বাসা নিয়ন্ত্রণ করতে সহায়তা করবে, এমনকি সহায়তা করবে তার নাশতা বানাতেও।
অন্যদিকে, এআই সবসময়ের জন্য ভালো হবে, এমন ধারণা যে সবাই পোষণ করেন তাও নয়। একদিন এআই মানবজাতি ধ্বংস করে দিতে পারে বলে সতর্ক করেছেন ব্রিটিশ তাত্ত্বিক পদার্থবিদ ও মহাকাশবিদ স্টিফেন হকিং।
হকিং তার ব্যাখ্যায় বলেন, ‘একবার যখন যন্ত্র এমন জায়গায় পৌঁছে যাবে যে, তারা নিজেরাই তাদের বিবর্তন ঘটাতে পারবে, তখন তাদের লক্ষ্য আর আমাদের লক্ষ্য একই হবে এমনটা আমরা আগে থেকেই বলতে পারি না। মানবজাতি অপেক্ষা এআই আরও দ্রুত বিবর্তনের সম্ভাবনা রাখে।’ অনেকটা একই ধরনের আশংকা প্রকাশ করেছেন নানা উদ্ভাবনী ধারণা দিয়ে সুপরিচিত হয়ে ওঠা প্রযুক্তিবিদ ও বৈদ্যুতিক গাড়ি নির্মাতা মার্কিন প্রতিষ্ঠান টেসলা আর মহাকাশ গবেষণা প্রতিষ্ঠান স্পেসএক্স প্রধান ইলন মাস্কও। এআই খাতে উন্নয়নকে ‘দানব ডেকে আনা’র সঙ্গে তুলনা করেছেন তিনি। এ দিকে, মাস্ক আর হকিংয়ের এমন উদ্বেগ-কে কানে নেননি জাকারবার্গ। তিনি বলেন, ‘আমি কিছুটা হতাশ হয়ে পড়ি, যখন দেখি মানুষ এআই আর এটি কীভাবে মানুষকে অযথা ভয় পায় আর এটি কীভাবে মানুষের ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া শেষ করে দেয়, কারণ রোগ সম্পর্কিত আরও নিরাপদে গাড়ি চালানোর মতো অনেক বাস্তব পথে এর কিছু উপায় আছে বলে আমার ধারণা। আমি বলতে চাই, এটি মানুষের জীবন বাঁচাতে আর অনেক মানুষকে সামনে এগিয়ে দিতে যাচ্ছে।’
-আইটি ডেস্ক



আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত