মোহাম্মদ আতাউর রহমান    |    
প্রকাশ : ২১ জুলাই, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
স্বপ্নের ক্যারিয়ারের হাতছানি

তরুণ প্রজন্মের পছন্দের চাকরিগুলোর মধ্যে ব্যাংকিং সেক্টর শীর্ষে অবস্থান করছে। এর প্রধান কারণগুলো হল- ব্যাংকিং সেক্টরে কাজের ভালো পরিবেশ রয়েছে। বেতন কাঠামো ইর্ষণীয়। বছরে বেশ কয়েকটি ইনসেনটিভ পাওয়া যায়, যা অন্য বহু প্রতিষ্ঠানে নেই। ব্যাংকারদের সামাজিক মর্যাদার পাশাপাশি রয়েছে চাকরি নিরাপত্তা এবং পেনশনের ব্যবস্থা। নিয়মমাফিক ইনক্রিমেন্ট, প্রভিডেন্ট ফান্ড, গ্রাচ্যুইটি। রয়েছে হাউস লোন, কার লোনসহ নানা সুবিধা। মোটকথা কেউ ব্যাংকে চাকরি পেলে তার অর্থনেতিক নিরাপত্তা নিশ্চিত। রাষ্ট্রায়ত্ব, বিশেষায়িত ও বেসরকারি ব্যাংকগুলো প্রতি বছর প্রচুর জনবল নিয়োগ দিয়ে থাকে। এবার নতুনদের স্বপ্নের-আকর্ষণীয় ব্যাংকিং ক্যারিয়ার গড়ার সুযোগ দিচ্ছে রাষ্ট্রায়ত্ব রূপালী ব্যাংক লিমিটেড। এ লক্ষে ১৭ জুলাই বাংলাদেশ ব্যাংকের ওয়েবসাইটে রূপালী ব্যাংকে নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে। নিয়োগ প্রক্রিয়া দেখভাল করছে যথারীতি ব্যাংকার্স সিলেকশন কমিটি। আগ্রহীরা যোগ্যতা থাকা সাপেক্ষে আবেদন করতে পারেন।

কতজন নিয়োগ : প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী রাষ্ট্রায়ত্ত রূপালী ব্যাংক লিমিটেডে ৩২৮ জন অফিসার (ক্যাশ) নিয়োগ দেয়া হবে।

যোগ্যতা : যেকোনো স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে যেকোনো বিষয়ে স্নাতকোত্তর বা চার বছর মেয়াদি স্নাতক পাস প্রার্থীরা আবেদন করতে পারবেন। মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট ও তদূর্ধ্ব পর্যায়েল পরীক্ষায় সনাতন পদ্ধতিতে প্রকাশিত ফলাফলের ক্ষেত্রে ন্যূনতম দুটি প্রথম বিভাগ বা শ্রেণি থাকতে হবে। কোনো পর্যায়েই তৃতীয় বিভাগ বা শ্রেণি গ্রহণযোগ্য হবে না।

গ্রেডিং পয়েন্টে প্রকাশিত ফলাফলের ক্ষেত্রে এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় জিপিএ ৩.০০ বা তার বেশি প্রথম বিভাগ, জিপিএ ২.০০ থেকে ৩.০০-এর কম দ্বিতীয় এবং জিপিএ ১.০০ থেকে ২.০০-এর কম হলে তৃতীয় বিভাগ ধরা হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্ষেত্রে ৪ পয়েন্ট স্কেলে সিজিপিএ ৩.০০ বা বেশি হলে প্রথম বিভাগ বা শ্রেণি, ২.২৫ বা তার বেশি কিন্তু ৩.০০-এর কম দ্বিতীয়, ১.৬৫ বা তার বেশি কিন্তু ২.২৫-এর কম হলে তৃতীয় বিভাগ ধরা হবে। আর পয়েন্ট স্কেল ৫ হলে ৩.৭৫ বা এর ওপরে প্রথম বিভাগ, ২.৮১৩ থেকে ৩.৭৫-এর কম দ্বিতীয় বিভাগ এবং ২.০৬৩ বা ২.৮১৩-এর কম তৃতীয় বিভাগ হিসেবে গণ্য হবে।

বয়স : আবেদনকারীদের বয়স ১ জুলাই, ২০১৭ তারিখে অনূর্ধ্ব-৩০ বছর হতে হবে। শুধু মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রতিবন্ধীদের ক্ষেত্রে বয়সসীমা ৩২ বছর পর্যন্ত শিথিলযোগ্য।

আবেদন প্রক্রিয়া : আগ্রহী প্রার্থীরা বাংলাদেশ ব্যাংকের ওয়েবসাইটে ঢুকে অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন। আবেদন করতে কোনো টাকা পয়সা লাগবে না। অনলাইনে বাংলাদেশ ব্যাংকের ওয়েবসাইটের (https://erecruitment.bb.org.bd) মাধ্যমে আবেদন করতে হবে। প্রায় সব রাষ্ট্রায়ত্ব ও বিশেষায়িত ব্যাংকে আবেদনের একই নিয়ম। ১৫ নভেম্বর ২০০৯ বা পরবর্তী সময়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের সিভি ব্যাংকে রেজিস্ট্রেশন করা থাকলে আবার নিবন্ধন করতে হবে না, সিভি আইডেন্টিফিকেশন নম্বর এবং পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে আবেদন করা যাবে। তবে নতুন আবেদনকারীদের আবেদনের আগে নিবন্ধন করতে হবে। প্রার্থীর নাম, পিতা ও মাতার নাম এসএসসি বা সমমানের সনদে যেভাবে লেখা আছে, অনলাইন ফরমে সেভাবে পূরণ করতে হবে। ফলাফলের ঘরে পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের প্রকাশিত পরীক্ষার ফলাফলের তারিখ উল্লেখ করতে হবে। আপলোড করতে হবে ৬০০ বাই ৬০০ পিক্সেল ও সর্বোচ্চ ৮০ কিলোবাইটের ছবি এবং ৩০০ বাই ৮০ পিক্সেল ও সর্বোচ্চ ৬০ কিলোবাইটের স্বাক্ষরের স্ক্যান কপি। অনলাইনে আবেদন করার পর ট্র্যাকিং নম্বরযুক্ত ফরমটি সংরক্ষণ করতে হবে। প্রার্থীদের প্রাথমিকভাবে কোনো কাগজপত্র জমা দিতে হবে না। লিখিত পরীক্ষার পর মৌখিক পরীক্ষার সময় সব একাডেমিক পরীক্ষার সনদ, জাতীয়তার সনদ, নাগরিকত্ব সনদ, চারিত্রিক সনদের সত্যায়িত ফটোকপি দাখিল করতে হবে।

আবেদনের শেষ সময় : রূপালী ব্যাংকে ক্যাশ অফিসার পদে এরইমধ্যে শুরু হয়ে গেছে আবেদন প্রক্রিয়া। আবেদন করা যাবে ৩১ জুলাই ২০১৭ পর্যন্ত।

বেতন ও সুযোগ সুবিধা : জাতীয় বেতন স্কেল ২০১৫ অনুযায়ী ক্যাশ অফিসার পদে নিয়োগপ্রাপ্তদের প্রতি মাসে বেতন ২২ হাজার থেকে ৫৩ হাজার ৬০ টাকা স্কেলে বেতন দেয়া হবে। এ ছাড়া থাকবে ভাতা ও অন্যান্য সুবিধা।

নিয়োগ পরীক্ষা : বাংলাদেশ ব্যাংকে নিয়োগের ক্ষেত্রে সাধারণত প্রার্থীদের এমসিকিউ, লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষা নেয়া হয়। পরীক্ষার তারিখ ও সময় পরবর্তীতে ব্যাংকের ওয়েবসাইটে কিংবা বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানানো হবে।

প্রস্তুতি : এমসিকিউ ও লিখিত পরীক্ষা সাধারণত বাংলা, ইংরেজি, সাধারণ গণিত ও সাধারণ জ্ঞান (বাংলাদেশ ও আন্তর্জাতিক বিষয়াবলি), তথ্য-প্রযুক্তি, অ্যানালিটিক্যাল অ্যাবিলিটি বিষয়ে প্রশ্ন থাকে। বিগত বছরগুলোর রূপালী ব্যাংকসহ রাষ্ট্রায়ত্ব ব্যাংকগুলোর নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্ন অনুসরণ করলে এমসিকিউ ও লিখিত পরীক্ষায় ভালো করা যাবে।

রূপালী ব্যাংকে ক্যাশ অফিসার পদে নিয়োগ পরীক্ষার প্রস্তুতি কীভাবে ভালো করে নেয়া যেতে পারে এ বিষয়ে এ প্রতিবেদকের কথা হয় ব্যাংকটিতে সম্প্রতি নিয়োগ পাওয়া তিনজন কর্মকর্তার সঙ্গে। তারা জানান, সব রাষ্ট্রায়ত্ব ব্যাংকের পরীক্ষার প্রশ্নপত্র সাধারণ একই আঙ্গিকে হয়ে থাকে। রাষ্ট্রায়ত্ব ব্যাংকে বহু নির্বাচনী পরীক্ষার বাংলা অংশে ব্যাকরণ এবং সাহিত্য থেকে প্রশ্ন করা হয়। সাহিত্যে কবি-সাহিত্যিকদের জীবনী, সাহিত্যকর্ম, বিভিন্ন কবিতার চরণ, উপন্যাস বা গল্পের চরিত্র থেকে প্রশ্ন আসতে পারে। ব্যাকরণ অংশে আসে বাগধারা, এককথায় প্রকাশ, সন্ধিবিচ্ছেদ, সমাস, শব্দ, শুদ্ধ-অশুদ্ধ, সমার্থক, বিপরীতার্থক ও পারিভাষিক শব্দ। ইংরেজি বিষযে Fill in the blanks, Synoûm, antoûm, phrases and idioms, Tense, Correct Spelling, Sentence Correction, Analog থেকে প্রশ্ন আসে এমসিকিউ অংশে। একটি বিভাগ থেকে কয়েকটি করে প্রশ্ন থাকতে পারে। সমসাময়িক ইস্যুতে যাদের জানাশোনা ভালো তারা লিখিত পরীক্ষায় রচনায় ভালো করেন। তারা আরও জানান, যে অংক ভালো পারে, ব্যাংক চাকরি তার জন্য। নিয়োগ পরীক্ষায় সে অন্যের চেয়ে এগিয়ে থাকে। যেকোনো ব্যাংকের পরীক্ষায় ভালো করতে হলে মাধ্যমিক পর্যায়ের বই আয়ত্তে থাকতে হবে। বিশেষ করে ঐকিক নিয়ম, শতকরা, পরিমাপ ও একক, সুদকষা, লাভ-ক্ষতি ও পরিমিতি বিষয়ে। এ ছাড়া লসাগু-গসাগু, বর্গ, সরল, মাননির্ণয় ও জ্যামিতিক সূত্র ও সংজ্ঞা তো আছেই। আর সাধারণ জ্ঞানে ভালো করার জন্য দৈনিক পত্রিকা ও সমসাময়িক জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বিষয়গুলোতে খেয়াল রাখতে হবে।

প্রস্তুতি সহায়িকা : বিসিএসের প্রস্তুতি সহায়ক বই ব্যাংকের পরীক্ষায় অনেক কাজে আসে। মাধ্যমিক পর্যায়ের বইয়ের পাশাপাশি বিভিন্ন প্রকাশনীর ব্যাংক রিক্রুটমেন্ট গাইড দেখতে পারেন। আইবিএ-এমবিএ ভর্তি গাইড, জিম্যাট অফিশিয়াল গণিত ও ইংরেজি উভয় বিষয়ের প্রস্তুতির জন্য দেখতে পারেন। সাধারণ জ্ঞানের জন্য মাসিক তথ্যভিত্তিক পত্রিকা, তথ্যপ্রযুক্তির জন্য এইচএসসি পর্যায়ের কম্পিউটার বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বই বেশ সহায়ক হতে পারে। সাধারণ জ্ঞানের জন্য বিসিএস প্রস্তুতি সহায়ক বাজারে প্রচলিক যেকোনো একটি কোম্পানির সাধারণ জ্ঞানের বই পড়লেই যথেষ্ট।

বাড়তি যোগ্যতা : ব্যাংকার হওয়ার জন্য একাডেমিক পড়ালেখার পাশাপাশি বাড়তি যোগ্যতাও থাকা চাই। ব্যাংকে নিয়োগের ক্ষেত্রে মোটাদাগে আবেদনকারীর বিষয়গত জ্ঞান কতটা গভীর তা যাচাই করা হয়ে থাকে। তার ফাংশনাল নলেজ খতিয়ে দেয়া হয়। ভাইভাতে প্রার্থীর জড়তা ও প্রশ্নের উত্তর নিয়ে দ্বিধাদন্দ্ব নেগেটিভ মার্কিং করা হয়। এজন্য তার বাচনভঙ্গিও স্মার্ট হওয়া জরুরি। আত্মবিশ্বাস থাকা চাই অটুট। এছাড়া প্রার্থীর কমিউনিকেশন স্কিল, ইংরেজি দক্ষতা, কম্পিউটারে পারদর্শিতা, সৃজনশীলতা, নেতৃত্ব গুণাগুণ, দায়িত্ববোধ, সততা, ন্যায়নিষ্ঠা সর্বোপরি সত্যিই তিনি কাজটির জন্য উপযুক্ত কি না সে বিষয়গুলো যাচাই শেষেই চূড়ান্ত নিয়োগ দেয়া হয়।

ব্যাংকারদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ব্যাংকসহ অন্য যেকোনো চাকরিতে নিয়োগের ক্ষেত্রে আবেদনকারীদের সাবজেক্টটিভ নলেজ কতটা আছে তা গুরুত্ব দিয়ে দেখা হয়। তাই যেকোনো ব্যাকগ্রাউন্ডের শিক্ষার্থীকেই তার বিষয়গত জ্ঞানের গভীরতা অর্জন করতে হবে। প্রার্থীকে আন্তর্জাতিক অর্থনীতি ও দেশীয় অর্থনীতি নিয়ে প্রশ্ন করা হয়ে থাকে। তাই অর্থনৈতিক সূচক, অর্থনৈতিক সমীক্ষা সম্পর্কে জ্ঞান রাখতে হবে। প্রার্থীর কিছুটা হলেও ব্যাংকিং জ্ঞান থাকা চাই। এছাড়া সাধারণ জ্ঞান বিশেষ করে সাম্প্রতিক ও সমসাময়িক ঘটনাপ্রবাহে চোখ কান খোলা রাখতে হবে। আন্তর্জাতিক বিষয়গুলো থেকেও ভাইভাতে প্রশ্ন হয়ে থাকে। দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে কী পদক্ষেপ নেয়া উচিত এ ধরনের প্রশ্নও করা হয়ে থাকে। এর মাধ্যমে অর্থনীতি সম্পর্কে তার ধারণা-ভাবনা বিচারে নেয়া হয়। তাই এখন থেকেই চাকরি প্রত্যাশীদের যথাযথ প্রস্তুতি নিতে হবে।


 


আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত