ইসরাফিল    |    
প্রকাশ : ১১ আগস্ট, ২০১৬ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
বাংলাদেশ ব্যাংকের সহকারী পরিচালক পদে লিখিত পরীক্ষার প্রস্তুতি

অনেকেরই ইচ্ছা ব্যাংকে চাকরি করার। আর ব্যাংকে চাকরি করার আগ্রহীদের মধ্যে পছন্দের প্রথমেই থাকে বাংলাদেশ ব্যাংক। ইতিমধ্যে অনেকেই বাংলাদেশ ব্যাংকের সহকারী পরিচালক পদে নিয়োগ পরীক্ষায় এমসিকিউ টেস্ট দিয়েছেন। আর সম্প্রতি এর ফলাফলও প্রকাশ হয়েছে। এই পরীক্ষায় যেসব প্রার্থী উত্তীর্ণ হয়েছেন তাদের জন্য পরিকল্পনামাফিক লিখিত পরীক্ষার প্রস্তুতি শুরুর উপযুক্ত সময় এখনই।

এদিকে বাংলাদেশ ব্যাংকের ‘সহকারী পরিচালক পদের জন্য চৌকস জ্ঞানসম্পন্ন প্রার্থী আশা করে রাষ্ট্রয়াত্ত এই ব্যাংকটি। তাই নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্নপত্র সেভাবে সাজানো হয়ে থাকে। আর এই নিয়োগ পরীক্ষার প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে হলে প্রতিটি বিষয়েই ভালো নম্বর তোলা জরুরি। তাই এই সময়কে কাজে লাগিয়ে লিখিত পরীক্ষার প্রস্তুতি ভালোভাবে গ্রহণ করে আপনি হতে পারেন বাংলাদেশ ব্যাংকের ‘সহকারী পরিচালক (জেনারেল সাইড)’ পদের একজন কর্মকর্তা। সেজন্য বিগত বছরগুলোর লিখিত পরীক্ষার ধরন অনুযায়ী জানা গেছে, নির্ধারীত ২ ঘণ্টা সময়ের মধ্যে ২০০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষা হয়ে থাকে। এই ২০০ নম্বরের মধ্যে যা যা রয়েছে তা হল- ইংরেজিতে focused writing/essay 30 নম্বর, creative writing এ 30 নম্বর reading comprehension এ ৩০ নম্বর, গণিতে ৩০ নম্বর, বাংলায় নির্ধারিত বিষয়ের ওপর রচনায় ৩০ নম্বর এবং বাংলা থেকে ইংরেজিতে অনুবাদে ২৫ নম্বর ও ইংরেজি থেকে বাংলায় অনুবাদে ২৫ নম্বরের পরীক্ষা হয়ে থাকে।

ইরেজি : ইংরেজিতে focused writing, creative writingও বাংলায় নির্ধারিত বিষয়ের ওপর রচনা সাধারণত কোনো জাতীয়, সামাজিক, রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক বা আন্তর্জাতিক ইস্যু/সমস্যা ইত্যাদি বিষয়ের ওপর সাধারণ আলোচনা, মতামত বা কাল্পনিক দুই ব্যক্তির মধ্যে সংলাপ আকারে লিখতে চাওয়া হয়। প্রতিটি ৩০ নম্বরের প্রশ্নের উত্তরের জন্য সর্বোচ্চ ১-২ পৃষ্ঠা নির্ধারিত জায়গা বরাদ্দ থাকে। অল্প কথায় সঠিক ব্যাকরণে যথাযথ তথ্য ও যুক্তি উপস্থাপনসহ গুছিয়ে লেখাটা জরুরি। এ ক্ষেত্রে প্রস্তুতির জন্য বাংলা ও ইংরেজি জাতীয় দৈনিকগুলোর পাশাপাশি দু-একটি আন্তর্জাতিক পত্রিকা/সাময়িকী নিয়মিত পড়া এবং পরীক্ষার হলে প্রতিটি লেখা শুরু করার আগে অল্প সময় নিয়ে লেখার কাঠামোটা মনে মনে ঠিক করে তারপর লেখা শুরু করলে ভালো হবে। ইংরেজি reading comprehension-এ সাধারণত ৫টি প্রশ্ন থাকে। এ ক্ষেত্রে comprehensionটি ভালো করে পড়ে সংক্ষেপে যথাযথ (to-the-point) উত্তর করা ভালো। নিজের ধারণা থেকে নয়, বরং comprehension থেকে উত্তর করা উচিত।

গণিত : গণিতে সাধারণত ৩টি সমস্যার সমাধান চাওয়া হয়। এ ক্ষেত্রে নবম-দশম শ্রেণীর সাধারণ গণিত মানের সমস্যাগুলো অনুশীলন করলে ভালো ফল পাওয়া যাবে। ।

অনুবাদ : বাংলা ও ইংরেজি অনুবাদসমূহ সাধারণত বাক্য আকারে না হয়ে অনুচ্ছেদ আকারে হয়ে থাকে। এ ক্ষেত্রে যথাযথ শব্দচয়নে শুদ্ধ বাক্য গঠন জরুরি। অনুবাদকৃত অনুচ্ছেদটি যেন মূল অনুচ্ছেদের বক্তব্য ও ভাবকে যথাযথভাবে প্রতিফলিত করে, সে বিষয়ে খেয়াল রাখতে হবে। প্রস্তুতির জন্য দৈনিক সংবাদপত্র থেকে প্রতিদিন দু-একটি বাংলা সংবাদকে ইংরেজিতে অনুবাদ ও ইংরেজি সংবাদকে বাংলায় অনুবাদের অনুশীলন বেশ উপকারে আসতে পারে। এই বিষগুলোর দিকে নজর রাখলে পরীক্ষা আশানুরূপ ফলাফল করা যাবে।


 


আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত