সাদ্দাম হোসেন ইমরান    |    
প্রকাশ : ২৪ জুলাই, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
হজযাত্রীদের বিমান টিকিটের আবগারি শুল্ক কমছে
হজযাত্রীদের সুবিধার্থে আন্তর্জাতিক রুটের বিমান টিকিটের ওপর আবগারি শুল্ক কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। বর্তমান নিয়মানুযায়ী টিকিটের ওপর ২ হাজার টাকা আবগারি শুল্ক দেয়ার কথা, সেটিকে ১ হাজার টাকা করা হচ্ছে। এতে প্রতি যাত্রীকে বিমান ভাড়া ১ হাজার টাকা কম দিতে হবে। তবে অন্য যাত্রীদের বর্তমান হারেই বিমান টিকিটের ওপর আবগারি শুল্ক দিতে হবে।
এনবিআর সূত্র জানায়, ধর্মীয় কারণে বাংলাদেশিরা প্রতিবছর সরকারি-বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজে যায়। এতে ব্যবসা বা অর্থ উপার্জনের উদ্দেশ্য নেই। তাই হজযাত্রীদের কথা চিন্তা করে এবং হাবের আবেদনের প্রেক্ষিতে বিমান টিকিটের ওপর আবগারি শুল্ক ২ হাজার টাকা থেকে কমিয়ে ১ হাজার টাকা করা হচ্ছে। এ ব্যাপারে আজকালের মধ্যে সাধারণ আদেশ জারি করা হবে। এর ফলে প্রায় ১৬ কোটি টাকা কম রাজস্ব আয় হবে।
জানা গেছে, ২০১৭-১৮ অর্থবছরের বাজেটে বিমান টিকিটের ওপর আবগারি শুল্ক বাড়ানো হয়। সার্কভুক্ত দেশ ছাড়া এশিয়ার অন্য দেশের ক্ষেত্রে বিমান টিকিটের ওপর আবগারি শুল্ক ১ হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে ২ হাজার টাকা এবং ইউরোপ, যুক্তরাষ্ট্র ও অন্যান্য দেশের ক্ষেত্রে আবগারি শুল্ক দেড় হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে ৩ হাজার টাকা করা হয়। এ হিসেবে হজ যাত্রীদের ২ হাজার টাকা আবগারি শুল্ক দেয়ার কথা। তবে অভ্যন্তরীণ ও সার্কভুক্ত দেশগুলোতে ভ্রমণের ক্ষেত্রে বিমান টিকিটের আবগারি শুল্ক আগের মতোই ৫০০ টাকা অপরিবর্তিত রাখা হয়। তবে এ সুবিধা ভোগ করতে পারবেন না বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন অনেক হজযাত্রী। তারা বলেছেন, যারা বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজে যায় তারা আগেই এজেন্টদের বাড়ি ভাড়া, থাকা-খাওয়াসহ বিমান ভাড়ার টাকা প্যাকেজ হিসেবে পরিশোধ করেন। শেষ সময়ে এসে এনবিআর থেকে আবগারি শুল্ক কমানোয় তারা এ সুবিধা পাবেন না। এর সব সুবিধা পাবেন এজেন্টরা। কারণ এজেন্টদের কাছ থেকে টাকা ফেরত পাওয়া দুরূহ ব্যাপার। এ সিদ্ধান্ত অন্তত আরও এক মাস আগে নেয়া উচিত ছিল।
এ বিষয়ে হজ এজেন্সিস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (হাব) মহাসচিব শাহাদাত হোসেন তসলিম বলেন, আবগারি শুল্ক ও সৌদি আরবের এয়ারপোর্ট বিল্ডিং ট্যাক্স প্রত্যাহারের জন্য হাবের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে লিখিতভাবে আবেদন করা হয়েছিল। এ বিষয়ে সরকার ইতিবাচক সাড়া দেয়ায় হজ যাত্রী ও এজেন্সি উভয়ের সুবিধা হয়েছে। সরকার চলতি বছর বিমান ভাড়া ছিল ১ লাখ ২৪ হাজার ৭৫২ টাকা ২১ পয়সা নির্ধারণ করে দেয়। সর্বশেষ এই ভাড়াই বহাল রয়েছে।
তিনি আরও বলেন, একই সঙ্গে সৌদি আরব বিমানবন্দরের ‘এয়ারপোর্ট বিল্ডিং ট্যাক্স’ ২ হাজার টাকাও থাকছে না। ধর্ম মন্ত্রণালয় এই ট্যাক্স অন্য ফান্ডের সঙ্গে সমন্বয় করবে। এই অবস্থায় চলতি বছর হজযাত্রীদের বিমান ভাড়া প্যাকেজের বাইরে অতিরিক্ত ৩ হাজার টাকা দিতে হবে না।
সাবেক সভাপতি ইব্রাহিম বাহার বলেন, সরকার নির্ধারিত ফি’র চেয়ে এয়ারলাইন্সগুলো আরও বেশি বিমান ভাড়া চাচ্ছিল। এজেন্সিগুলো যেহেতু প্যাকেজ হিসেবে টাকা নেয় সেহেতু যাত্রীদের কাছে আবার টাকা চাওয়ায় কিছুটা মনোমালিন্যের সৃষ্টি হচ্ছিল। এনবিআরের এ সিদ্ধান্তের কারণে তা কিছুটা দূর হবে।
প্রসঙ্গত, এবারের হজ ফ্লাইট আজ থেকে শুরু হচ্ছে। শনিবার আশকোনায় হজ ক্যাম্পের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এবার ১ লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জন হজে যাবেন।



আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত