জয়পুরহাট প্রতিনিধি    |    
প্রকাশ : ০৭ অক্টোবর, ২০১৭ ০০:০০:০০ প্রিন্ট
সাজাপ্রাপ্ত আসামির নাম ঠিকানায় মিল
আক্কেলপুরে নিরপরাধ তরুণ কারাগারে

জয়পুরহাটের আক্কেলপুরে আদালতে সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামির নাম, ঠিকানা ও বাবার নামে মিল পাওয়ায় পুলিশ এক তরুণকে আটক করে কারাগারে পাঠিয়েছে। পুলিশের এ ভুলের কারণে প্রকৃত অপরাধীর স্থলে নিরপরাধ হতভাগ্য এ তরুণকে অহেতুক কারাগারে শাস্তি ভোগ করতে হচ্ছে। আটক এসএম জাহাঙ্গীর আলম সরকার (২৪) আক্কেলপুর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহসভাপতি ও জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে বগুড়া সরকারি আজিজুল হক কলেজ থেকে মাস্টার্স পাস করেছেন। তিনি গৃহশিক্ষকতা করেন। অথচ গ্রেফতারি পরোয়ানায় সাজাপ্রাপ্ত আসামির নাম এসএম জাহাঙ্গীর আলম (উজ্জ্বল) সরদার।

আটক এসএম জাহাঙ্গীর আলমের পরিবারের অভিযোগ, দু’জনের বাবার নাম তোফাজ্জল হোসেন হলেও আটক এসএম জাহাঙ্গীর সরকারের বাড়ি আক্কেলপুর পৌর সদরের কলেজপাড়ায়। আর প্রকৃত আসামির ব্যবসা-প্রতিষ্ঠান আক্কেলপুর মুজিবর রহমান ডিগ্রি কলেজ মার্কেটের (আক্কেলপুর কলেজ বাজার) মেইন গেটের পূর্বদিকে। তার দোকানের নাম ‘মেসার্স সরদার ট্রেডার্স’। যার সাইন বোর্ড এখনও টাঙানো রয়েছে। তারপরও পুলিশের এমন ভুল কেমন করে হল এবং কেন তা খতিয়ে দেখা হল না, তা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। নিরপরাধ তরুণ এসএম জাহাঙ্গীর সরকারকে আটক করে কারাগারে পাঠানোর বিষয়টি এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে প্রকৃত আসামির পরিচয় বেরিয়ে আসে। পুলিশের এমন ভুলের ঘটনায় এলাকার লোকজন ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। এ ঘটনার পর জনরোষের মুখে পুলিশ ভুল স্বীকার করেছে। শুক্র ও শনিবার দু’দিন সাপ্তাহিক ছুটি থাকায় আগামী রোববার তাকে কারাগার থেকে মুক্ত করা হবে।

প্রাপ্ত অভিযোগে জানা গেছে, জয়পুরহাট জেলার আক্কেলপুর থানা পুলিশ গ্রেফতারি পরোয়ানা মূলে (ওয়ারেন্টমূলে) আক্কেলপুর পৌর সদরের কলেজ পাড়ার তোফাজ্জল হোসেনের ছেলে এসএম জাহাঙ্গীর আলম সরকারকে বুধবার গভীর রাতে তার বাড়ি থেকে আটক করে। তার স্বজনরা পুলিশের কাছে তাকে আটকের কারণ জানতে চাইলে বলা হয় যে, সে একজন সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি। আটক এসএম জাহাঙ্গীর আলমের পরিবারের অভিযোগ, তার বাবাসহ স্বজনরা পরদিন বৃহস্পতিবার সকালে আক্কেলপুর থানায় গিয়ে থানার ওসি সিরাজুল ইসলামকে বোঝানোর চেষ্টা করেন, তাদের ছেলে অন্য ছেলেদের থেকে সম্পূর্ণ আলাদা। তার বিরুদ্ধে সাজা বা দণ্ড জরিমানার ঘটনা কোনও সময় কোথাও ঘটেনি। তারা বার বার অনুরোধ করেন, আপনি সঠিক আসামিকে শনাক্ত করে তাকে গ্রেফতার করে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করুন। কিন্তু থানার ওসি সিরাজুল ইসলাম কারো কথায় কর্ণপাত না করে এসএম জাহাঙ্গীর আলম সরকারকে সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি হিসেবে বৃহস্পতিবার কারাগারে পাঠিয়ে দেন।

আক্কেলপুর কলেজ বাজারের একাধিক ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, আক্কেলপুর পৌর সদরের শান্তা গ্রামের তোফাজ্জল হোসেনের ছেলে এসএম জাহাঙ্গীর হোসেন সরদার ওরফে উজ্জ্বল উপজেলা শহরের আক্কেলপুর মুজিবর রহমান ডিগ্রি কলেজ মার্কেটের (কলেজ বাজার) মেইন গেটের পূর্বদিকে ‘মেসার্স সরদার ট্রেডার্স’ নামে একটি দোকান দিয়ে কয়েক বছর ধরে সেখানে কীটনাশকসহ বিভিন্ন পণ্যের ব্যবসা করতেন। এসএম জাহাঙ্গীর হোসেন সরদার তার ওই ব্যবসা-প্রতিষ্ঠানের নাম ও ঠিকানা ব্যবহার করে ঢাকার ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ মালামাল বাকিতে নিয়ে সঠিক সময়ে তার দাম পরিশাধ না করায় পাওনাদাররা তার বিরুদ্ধে প্রতারণার মামলা করেন। ওই প্রতারণা মামলায় তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা (ওয়ারেন্ট) জারি হয়। সে ওয়ারেন্ট মূলে আক্কেলপুর থানা পুলিশ বছর খানেক আগে তাকে আটক করে জয়পুরহাট আদালতে পাঠান। আদালত তাকে কারাগারে পাঠালে কয়েকদিন কারাবাসের পর আদালত ৭ দিনের মধ্যে ঢাকায় আদালতে হাজির হওয়ার শর্তে তার জামিন মঞ্জুর করেন। কিন্তু জামিন পাওয়ার পর থেকে ব্যবসায়ী এসএম জাহাঙ্গীর আলম (উজ্জ্বল) সরদার আদালতে হাজির না হওয়ায় তার অনুপস্থিতিতে তাকে ৬ মাসের কারাদণ্ড এবং সে সঙ্গে আসামির ১১ লাখ ৭০ হাজার টাকা জরিমানার আদেশ দেন। ব্যবসায়ী এসএম জাহাঙ্গীর আলম (উজ্জ্বল) সরদারের বিরুদ্ধে প্রতারণার মামলা ও কারাদণ্ডাদেশের ঘটনাটি কলেজ বাজারের একাধিক ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসী নিশ্চিত করেছেন।

আক্কেলপুর থানার ওসি সিরাজুল ইসলাম বলেন, আটক জাহাঙ্গীর আলম সরকার যে প্রকৃত অপরাধী নয়, সেটা তাকেই প্রমাণ করতে হবে। পলাতক আসামির ঠিকানায় ‘কলেজ গেট’ বলা আছে। আর আটক জাহাঙ্গীর আলমের বাড়িও কলেজ চত্বরের পাশে।

শুক্রবার বিকালে জয়পুরহাটের পুলিশ সুপার রশীদুল হাসান যুগান্তরকে জানান, তাকে আটক করে কারাগারে পাঠানোর পর বিষয়টি আমার গোচরীভূত হয়েছে। যদি ভুল হয়ে থাকে। তবে এমন ভুল সত্যি দুঃখজনক। যত দ্রুত সম্ভব এ ব্যাপারে খতিয়ে দেখে আটক তরুণ নিরপরাধ হলে তাকে কারাগার থেকে বের করে প্রকৃত আসামিকে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠানো হবে।


 


আরো পড়ুন
  • শীর্ষ খবর
  • সর্বশেষ খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৮৪১৯২১১-৫, রিপোর্টিং : ৮৪১৯২২৮, বিজ্ঞাপন : ৮৪১৯২১৬, ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৭, সার্কুলেশন : ৮৪১৯২২৯। ফ্যাক্স : ৮৪১৯২১৮, ৮৪১৯২১৯, ৮৪১৯২২০

Design and Developed by

© ২০০০-২০১৭ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত