আনু মোস্তফা, রাজশাহী থেকে    |    
প্রকাশ : ২০ আগস্ট, ২০১৬ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
রাজশাহীতে বৈরিতা ভুলে এক হচ্ছেন মিনু-নাদিম!

একই দলে একই এলাকায় থেকেও তাদের বৈরিতা ছিল চোখে পড়ার মতো। শুধু বিএনপি নেতাকর্মীদের মাঝেই নয়, নগরবাসীর মাঝেও রাজশাহী বিএনপির আলোচিত দুই নেতার বিপরীতমুখী অবস্থান আলোচনা-সমালোচনার বিষয় ছিল। তবে সব বৈরিতা ভুলে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও রাজশাহী মহানগর বিএনপির সভাপতি মিজানুর রহমান মিনু ও জেলা বিএনপির সভাপতি নাদিম মোস্তফা আবার এক হচ্ছেন। দলীয় নির্ভরযোগ্য সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

মিনু-নাদিমের নতুন এই মেরুকরণের খবরে নেতাকর্মীদের মাঝেও ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। দলের দায়িত্বশীল নেতাকর্মীরা মনে করছেন, রাজশাহীতে বিএনপির এই দুই নেতার বৈরী অবস্থানের কারণে অতীতে দল যেমন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, তেমনি নেতাকর্মীদের অনৈক্যের সুযোগে আন্দোলন সংগ্রামেও সফলতা আসেনি। তাদের মতে, মিনু-নাদিম একসঙ্গে নেতৃত্ব দিলে বিএনপি পূর্ণশক্তিতে ঘুরে দাঁড়াবে। আবার রাজশাহী হয়ে উঠবে বিএনপির দুর্গ।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে বিএনপি নেতা মিজানুর রহমান মিনু যুগান্তরকে বলেন, নাদিমকে আমি সব সময় ছোটভাই মনে করি। আমরা উভয়েই শহীদ জিয়ার আদর্শের সৈনিক। আমরা একসঙ্গে স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনসহ সব আন্দোলন সংগ্রামে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে মাঠে থেকেছি। আগামীতেও আমরা জাতীয়তাবাদী শক্তিকে সংগঠিত করতে একসঙ্গে কাজ করব।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, বিএনপির সাম্প্রতিক ঘোষিত কেন্দ্রীয় কমিটিতে মিজানুর রহমান মিনুকে দলের যুগ্ম মহাসচিব থেকে চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা এবং জেলা বিএনপির সভাপতি নাদিম মোস্তফাকে বিশেষ সম্পাদক থেকে নির্বাহী কমিটির সদস্য পদ দেয়ার পর রাজশাহীতে বিএনপি নেতাকর্মীদের মাঝে প্রকাশ্যে ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। মিনু ও নাদিম অনুসারীরা এই দুই নেতার পদাবনতি সহজভাবে মেনে নিতে পারেননি। এর পেছনে যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীর হাত আছে মনে করে তারা প্রকাশ্যে তার সমালোচনা করেন। এ অবস্থায় রাজশাহীতে দলের রাজনীতিতে নিজেদের একচ্ছত্র প্রভাব ও অস্তিত্বের প্রশ্নেই আলোচিত এই দুই নেতা এক হচ্ছেন বলে জেলা ও মহানগর বিএনপির একাধিক নেতা যুগান্তরের কাছে স্বীকার করেছেন।

তাদের মতে, পদের হেরফেরে কিছুটা হতাশ হলেও নাদিম মোস্তফা কয়েকদিন আগে দলীয় চেয়ারপারসনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন। একইভাবে মিজানুর রহমান মিনুও দলীয় প্রধানের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে দোয়া চেয়েছেন। ভেদাভেদ ভুলে রাজশাহীতে চলমান আন্দোলন সংগ্রামকে বেগবান করতে মিনু-নাদিমকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার নির্দেশ দিয়েছেন খালেদা জিয়া। নেতাকর্মীরা জানান, খুব শিগগিরই দলীয় কর্মসূচিতে মিনু-নাদিমকে একসঙ্গে দেখা যাবে।

দলীয় সূত্রগুলো জানায়, বিএনপির নতুন কমিটিতে মিনু-নাদিমবিরোধীরাই সুবিধাজনক পদ ও জায়গা পেয়েছেন। ফলে দুই নেতা রাজশাহীতে নিজেদের প্রভাব হারানোর ঝুঁকিতে পড়েছেন। মিনু-নাদিম অনুসারীরা মনে করেন, দলের বৃহত্তর স্বার্থে আর সময়ের প্রয়োজনে দুই নেতাকে একসঙ্গে চলতে হবে। তারা আগের অবস্থানে থাকলে রাজশাহীতে বিএনপির রাজনীতি ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়বে।

দুই নেতার অনুসারীরা মনে করছেন, মিনু বর্তমানে মহানগর বিএনপির সভাপতির যে পদে আছেন তাকে সেই পদেই রাখা হবে। অন্যদিকে নাদিম মোস্তফাকেও জেলা বিএনপির সভাপতির পদে রাখা হবে। আর সে কারণে এই দুই নেতাকে কেন্দ্রে বড় কোনো পদে দেয়া হয়নি।

জেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলাউদ্দিন আহমেদ বলেন, জেলা বিএনপির রাজনীতিতে নাদিম মোস্তফার বিকল্প নেই। তাকে বাদ দিয়ে বিএনপির রাজনীতি ঐক্যবদ্ধভাবে এগিয়ে নেয়ার কেউ নেই। একই মতামত দেন জেলা বিএনপির আরেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মামুনুর রশীদ মামুন।

এ ব্যাপারে জেলা বিএনপির সভাপতি নাদিম মোস্তফা বলেন, রাজশাহীতে বিএনপির রাজনীতিতে মিনু ভাইয়ের অবদানকে ছোট করে দেখার কোনো অবকাশ নেই। তার হাত ধরে অনেকেই রাজনীতির পথে হাঁটতে শিখেছেন, বড় হয়েছেন। তিনি এখনও সবার শ্রদ্ধাভাজন নেতা। আমরা অতীতেও কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে আন্দোলন সংগ্রাম করেছি। চলমান আন্দোলনকে এগিয়ে নিতে আগামীতেও ঐক্যবদ্ধভাবে মাঠে থাকব।


 


আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত